২২ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রিমিয়ার ক্রিকেটের সুপার লীগে মোহামেডান

প্রিমিয়ার ক্রিকেটের সুপার লীগে মোহামেডান
  • সাকিব দ্যুতিতে সুপার লীগে ওঠার আশা জিইয়ে রেখেছে রূপগঞ্জ, চার ম্যাচ পর জামালের জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগে বুধবার সব ম্যাচেই কুয়াশার প্রভাব দেখা যায়। এ জন্য ম্যাচও খেলা হয় কম ওভারে। পারটেক্সকে ৭ উইকেটে হারিয়ে সুপার লীগে খেলা অনেকটাই নিশ্চিত করে ফেলেছে মোহামেডান। চার ম্যাচ পর জয় পেয়েছে শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব। দলটি ওল্ডডিওএইচএসকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে। ওল্ডডিওএইচএসকে টানা ১০ম হারের স্বাদ দিয়েছে শেখ জামাল। টানা চার ম্যাচ পর জিতেছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জও। সাকিব আল হাসানের (৪/২৭) দুর্দান্ত বোলিং নৈপুণ্যে প্রাইম দোলেশ্বরকে ২৮ রানে হারিয়ে সুপার লীগে ওঠার আশাও জিইয়ে রেখেছে রূপগঞ্জ।

তামিমের ছোঁয়ায় জয়ে ফিরেছে রূপগঞ্জ

ফতুল্লায় লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ও প্রাইম দোলেশ্বরের মধ্যকার ম্যাচটি ৩১ ওভারে হয়। আগে ব্যাট করে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ৩০.১ ওভারে ২১১ রান করতেই অলআউট হয়ে যায়। ইলিয়াস সানি ৩০তম ওভারে তিন উইকেট নিয়েই রূপগঞ্জের ইনিংস ধসে দেন। তামিম ইকবাল প্রথমবার এবারের লীগে খেলতে নেমেই করেন ৪৫ রান। আসার জাইদি ৪৭, নাজমুল মিলন ৩৫, সাকিব আল হাসানের ব্যাট থেকে আসে ৩০ রান। জবাব দিতে নেমে ১৮৩ রানেই অলআউট হয়ে যায় রূপগঞ্জ। তামিম খেলতে নেমেই জয় পেয়ে যান। তার ছোঁয়ায় যেন রূপগঞ্জও জয়ের ধারায় ফেরে।

জিতেই চলেছে মোহামেডান

বিকেএসপিতেও একই অবস্থা দেখা যায়। খেলা হয় ৩৬ ওভার করে। আগে ব্যাট করে পারটেক্স। ৮ উইকেট হারিয়ে ৩৬ ওভারে ১৭৫ রান করে। রাজিন সালেহ একাই ৮২ রান করেন। তবে আলাউদ্দিন বাবু (৪/২৭) ও মাশরাফি বিন মর্তুজা (৩/৩০) বোলিং চমক দেখান। জবাবে এজাজ আহমেদের ৫৯, তানভির হায়দারের ৫৬, নাঈম ইসলামের অপরাজিত ৩১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৩ ওভারে ১৭৭ রান করে ম্যাচ জিতে যায় মোহামেডান। সেই সঙ্গে দলটির সুপার লীগে ওঠাও অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায়। দলটির পরবর্তী খেলা দুর্বল কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের বিপক্ষে। সেই ম্যাচটিও যে মোহামেডান জিতবে, তা নিশ্চিতই বলা যায়। জিতলে আর কোন ধরনের সংশয়ই থাকবে না। পয়েন্ট ভা-ার আরও মজবুত করে নেবে। এখনই দলটির ভা-ারে আছে ১২ পয়েন্ট।

সোহাগের পর মাইশুকুর ঝলক

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ওল্ডডিওএইচএস শেষবেলায় এসে ঝলক দেখায়। ৪৫ ওভারের ম্যাচে আগে ব্যাট করে জয়রাত শেখের ৬১ রানে ৯ উইকেটে ১৫৫ রান করে ওল্ডডিওএইচএস। কিন্তু সেই ঝলকও দলটির কাজে দেয়নি। সোহাগ গাজী একাই ৫ উইকেট তুলে নেন। বিশ্বকাপের ৩০ সদস্যের প্রাথমিক দলেও যে তাকে নেয়া হয়নি, যেন সেই জবাবই দেয়ার চেষ্টা করছেন। জবাবে ম্যাচ সেরা মাইশুকুরের ৮৩ রানে ৪২.২ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রান করে জিতে যায় শেখ জামাল। সেই সঙ্গে সুপার লীগে খেলার ক্ষীণ আশাও বেঁচে থাকে। টানা ১০ম হার হয় ওল্ডডিওএইচএসের।

স্কোর ॥ রূপগঞ্জ ইনিংস ২১১/১০; ৩০.১ ওভার (জাইদি ৪৭, তামিম ৪৫, মিলন ৩৫, সাকিব ৩০, কাপালী ২৩, জুনায়েদ ২১; ইলিয়াস ৩/২৯, সানজামুল ২/২৪)।

প্রাইম দোলেশ্বর ইনিংস ১৮৩/১০; ৩০ ওভার (ডেভিড ৫৩, মুশফিক ৩২, ইলিয়াস ২৫*; সাকিব ৪/২৭, শহীদ ৩/২৮)।

ফল ॥ লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ২৮ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা ॥ সাকিব আল হাসান (লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ)।

পারটেক্স ইনিংস ১৭৫/৮; ৩৬ ওভার (রাজিন ৮২, আব্বাস ৩৫; আলাউদ্দিন ৪/২৭, মাশরাফি ৩/৩০)।

মোহামেডান ইনিংস ১৭৭/৩; ৩৩ ওভার (এজাজ ৫৯, তানভির ৫৬, নাঈম ৩১*, মিঠুন ১২)।

ফল ॥ মোহামেডান ৭ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচ সেরা ॥ আলাউদ্দিন বাবু (মোহামেডান)।

ওল্ডডিওএইচএস ইনিংস ১৫৫/৯; ৪৫ ওভার (জয়রাজ ৬১, রুবেল ২৩, শানাজ ২১; সোহাগ ৫/২৭)।

শেখ জামাল ইনিংস ১৫৮/৪; ৪২.২ ওভার (মাইশুকুর ৮৩, সানি জুনিয়র ৪৪*; সানজিত ২/২১)।

ফল ॥ শেখ জামাল ৬ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচ সেরা ॥ মাইশুকুর রহমান (শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব)।