২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নারীবিহীন শহর!

নারীবিহীন শহর!

নারীরা প্রবেশ করতে পারবে না। এমনকি স্ত্রী লিঙ্গের কোন প্রাণীও প্রবেশ করতে পারবে না। নারীবিহীন এই জায়গাটি প্রাচীন গণতন্ত্রের সূতিকাগার গ্রীসে অবস্থিত। মাউন্ট এথোস বা হলি মাউন্টেন আগে স্বায়ত্তশাসিত মনাস্টিক স্টেট হিসেবে পরিচিত ছিল। এটি গ্রীসের হালকিদিকি দ্বীপে অবস্থিত। এখানে সন্ন্যাসীরা খিস্টপূর্ব ৮০০ অব্দ থেকে বাস করছে। আজকের আধুনিক যুগেও গোড়া সন্ন্যাসীরা সেখানে বাস করছেন। দুই হাজারের বেশি সন্ন্যাসী বুলগেরিয়া, সার্বিয়া ও রাশিয়া থেকে এখানে এসে বাস করছে। সারাবিশ্ব থেকেই এই দ্বীপটির সন্ন্যাসীদের জীবনধারা সম্পূর্ণ ভিন্ন ও আলাদা। পৃথিবীর অন্যসব মানুষের সঙ্গেও এদের তেমন একটা যোগাযোগ নেই। এই অঞ্চলটি স্বায়ত্তশাসিত। এই অঞ্চলে বহিরাগতরা অতি সহজে প্রবেশ করতে পারে না। শুধু ধার্মিক ব্যক্তিদের জন্য প্রবেশের অনুমতি আছে। আর নারীদের জন্য প্রবেশ সর্ম্পূণরূপে নিষিদ্ধ। শত শত বছর ধরেই এই নিষেধাজ্ঞা জারি আছে। আজকের নারীর ক্ষমতায়নের যুগেও নারীদের এখানে অস্ছুৎ হিসেবেই বিবেচনা করা হয়। মানবীর সঙ্গে সঙ্গে সকল প্রকার জীবজন্তুর স্ত্রী প্রজাতির প্রবেশও এই এলাকাটিতে প্রবেশ নিষিদ্ধ। শুধু পাখি ও কীটপতঙ্গের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য নয়। এর কারণ, এদের প্রবেশ ঠেকানো কর্তৃপক্ষের পক্ষে সম্ভব নয়।

সূত্র: ওয়েবসাইট