২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ধোনিকে নিয়ে সৌরভ, শচীন ও আজহার...

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মানুষের মন বোঝা সত্যি দুষ্কর। বিদেশে পারফর্মেন্স খারাপ হওয়ায় গত কয়েক বছর যারা ধোনির মু-ুপাত করে আসছিলেন সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী ছিলেন তাদের অগ্রভাগে। কেবল নেতৃত্ব নয়, পুরো টেস্ট-ক্যারিয়ারের যখন ইতি টেনে দিলেন ধোনি, তখন সেই সৌরভের কণ্ঠে প্রসংশার সুর! ‘নিশ্চিত করে বলতে পারি দেশের সেরা অধিনায়ক ধোনিই, বিশ্বের অন্যতম সেরা। বিশ্বের অন্য কোন ক্যাপ্টেন-ক্যাবিনেটে তিনটে বিশ্ব পর্যায়ের খেতাব জয়ের নজির নেই। অনেকে হয়ত বলবেন, তাঁদের সময় বিশ্ব পর্যায়ের এত টুর্নামেন্টই হতো না। কিন্তু গোটা দেশকেই মানতে হবে ওয়ান ডে নেতৃত্বকে ও একটা আলাদা উচ্চতায় নিয়ে গেছে। সেখানে ব্যাটিংয়েও অন্যতম সেরা।’ বলেন সৌরভ।

সৌরভ আরও যোগ করেন, ‘অনেক রূপকথার মতো একটা বিচ্ছিন্ন তার সব সময়ই থেকে যাবে ওর জীবনে। সেটা হলো ধোনি ওর ক্ষমতা দিয়ে বিদেশে টেস্ট ক্রিকেটে আরও অনেক কীর্তি রেখে যেতে পারত! কিন্তু এটাই জীবন। যেখানে একটা আলমারি সব সময়ই খালি পড়ে থাকে। যাই হোক, এখন গোটা দেশের উঠে দাঁড়িয়ে ঝাড়খ চ্যাম্পিয়নকে স্যালুট করার সময়! ওকে বলার সময়, ভারতীয় ক্রিকেটকে তুমি অনেক উচ্চতায় নিয়ে গেছ।’ তবে প্রসংশার পরই সত্য কথাটা বলতে ছাড়েননি মাঠ ও মাঠের বাইরের আক্রমণাত্মক মানুষ সৌরভ। ‘সাম্প্রতিক অতীতে ধোনির টেস্ট অধিনায়কত্ব নিয়ে ক্রিকেটবিশ্বের প্রতিটা কোনায় প্রচুর সমালোচনা হয়েছে। ক্যাপ্টেন হিসেবে ওর মেয়াদ আমি দু’ভাগে ভাগ করব, ২০১১’র আগে, আর পরে। ধোনি যত দুর্দান্ত? ক্রিকেটারই হোক না কেন, এটা ওকে মানতেই হবে যে ২০১১’র পরের সময়টা ওর কাছে দুঃস্বপ্নের মতো! বিশেষ করে বিদেশে ২৮ টেস্টের মধ্যে ১৫টিতে হেরেছে!’ অন্যদিকে সাবেক অধিনায়ক আজহারউদ্দিন মনে করেন, সার্বিক বিচারে ধোনির চলে যাওয়ার সময় এসেছিল তবে অবসরের সিদ্ধান্তটা ঠিক নয়। ‘বিদেশে ভারতের পারফর্মেন্স কখনই সুবিধার নয়। সেখানে ওর অবস্থা ছিল আরও করুণ। একজন বিশ্বজয়ী, ঘরের মটিতে এত সাফল্য এনে দেয়া অধিনায়ক হিসেবে সেটি আরও বেশি করে চোখে পড়ে। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার মতো গুরুত্বপূর্ণ সিরিজের মধ্যপথে সিদ্ধান্তটা একদমই ঠিক হয়নি। এটা দলের ওপর বাজে প্রভাব তৈরি করবে। একজন চ্যাম্পিয়ন অধিনায়ককে চ্যাম্পিয়নের মতোই বিদায় নিতে হয়। এক্ষেত্রে পরের টেস্টে জয়ের হুঙ্কার দিয়ে, সাফল্যে সিরিজের ব্যবধান কমিয়ে, ঘোষণা দিয়ে বুক উঁচু করে বিদায় নিতে পারত। এমনকি নিজ মুখ থেকে এখন পর্যন্ত এ নিয়ে কোন কথাও বলেনি ধোনি। সব মিলিয়ে বিদায়টা ওর চরিত্রের সঙ্গে যায়নি।’ বলেন আজহার। ধোনির টেস্ট অবসর নিয়ে কথা বলেছেন অনেক তারকা। গ্রেট শচীনÑ ‘ও ছিল অসাধারণ এক অধিনায়ক, যার অধীনে খেলাটা উপভোগ করেছি। বন্ধু এবার তোমার লক্ষ্য হোক ২০১৫ বিশ্বকাপ।’ যুবরাজ সিংÑ ‘অসাধারণ টেস্ট ক্যারিয়ারের জন্য তোমাকে ধন্যবাদ। আমি তোমার অধিনায়কত্ব উপভোগ করেছি।’