১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জামালপুরে সড়ক বেহাল, বিল নিয়ে ঠিকাদারের গা-ঢাকা

নিজস্ব সংবাদদাতা, জামালপুর, ২৮ জানুয়ারি ॥ জামালপুরে একটি সড়ক উন্নয়ন কাজের বেহালদশায় চরম ভোগান্তিতে এলাকাবাসী। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ না করে সমুদয় বিল উত্তালন করে পালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে স্থানীয়রা উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

জানা গেছে, জেলার মেলান্দহের কাপাসহাটিয়া ইউজেডআর-ঘোষেরপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিক সড়ক উন্নয়ন এবং ড্রেন নির্মাণের জন্য সরকারের অগ্রাধিকারভিত্তিক গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের (প্যাকেজ নম্বর আইআরআইডিপি-জামাল/ ডিডব্লিউ-১৩২) আওতায় গৃহীত প্রকল্পের জন্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর দরপত্র আহ্বান করে। পরে মেসার্স পপি এন্টারপ্রাইজ নামের এক ঠিকাদারি সংস্থা প্রকল্প বাস্তবায়নের দায়িত্ব পায়। উক্ত ঠিকাদারি সংস্থাটি প্রকল্পের কাজের জন্য মেলান্দহের বাদশা ব্রিকস্সহ আরো দুটি ঠিকাদারি সংস্থাকে যুক্ত করে। নানা টালবাহানা ও গড়িমসির পর প্রকল্পের কাজ শুরু হয় অতি ঢিলেঢালাভাবে কয়েক মাস পর।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, প্রকল্পটির ডিজাইন প্রাক্কলন অনুযায়ী ৩শ’ মিটার সড়কপথ এবং একটি ইউড্রেন নির্মাণ অন্তর্ভুক্ত ছিল। প্রকল্পের জন্যে প্রাক্কলিত ব্যয় বরাদ্দ ধরা হয় ৪৪ লাখ ৮৭ হাজার ৭ শত ৫৭ টাকা। এবং উন্নয়ন ও সংস্কার কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৪ সালের ১৫ মে।

সরেজমিনে প্রকল্প পরিদর্শনে গেলে মেলান্দহের ঝাউগড়া ইউপি চেয়ারম্যান হিল্লোল সরকার বলেন, রাস্তায় যতটুকু কাজ হয়েছে সেখানে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান অত্যন্ত নিম্নমানের উপকরণ এবং নির্মাণসামগ্রী ব্যবহার করেছেন। এতে কাজ শুরুর এক মাসের মধ্যেই মসজিদ-সংলগ্ন গাইড দেয়াল ভেঙ্গে পড়ে। প্রকল্পের ডিজাইন অনুযায়ী ১২ লাখ টাকার মাটি ভরাটের কথা ছিল কিন্তু তা করা হয়নি বলে জানান তিনি। সংশ্লিষ্ট সরকারী দফতরের একশ্রেণীর প্রকৌশলী-কর্মকর্তাদের ঘনিষ্ঠ যোগসাজশেই প্রকল্পের এই বেহাল দশা বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। আর গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কপথের সংস্কার ও উন্নয়ন কাজের বেহাল দশার কারণে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন লাখ লাখ মানুষ।

ঠিকাদারি সংস্থা বিল উত্তোলন করে পালানো ও রাস্তার বেহাল দশার বিষয় নিয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ প্রসঙ্গে জামালপুর স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদফতর (এলজিইডি’র) নির্বাহী প্রকৌশলী আনিছুল ওয়াহাব খান জানান, এলাকাবাসীর অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

টঙ্গীবাড়িতে জাটকা জব্দ

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ টঙ্গীবাড়ি উপজেলার হাসাইল ও দীঘিরপাড় মাছঘাট হতে অবশেষে জাটকা জব্দ করা হয়েছে। বুধ ও মঙ্গলবার ভোরে অভিযান চালিয়ে ১৭ মণ জাটকা জব্দ করা হয়। টঙ্গীবাড়ির ইউএনও তাজিনা সারোয়ার ও উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আক্তার হোসেন এই অভিযান পরিচালনা করেন। জব্দকৃত জাটকা এতিমখানা ও মাদ্রাসায় বিতরণ করা হয়। এর আগে লৌহজংয়ের কনকসার ও ঘোড়দৌড় বাজার থেকে দু’মণ জাটকা আটক করেন লৌহজংয়ের ইউএনও মোঃ খালেকুজ্জামান। এর আগে এখানকার হাটবাজারগুলোতে অবাধে জাটকা ইলিশ বিক্রি হচ্ছিল। এ নিয়ে জনকণ্ঠে ‘মুন্সীগঞ্জে জাটকা বিক্রির মহোৎসব’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশের পর এ অভিযান শুরু হয়।

নির্বাচিত সংবাদ