১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পুঁজিবাজারে লেনদেন কমেছে ১০ শতাংশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের উভয় পুঁজিবাজারে বুধবার সূচকের পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। তালিকাভুক্ত বেশিরভাগ কোম্পানির দরপতনের দিনে সেখানে সূচকের সঙ্গে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণও কমেছে। প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তি পর্যায়ের বিনিয়োগকারীদের বাজারে কিছুটা অংশগ্রহণ কমার কারণে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) আগের দিনের তুলনায় লেনদেন কমেছে প্রায় ১০ শতাংশ। অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) লেনদেন কমেছে। তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলোর দর কমলেও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর বেশিরভাগেরই দর বেড়েছে। তবে জ্বালানি এবং শক্তি খাতের শতভাগ কোম্পানির দরই কমেছে, প্রকৌশল এবং টেক্সটাইল খাতের বেশিরভাগ কোম্পানিরই দিনটিতে দর বেড়েছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, বুধবারে ডিএসইতে ৩১২ কোটি ৭০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের তুলনায় ৩৪ কোটি ৩২ লাখ টাকা কম। মঙ্গলবার ডিএসইতে ৩৪৭ কোটি ৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। ডিএসই প্রধান মূল্যসূচক ডিএসই এক্স ৪৭ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৭৫৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ১১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ১০৮ পয়েন্টে। আর ডিএস-৩০ সূচক ১৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৫২ পয়েন্টে। ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নিয়েছে ৩০৪টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০১টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ১৬৮টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টির।

ডিএসইতে খাতভিত্তিক লেনদেনের সেরা স্থান দখল জ্বালানি এবং শক্তি খাতের কোম্পানিগুলো। সারাদিনে খাতটির মোট লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৪৮ কোটি টাকা, যা মোট লেনদেনের ১৫ ভাগ। দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল ওষুধ এবং রসায়ন খাতটি। সারাদিনে খাতটির মোট লেনদেনের পরিমাণ ছিল ১৩ দশমিক ৫৭ ভাগ। তৃতীয় অবস্থানে ছিল প্রকৌশল খাতের কোম্পানিগুলো। খাতটির মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৪২ কোটি টাকা, যা মোট লেনদেনের ১৩ দশমিক ৪৭ ভাগ। বুধবারে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়াডের্র শেয়ার। এরপর রয়েছে যমুনা অয়েল, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, মেঘনা সিমেন্ট, কেয়া কসমেটিকস, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ, জিএসপি ফিন্যান্স, গ্রামীণফোন, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ এবং বেক্সিমকো ফার্মা।

ডিএসইর দর বৃদ্ধির সেরা কোম্পানিগুলো হলো : হাক্কানী পাল্প, রূপালী ব্যাংক, গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স, মেঘনা সিমেন্ট, ঢাকা ইন্স্যুরেন্স, ১ম আইসিবি মিউচুয়াল ফান্ড, ফ্যামিলি টেক্স, অলিম্পিক ও প্রাইম আইসিবি ১ম মিউচুয়াল ফান্ড।

দর হারানোর সেরা কোম্পানিগুলো হলো : কোহিনূর কেমিক্যাল, খুলনা প্রিন্টিং এ্যান্ড প্যাকেজিং লিমিটেড, ঢাকা ডাইং, আইসিবি ১ম এনআরবি, এলআর গ্লোবাল মিউচুয়াল ফান্ড ১, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ, শাহজিবাজার পাওয়ার, সমাতা লেদার ও সাইফ পাওয়ার টেক। অপরদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ২৪ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এদিন সিএসই সার্বিক সূচক ১৪০ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৪ হাজার ৬৬১ পয়েন্টে। সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২১৮টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৪৩টির, কমেছে ১৫৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টির।

সিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলো : ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ, আরএন স্পিনিং, যমুনা ওয়েল, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, বেক্সিমকো, ফ্যামিলি টেক্স, খুলনা প্রিন্টিং এ্যান্ড প্যাকেজিং, সাইফ পাওয়ার টেক এবং মবিল যমুনা বিডি।

নির্বাচিত সংবাদ