২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শিশুসহ দগ্ধ ৯

  • রাজশাহীতে বাসে আগুন দিয়ে পালানোর সময় দুই শিবিরকর্মীকে গণধোলাই

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ যাত্রীবেশে বাসে উঠে আগুন দিয়ে পালানোর সময় দুই শিবিরকর্মীকে গণধোলাই দিয়ে হাত-পা ভেঙ্গে দিয়েছে জনতা। পরে তাদের পুলিশে সোপর্দ করা হয়। একই সময় তানোরে অন্য একটি যাত্রীবাহী বাসে পেট্রোল বোমা হামলা চালিয়ে বাসটি পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এতে বাসের যাত্রী শিশু ও নারীসহ অন্তত নয়জন দগ্ধ হয়েছে। তাদের রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার তেঘর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বাস থেকে নামতে গিয়ে এক যাত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন। গণধোলাইয়ের শিকার দুই শিবিরকর্মী হলো মশিউর রহমান ও আব্দুল আওয়াল। এদের বাড়ি পবা মহানন্দাখালী গ্রামে। এরা দুইজনই শিবিরের দুর্ধর্ষ ক্যাডার বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় তানোর থেকে ‘ইমন পরিবহন’ নামে একটি বাস রাজশাহীর উদ্দেশে ছেড়ে আসে। ওই বাসে তানোর এলাকায় যাত্রীবেশে তিন যুবক ওঠে। বাসটি পবার তেঘর এলাকায় আসলে ওই তিন যাত্রী গাড়ির ওপর গান পাউডার ছিটিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। স্থানীয় লোকজন দ্রুত ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। পরে বাসের যাত্রী ও এলাকাবাসী ধাওয়া দিয়ে অগ্নিসংযোগকারী দুই শিবিরকর্মীকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে হাত-পা ভেঙ্গে দেয়। তবে অপরজন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় জনতার হাত থেকে তাদের রক্ষা করে। ঘটনাস্থল থেকে পবা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মতিয়ার রহমান জানান, দুইজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলা হবে। তিনি জানান, বিক্ষুব্ধ মানুষের পিটুনিতে তাদের হাত-পা ভেঙ্গে গেছে। তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এদিকে তানোর উপজেলা সদরের ব্র্যাক অফিসের সামনে পেট্রোল বোমা হামলা চালিয়েছে শিবির ক্যাডাররা। এতে নারী ও শিশুসহ নয়জন দগ্ধ হয়েছে। এদের অবস্থা গুরুতর। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার ইয়ারব্বি নামের বাসটি সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়েছে। এ ঘটনায় দগ্ধরা হলেন মকবুল হোসেন (৪৫), তার স্ত্রী আনোয়ারা (৪০), নাজমা (৩৫), ফারজানা (৫), জুলেখা (৩০), আশরাফ (৩৭), আছিয়া (৭), আয়েনউদ্দিন (৩৫)। অপর একজনের নাম পাওয়া যায়নি। তাকে তাৎক্ষণিক রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তানোর থানার ওসি আনোয়ার হোসেন, জানান ওত পেতে থাকা দুর্বৃত্তরা চলন্তবাসে পেট্রোলবোমা ছুড়লে বাসে আগুন ধরে যায়। পরে দমকলবাহিনীর সদস্যরা আসার আগেই বাসটি ভস্মীভূত হয়। এ ঘটনায় দগ্ধদের রাতেই তানোরে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।