১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাঘ-হরিণে বন্ধুত্ব!

বাঘ-হরিণে বন্ধুত্ব!

বাঘ শিকারী আর হরিণ তার শিকার। বাঘের ভয়ে হরিণ সর্বদাই তটস্থ। বাঘের হাত থেকে পালিয়ে বেড়ানোই যেন হরিণের আসল কম্ম। সেই শিকারী বাঘের সঙ্গে হরিণের বন্ধুত্ব, যাকে বলে গলায় গলায় পিরীত! কি বিশ্বাস হচ্ছে না? দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রুজার ন্যাশনাল পার্কে এমনই অভিনব এক দৃশ্য দেখতে পেয়েছেন পার্কটির গেম রেঞ্জার এইসটান হাওয়ি। হিংস্র বাঘের সঙ্গে ক্রীড়ারত এক বাচ্চা হরিণের সেই দুর্লভ ঘটনার সাক্ষী তিনি। বাচ্চা হরিণটি বাঘটিকে এক বিন্দুও ভয় পায়নি। উল্টো বাঘের সঙ্গে তিড়িং বিড়িং করে লাফাচ্ছিল। বাঘের নাক-মুখ ঘষে দিচ্ছিল। বাঘের গায়ের ওপর উঠে যাচ্ছিল আর বাঘটিও বাচ্চাটিকে পরম মমতায় প্রশ্রয় দিচ্ছিল। এই দুর্লভ মুহূর্ত সর্ম্পকে বলতে গিয়ে হাওয়ি বলেন, আমি আমার সারা গেম রেঞ্জার জীবনে এমন অভিনব ঘটনা আর কখনও দেখেনি। আর কখনও দেখব এমনটাও ভাবতে পারি না। এমন দুর্লভ ও অবর্ণনীয় ঘটনা দেখার সৌভাগ্যের জন্য আমি মুগ্ধ এবং সেই সঙ্গে সম্মানবোধ করছি। ‘’ তবে তিনি বলেন, হয়ত বাঘটি বাচ্চা হরিণের মাকে শিকার হিসেবে পেতে চেয়েছিল। আর সেই অপেক্ষমাণ সময়টায় বাঘ বাচ্চা হরিণটির সঙ্গে খেলছিল। বাচ্চাটি সদ্যজাত হওয়ায় সে বাঘ সম্পর্কে তেমন কিছুই জানত না। তাই দৌড়ে না পালিয়ে বাঘের সঙ্গে খেলা করেছে। এ সর্ম্পকে বাঘ বিশেষজ্ঞ উইলিয়াম ফক্স বলেন, এটা তেমন কিছুই নয়, মাঝে মাঝেই বাঘ তার শিকারীকে নিয়ে খেলা করে। এটা এমনই এক ঘটনা।

ডেইলি মেইল অবলম্বনে

আরিফুর সবুজ