২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাউফলে পাঁচ বছর পড়ে আছে গুচ্ছগ্রামের এক শ’ ঘর

  • বরাদ্দ না দেয়ায় খুলে নিয়ে যাচ্ছে মালামালবরাদ্দ না দেয়ায় খুলে নিয়ে যাচ্ছে মালামাল

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাউফল, ২৮ ডিসেম্বর ॥ বাউফলে সিডরপরবর্তী ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর পুনর্বাসনের জন্য এক কোটি টাকা ব্যয়ে কালাইয়া বগিবাজারের কাছে ভূড়িতলা খাল পারে নির্মিত গুচ্ছগ্রামের এক শ’ ঘর দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় পরে আছে। ঘরগুলো বরাদ্দ না দেয়ায় মালামাল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। অসাধু লোকজন ঘরের টিন, লোহার এ্যাঙ্গেল, দরজা, জানালা ও টিউবওয়েলের হেড খুলে নিয়ে যাচ্ছে। সংঘটিত হচ্ছে নানা ধরনের অপরাধ কর্মকা-। জানা গেছে, ২০০৭ সালে ভয়াল সিডরের অধিকতর ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পুনর্বাসনের জন্য জাপান সরকারের (জাইকা) সহায়তায় ২০০৯ সালে ত্রাণ ও পুনর্বাসন ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে বগিবাজারের ভূরিতলা খালপারে গুচ্ছগ্রামে এক কোটি টাকা ব্যয়ে এক শ’ টিনশেড ঘর নির্মাণ করা হয়। এর মধ্যে ১০টি ঘর নিয়ে একটি করে গভীর নলকূপ, ২টি টয়লেট ও ১টি গোসলখানা নির্মাণ করা হয়। এক শ’ পরিবারের মধ্যে এ ঘরগুলো বরাদ্দ দেয়ার কথা থাকলেও তা দীর্ঘ ৫ ধরে বরাদ্দ দেয়া হয়নি। পরিত্যক্ত ঘরগুলোতে এখন নানা ধরনের অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে। এখানে প্রতিদিন গাঁজার আসর বসে। জুয়া খেলা হয়। ভাসমান পতিতারা আনাগোনা করে। বাউফল প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) এসএম দেলোয়ার হোসাইন বলেন, আমাদের কাজ হলো ঘর তৈরি করে দেয়া। স্থানীয় ভূমি অফিসের দায়িত্ব হলো ঘর বন্দোবস্ত দেয়া। তারা কী করেছে আমার জানা নেই।

নির্বাচিত সংবাদ