২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে আজ থেকে ২৪ ঘণ্টা, নয় জেলায় সকাল সন্ধ্যা হরতাল বিএনপি জোটের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানী ঢাকায় আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত টানা ২৪ ঘণ্টা হরতাল পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। বুধবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও জোটের নেতাকর্মীদের হত্যা, গ্রেফতার ও নির্যাতনের প্রতিবাদে লাগাতার অবরোধের মধ্যেই এ হরতাল পালনের ঘোষণা দেন।

এর আগে বিকেলে ফজলুল হক মিলন স্বাক্ষরিত আরেকটি পৃথক বিবৃতিতে ঢাকা বিভাগের নয় জেলায় বিএনপি জোটের পক্ষ থেকে আজ বৃহস্পতিবার সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালনের ঘোষণা দেয়া হয়। তবে এতে রাজধানীকে হরতালের আওতামুক্ত রাখা হয়। ঢাকা বিভাগের যে নয় জেলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করা হচ্ছে সেগুলোর মধ্যে রয়েছেÑ গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, নরসিংদী, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল ও কিশোরগঞ্জ।

এদিকে টানা অবরোধের মধ্যে হরতাল দেয়ার বিষয়টি নিয়ে নানামুখী জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়েছে। কেউ বলছে, আজ বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার হাজিরা রয়েছে। তাই মামলায় যাতে হাজিরা দিতে না হয় সেজন্যই খালেদা জিয়া হরতাল ডেকেছেন। আবার কেউ বলছেন, শুক্রবার রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সমাবেশ আছে তাই এ সমাবেশে যোগ দিতে যাতে আগেভাগে আশপাশের জেলা থেকে বেশি লোকজন না আসতে পারে সেজন্যই হরতাল ডাকা হয়েছে।

খালেদাকে ব্যবসায়ীদের স্মারকলিপি ॥ অবরোধ-হরতালসহ অর্থনীতির জন্য ক্ষতিকর আন্দোলন কর্মসূচী না দিতে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে স্মারকলিপি দিয়েছেন ব্যবসায়ীদের ৪৪টি সংগঠন। বুধবার দুপুরে তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি আতিকুল ইসলামের নেতৃত্বে নয় সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ে গিয়ে এ স্মারকলিপি দেন। খালেদা জিয়ার পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন তাঁর বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস।

বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয় থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে আতিকুল ইসলাম বলেন, ২৩ দিনের টানা অবরোধ ও দফায় দফায় হরতালে দেশের পোশাকশিল্প মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। এ ক্ষতি যতটা না অর্থনৈতিক তার চেয়ে বেশি ইমেজের। আমরা বড় দুই রাজনৈতিক দলকেই বলেছি দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি হচ্ছে পোশাকশিল্প। এ শিল্পে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রায় চার কোটি লোক কাজ করে। তাই রাজনৈতিক দলগুলো যেন এমন কোন কর্মসূচী না দেয়, যাতে অর্থনীতির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খাত পোশাকশিল্প মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হয়।

রাজনৈতিক দলগুলোকে কী ধরনের কর্মসূচীর দেয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে আতিকুল ইসলাম বলেন, কর্মসূচীর ধরন রাজনীতিবিদরাই ঠিক করবেন। তারাই ভাল জানেন কোন ধরনের কর্মসূচী দিলে অর্থনীতির ক্ষতি হবে না। আর সংলাপের দাবি আমরা আগেও জানিয়েছি, স্মারকলিপিতেও উল্লেখ করেছি।

শুক্রবার কোকোর কুলখানি ॥ শুক্রবার বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর কুলখানি ও দোয়া মাহফিল। বাদ জুমা গুলশানের আজাদ মসজিদে কুলখানি অনুষ্ঠিত হবে বলে বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। উল্লেখ্য, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ২৪ জানুয়ারি মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যু হয়। ২৫ জানুয়ারি মালয়েশিয়ার জাতীয় মসজিদে তার প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। মঙ্গলবার দুপুরে তার মরদেহ দেশে আনা হয় এবং বাদ আছর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়। এদিকে খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর নামাজে জানাজায় বিপুলসংখ্যক লোক অংশ নেয়ায় সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে বিএনপি। দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এক বিবৃতিতে এ কৃতজ্ঞতা জানান। এছাড়া দেশব্যাপী গায়েবানা জানাজা ও তিনদিনের শোক কর্মসূচী পালন করায় তিনি দলের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানান।

আন্দোলনে নিহতদের জন্য দোয়া মাহফিল করবে বিএনপি জোট ॥ চলমান সরকারবিরোধী আন্দোলনে নিহত নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের আত্মার মাগফিরাত কামনায় শুক্রবার জুমার নামাজের পর দেশব্যাপী মসজিদে মসজিদে দোয়া মাহফিল কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট। বুধবার সন্ধ্যায় ২০ দলীয় জোটের পক্ষে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এক বিবৃতিতে এ কর্মসূচী ঘোষণা করেন।

কারাগারগুলো সংস্কার করে রাখলে ভাল হয়Ñ রিজভী ॥ ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এখনই দেশের কারাগারগুলো সংস্কার করে রাখলে ভাল হয় বলে বর্তমান সরকারকে উদ্দেশ করে মন্তব্য করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। বুধবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, বিরোধী দলের আন্দোলন দমাতে এ সরকার সর্বনাশা নির্মূলযুদ্ধে নেমে পড়েছে। দেশব্যাপী ক্রসফায়ার আর বন্দুকযুদ্ধের মনগড়া কাহিনী তৈরি করে আন্দোলনরত তরুণ নেতাকর্মীদের মায়ের কোল থেকে ছিনিয়ে নিয়ে হত্যা করা হচ্ছে।

রিজভী বলেন, গুম, গুপ্তহত্যা এবং গ্যাস চেম্বারের অব্যবহিত পরেই আসে কুখ্যাত নাৎসী সহযোগীদের বিচারে নুরেমবার্গ ট্রায়াল। নুরেমবার্গ ট্রায়ালের ন্যায় বাংলাদেশের মাটিতেও যে দেশের নাৎসী সহযোগীদের বিচার হবে না এটা যেন কেউ মনে না করে। সুতরাং এখন থেকেই কারাগারগুলো সংস্কার করে রাখলে ভাল হয়।