২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মাঠে নামছেন বিএনপির সমন্বয় কমিটির নেতারা

  • ঢাকা সিটি নির্বাচন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ এবার ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে সরাসরি মাঠে নামছেন বিএনপির সমন্বয় কমিটির নেতারা। আজ-কালের মধ্যেই দলের অন্য সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে নিয়ে দলীয়ভাবে প্রচার চালাবেন তাঁরা। উল্লেখ্য, আদর্শ ঢাকা আন্দোলনের নামে প্রচারে অংশ নিতে দলের অনেক নেতাকর্মীর আপত্তি থাকায় দলীয় সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদকে প্রধান করে গঠন করা হয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি সমন্বয় কমিটি। আর দলের আরেক স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব) আ স ম হান্নান শাহকে প্রধান করে গঠন করা হয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি সমন্বয় কমিটি। বিএনপির নির্বাচন সমন্বয় কমিটিতে বর্তমানে ঢাকায় অবস্থানরত বিএনপির অধিকাংশ কেন্দ্রীয় নেতাকেই স্থান দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। আর ইতোপূর্বেই চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমানকে প্রধান করে চট্টগ্রামের দলীয় নেতাদের নিয়ে সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে ঢাকায় পরে কমিটি হওয়ায় এখনও সমন্বয় কমিটি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচার শুরু করতে পারেনি। তবে আজ-কালের মধ্যেই জোরেশোরে মাঠের প্রচারে অংশ নেবেন তাঁরা।

দলের প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারে অংশ নিলেন এরশাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বর্ষবরণের অনুষ্ঠানে সিটি নির্বাচনে নিজ দলসমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে প্রচার চালিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ। মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর একটি কমিউনিটি সেন্টারের অনুষ্ঠানে ঢাকা উত্তরের মেয়র প্রার্থী বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল ও দক্ষিণের প্রার্থী সাইফুদ্দিন মিলনের জন্য ভোট চান তিনি। জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার আয়োজনে ওই অনুষ্ঠানে এরশাদ বলেন, এটা আমাদের প্রথম সিটি নির্বাচন। জাতীয় পার্টি আবার ক্ষমতায় এলে উন্নয়নের জয়ধ্বনি উঠবে। এটা কোন ব্যক্তির নির্বাচন নয়, পার্টির নির্বাচন।

দলের কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমাদের দলীয় প্রার্থী কারা? চেনেন? উত্তরে বাবুল, দক্ষিণে মিলন। আপনারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হোন, দলীয় প্রার্থীদের জয়ী করে আনবেন। সময় এসেছে জাতীয় পার্টির ক্ষমতায় আসার। মানুষ এখন জাপাকে চায়। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন দিয়ে যার যাত্রা শুরু হবে। এর ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হলে আমাদের ঐক্যবদ্ধ পথচলা ধরে রাখতে হবে। আমাদের প্রত্যাশা তিনি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ভাল করবে। মানুষ তাদের আশা আকাক্সক্ষার প্রতিফল ঘটাবে গোপন ব্যালট বিপ্লবের মধ্য দিয়ে। দলের ঢাকা উত্তরের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র প্রার্থী বাহাউদ্দিন বাবুল বলেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখেই এবারের বৈশাখী আয়োজন করা হয়েছে। দশম জাতীয় সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত, যা মন্ত্রীর সমমর্যাদার। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন আচরণ বিধিমালা অনুযায়ী কোন নির্বাচনী প্রচারণার অংশ হিসেবে প্রার্থীর কমিউনিটি সেন্টার ভাড়া করা, মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী বা সমমর্যাদার ব্যক্তিদের প্রচারে অংশগ্রহণ করা যাবে না। এ বিষয়ে জাতীয় পার্টিও নির্বাচনী প্রচার সেলের প্রধান এবং দলের চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক ও প্রেস সচিব সুনীল শুভ রায় বলেন, আমরা কোন আচরণবিধি লঙ্ঘন করিনি। প্রতিবছরই জাতীয় পার্টি পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে, এবারও করেছে।