১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিরাজগঞ্জে ধর্ষক শিক্ষক ১৫ দিনেও গ্রেফতার হয়নি

স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ ॥ শাহজাদপুরে ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে অপহরণ ও ৯ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলার মূল আসামি প্রধান শিক্ষক আব্দুস সবুরকে ১৫ দিন পরও পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। তবে সোমবার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস তাকে সাময়িক বরাখাস্ত করেছে। তার অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার দায়ে এ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে বরখাস্ত আদেশে বলা হয়েছে। এদিকে, ধর্ষণ মামলা তুলে নিতে ধর্ষক সবুর ও তার সহযোগীরা বাদীকে হুমকি দিচ্ছে। নিরাপত্তাহীনতায় দিনযাপন করছে ধর্ষিতার পরিবার। রবিবার সিরাজগঞ্জের জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ধর্ষিতার জবানবন্দী গ্রহণ করা হয়েছে। ডাক্তারী পরীক্ষায়ও তাকে ধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে। চাঞ্চল্যকর এ ধর্ষণের ঘটনার সাথে আরও ২-৩ জনের সম্পৃক্ততার অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষিতাকে কমপক্ষে ৪টি স্থানে আটকে রেখে চেতনাশক ওষুধ প্রয়োগ করে ধর্ষণ করা হয়েছে বলেও একাধিক সূত্রে জানা গেছে। ধর্ষক সবুরকে বাঁচাতে ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহের জন্য একটি প্রভাবশালী মহল মরিয়া হয়ে উঠেছে। ওই ছাত্রীকে গত ১৮ অক্টোবর বেলা ১১টার দিকে কৈজুরী ব্রিজের কাছ থেকে ভাটদিঘুলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সবুর জোরপূর্বক সিএনজিচালিত অটোরিক্সাযোগে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় এবং ৯ দিন আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে গত ২৬ অক্টোবর রাতে পুলিশ ধর্ষক সবুর মাস্টারের এক ঘনিষ্ঠজনের সহযোগিতায় ওই স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে।