১৭ জানুয়ারী ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

২০ ফুট লম্বা পাখির বাসা!

২০ ফুট লম্বা পাখির বাসা!

গাছের ওপর যদি দেখেন ২০ ফুট লম্বা, ১৩ ফুট চওড়া একটি বাসা। তাহলে আপনি নিশ্চয়ই অবাক হবেন! হয়ত উট পাখির মতো বড় কোন পাখি থাকে এ বিশাল বাসায়। বিশেষ এ বাসায় যে পাখি থাকে তার আকার ছোট বাবুই পাখির মতো। তবে পাখির এই বাসাটির ওজন ২ হাজার পাউন্ডেরও বেশি। আর এ ধরনের বাসা প্রায় ১০০ বছর পর্যন্ত স্থায়ী হয়। বাসার উত্তরাধিকার বংশ পরম্পরায় পেয়ে থাকে অন্য পাখিরা। মোটা ঘাস, পাখির পালক, বাতাসে ভেসে আসা তুলো, খড়কুটো আর গাছের ডাল দিয়ে নিজেদের বাসা তৈরি করে সোস্যায়েবল ওয়েভার নামের এ পাখি।

আজব এই পাখির বাস দক্ষিণ আফ্রিকার বিভিন্ন অঞ্চলে। এই অঞ্চলে দিনের তাপমাত্রা যেমন প্রচণ্ড বেশি, রাতে তার উল্টো। তাদের এ বাসাই অতিরিক্ত গরম এবং ঠাণ্ডা থেকে সোস্যায়েবল ওয়েভারকে রক্ষা করে। আর বাইরের ঘরগুলো তুলনামূলকভাবে একটু ঠাণ্ডা। দিনের গরম থেকে রক্ষা পেতে সেই ঘরগুলোতে আশ্রয় নেয়। আর বাসার মাঝখানে থাকা ঘরগুলো বেশি উষ্ণ। যা রাতের হিমশীতল আবহাওয়া থেকে তাদের রক্ষা করে।

তবে মাঝে মাঝে নতুন খড়কুটো দিয়ে একটু মেরামত করে নেয় সোস্যায়েবল ওয়েভার পাখি । সমস্যা হলো বাসাটি অক্ষুণœ থাকলেও অনেক সময় মারা যায় আশ্রয়দাতা গাছটি। এমনকি বাসার ওজনে ভেঙ্গেও পড়ে অনেক সময়।

একটি বাসায় এক শ’র ওপরে ছোট ছোট ঘর থাকে। একটি আস্তানায় তিন শ’ থেকে চার শ’ পাখির বাস। এর ভেতরে ছোট ছোট কুঠুরিতে আলাদা আলাদা পরিবার বসবাস করে। সূত্র: বার্ডস সায়েন্স