১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইউরোতে আশাবাদী কোচ জোয়াকিম লো

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে দুই যুগ পর ব্রাজিল বিশ্বকাপের শিরোপা জেতে জার্মানি। কিন্তু চুুর্থবারের মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অজর্নের পর নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারছে না। ইউরো বাছ্পার্বে যেন ভিন্ন জার্মানিকে দেখে ফুটবল বিশ্ব। যারা পোল্যান্ডের কাছে হার মানে এবং আয়ারল্যান্ডের মতো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ড্র করে। কিন্তু সেই ব্যর্থতা থেকে বেরিয়ে আসতে চায় জার্মানি। দলের অভিজ্ঞ কোচ জোয়াকিম লো বিশ্বাস করেন ২০১৬ ইউরোর আগেই তার নতুন দলটি নিজেদের আরও সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে সক্ষম হবে।

গত জুলাইয়ে চতুর্থবারের মতো বিশ্বকাপের শিরোপা জিতে জার্মানি। আর শিরোপা জয়ের পরই বেশ কয়েকজন জার্মান খেলোয়াড় ফুটবলকে বিদায় বলে দেন। সেইসঙ্গে বাধ সাধে চোটও। যে কারণে ইউরো ২০১৬ এর বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচগুলোতে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি তারা। বছরের দ্বিতীয়ার্ধে অনুষ্ঠিত ম্যাচগুলোতে সমর্থকদের হতাশ করেছে। বিশেষ করে অক্টোবরে প্রতিবেশী পোল্যান্ডের কাছে প্রথমবারের মতো লজ্জাজনক পরাজয়। আর আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে ১-১ গোলের ড্র-যা জার্মানদের ইতিহাস-ঐত্যিহ্যের সঙ্গে মানায় না। এই ম্যাচগুলোর ফলাফলে টুর্নামেন্টের বাছাইপর্বে বর্তমানে নিজেদের গ্রুপ টেবিলের তৃতীয় স্থানে অবস্থান করছে। তারপরও হতাশায় নুইয়ে থাকতে নারাজ জোয়াকিম লো। সদ্যপ্রকাশিত ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা দলটির নাম জার্মানি। তাই জার্মানির কোচ জোয়াকিম লোর বিশ্বাস নতুন বছরটা দারুণভাবেই শুরু করবে তারা। আগামী বছর বাছাইপর্বে বাকি থাকা ছয়টি ম্যাচ খেলবে জার্মানি। এর মধ্যে সেপ্টেম্বরে পোল্যান্ডকে আতিথেয়তা দেবে তারা। তুলনামূলকভাবে খর্ব শক্তির দল আয়ারল্যান্ড ও স্কটল্যান্ডের সঙ্গে এ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। সব ম্যাচেই জয় ছিনিয়ে আনতে চান জোয়াকিম লো।

কেননা গ্রুপের শীর্ষ দুটি দল সরাসরি চূড়ান্ত পর্বে খেলবে। আর তৃতীয় স্থানে থাকা দলগুলোকে খেলতে হবে প্লে অফ। তা বিষয়টি খুব জটিল হলেও মোটেই হতাশ নন জার্মান কোচ লো। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমরা যা অর্জন করেছি তা নিয়ে পুরোপুরি হয়ত সন্তুষ্ট হওয়া যাবে না। তবে অতীতের সফলতার সঙ্গে বর্তমানের পরিস্থিতির পার্থক্য কমানোটাই এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এ জন্য নতুন পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। আমাদের নতুন খেলোয়াড় দলে নিতে হবে এবং তাদের জন্য নতুন লক্ষ্য স্থির করতে হবে।’ ২০০৬ সালে জার্মানির কোচের দায়িত্ব নেন জোয়াকিম লো। আগামী ২০১৬ ইউরো পর্যন্ত তার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ জার্মানি। ২০১৫ সালে জার্মানদের হয়ে কি অর্জিত সম্ভব তা ইতোমধ্যেই পরিকল্পনা করে ফেলেছেন ৫৪ বছর বয়সী এই কোচ। মার্চের শেষের দিকে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ দিয়ে নতুন মৌসুম শুরু করবে জার্মানি। জোয়াকিম লো আরও দুইধাপ এগিয়ে গিয়ে ইউরো এবং আগামী বিশ্বকাপেও দৃষ্টি দিয়ে রাখলেন। ফ্রান্সে অনুষ্ঠিত ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘২০১৬ সালে আমরা জিততে (ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ) পারি। যার ফাইনাল প্যারিসে অনুষ্ঠিত হবে।