২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চাঁপাইয়ে লতাপাতায় ঢেকে আছে বিদ্যুত উপকেন্দ্র

স্টাফ রিপোর্টার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ॥ জেলা শহরের হুজরাপুরস্থ বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ডের চত্বরের একটি উপকেন্দ্র অযতœ অবহেলার কারণে সম্পূর্ণভাবে নষ্ট হয়ে গেছে। শত কোটির উপকেন্দ্রটি এখন ঢাকা পড়েছে আগাছা লতা পাতার নিচে। সৃষ্টি হয়েছে বড় ধরনের জঙ্গলের। কেন্দ্রটি সম্পর্কে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তাঁরা কেউ মুখ খুলতে রাজি না হয়ে পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিভাগীয় প্রধান কিংবা ঢাকার সঙ্গে কথা বলার। সেই সঙ্গে অনুরোধ রাখে তার নাম কিংবা পদবি প্রকাশ না করার। এই উপকেন্দ্রটি ৩৩/১১ কেভির হওয়ার পরেও অযতেœ তত্ত্বাবধানের অভাবে একেবারে নষ্ট হয়ে যাওয়ার পর তারা এটাকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে নতুন আরও একটি সাবস্টেশন তৈরি করে বিকল্প পথে কাজ চালাচ্ছে। এই উপকেন্দ্রটিতে একাধিক ট্রান্সফরমার, লাইটনিং, এরস্টার, আইসোলেটারের মতো একাধিক বিভিন্ন নামের বিশাল বিশাল আকারের যন্ত্রাংশ বা মেশিন রয়েছে যা অনেকটা সচল রয়েছে বলে কেন্দ্রের জনৈক উপ-প্রকৌশলী জানিয়েছেন। কিন্তু নিজেদের দায়িত্বে অবহেলার কারণে বিদ্যুত উপকেন্দ্রটির বেহালদশা হওয়ার পর পিঠ বাঁচাতে পরিত্যক্ত ঘোষণা দিয়ে অযোগ্যতাকে আড়াল করার চেষ্টা করে নতুনভাবে কোটি কোটি টাকা খরচ করে নতুন স্টেশন বানিয়েছে। আর এইসব কাজে মদদ জুগিয়েছে সংশ্লিষ্ট বিভাগের অসাধু সিন্ডিকেট। কারণ নতুন কিছু করলেই পকেট ভারি করার সুযোগ থাকে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, তারা পুরনো উপকেন্দ্রটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা দিলেও তার নানান উপযোগী সচল যন্ত্রাংশ ও মেশিনপত্র না সরিয়ে বড় আকারের জঙ্গল বানিয়েছে। এটি এখন চাঁপাই বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ডের প্রথম ডিভিশনের আওতায় রয়েছে।

দিনাজপুরে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ’৭১ কমিটি গঠন

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ সদর উপজেলা সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ’৭১-এর ২১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টায় শহরের কালিতলাস্থ নাগরিক উদ্যোগ কার্যালয়ে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ’৭১ সদর উপজেলা কমিটি গঠন উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে ও খালেকুজ্জামান রাজুর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সৈয়দ মোসাদ্দেক হোসেন লাবু, সৈয়দ মোকাদ্দেস হাসেন বাবলু, দপ্তর অধ্যাপক আব্দুস সবুর, মনোয়ারা সানু, লোকমান হাকিম প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে ২১ সদস্যবিশিষ্ট কার্যকরি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির কর্মকর্তারা হলেন সভাপতি মাহবুব উদ্দীন আহম্মেদ, সহ-সভাপতি মোঃ তসলিম উদ্দিন, সম্পাদক এ্যাডভোকেট এস এম শামীম আলম সরকার বাবু, সহ-সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ মাহমুদুল হক কোরাইশী দুলাল, নাজমুন সাদাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির উদ্দিন রেমো, কোষাধ্যক্ষ আবুল কালাম বাবুল, প্রচার সম্পাদক এনামুল হক বেলাল, দপ্তর সম্পাদক সুলতান সেফাউদ্দিন সাফু, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবুহেনা মোস্তফা কামাল, গবেষণা ও প্রকাশনা সম্পাদক আশীষ কুমার ব্যানার্জী বাপ্পি, সংস্কৃতি সম্পাদক গোপাল বিশ্বাস, কল্যাণ সম্পাদক মোঃ হারুন-অর-রশিদ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক হাসিনা আখতার শিউলি, যুব বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মঞ্জুরুল হোসেন ডাবলু, নির্বাহী সদস্য হিরন্ময় দত্ত ভুলু, জেমস এম দাস লুইস, আবদুর রহমান ও মিঃ জোসেফ গমেজ।