২০ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এখনই ভাবতে নারাজ মাশরাফি

এখনই ভাবতে নারাজ মাশরাফি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ওয়ানডে ও টি২০ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা শতভাগ সফল। সফরকারী পাকিস্তানকে ওয়ানডে সিরিজে তাঁর নেতৃত্বে ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করেছে বাংলাদেশ দল। আবার একমাত্র টি২০ ম্যাচেও করেছে নাস্তানাবুদ। খুলনায় হওয়া প্রথম টেস্টেও দুর্দান্ত নৈপুণ্য দেখিয়ে ড্র করেছে। সিরিজের শেষ ম্যাচ দ্বিতীয় টেস্ট চলছে। মাশরাফি চাইছেন এ টেস্টেও ধারাবাহিকতা ধরে রেখে দারুণ কিছু করবে টাইগাররা। সেজন্য আগামী মাসে ভারতের বিরুদ্ধে আসন্ন সিরিজ নিয়ে এখনই ভাবতে নারাজ তিনি। মাশরাফি মনে করেন ভালভাবে টেস্ট সিরিজ শেষ করতে পারলে ভারতের বিরুদ্ধে পরবর্তী হোমসিরিজে ভাল করার আত্মবিশ্বাস অর্জিত হবে। বৃহস্পতিবার মদিনা গ্রুপের নতুন পণ্য ‘টাইগার সিমেন্ট’ এর ব্র্যান্ড এ্যাম্বাসেডর হিসেবে মাশরাফিকে পরিচিত করে দেয়া হয়। সেই অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। উল্লেখ্য, মাশরাফির সঙ্গে এক বছরের জন্য চুক্তি করেছে মদিনা গ্রুপ।

এখনও পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজ শেষ হয়নি। তবে ইতোমধ্যেই আগামী জুনে ভারতের বিরুদ্ধে তিন ওয়ানডে ও এক টেস্টের সিরিজ সময়সূচী চূড়ান্ত করা হয়েছে। এবার বাংলাদেশের পরবর্তী চ্যালেঞ্জ ভারতীয় ক্রিকেট দল। কিন্তু পাকদের বিরুদ্ধে সিরিজ শেষ হওয়ার আগে সেসব নিয়ে ভাবতে চান না মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘আমাদের অবশ্যই ভারতের বিরুদ্ধে পরবর্তী হোমসিরিজ নিয়ে এখন বেশি ভাবা উচিত হবে না। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজ এখনও চলছে। অধিকাংশ খেলোয়াড় এখন সেটা নিয়েই ব্যস্ত। সুতরাং আমাদের প্রচেষ্টা চালাতে হবে ভাল পারফর্ম করার। আমরা যদি এখানেও ভাল নৈপুণ্য দেখাতে পারি সেক্ষেত্রে এই আত্মবিশ্বাসটা ভারতের বিরুদ্ধে খুব কার্যকরী হবে। কারণ যেহেতু ভারতের বিরুদ্ধে একমাত্র টেস্ট দিয়েই আমাদের সিরিজটা শুরু হবে।’

পাকিস্তান সিরিজের শেষদিকে এসে ইনজুরি সমস্যা আঘাত হেনেছে। বিশেষ করে বাংলাদেশের পেসাররাই ইনজুরিতে পড়ছেন প্রতি সিরিজে। প্রথম টেস্টে ইনজুরিতে পড়েছেন পেসার রুবেল হোসেন। সে কারণে তিনি দ্বিতীয় টেস্টে খেলছেন না। দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনেই ইনজুরিতে পড়ে ছিটকে গেছেন আরেক পেসার শাহাদাত হোসেন রাজিব। তবে এসব ইনজুরি নিয়ে মোটেও চিন্তিত না মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু ক্ষেত্রে ইনজুরির ওপর কারও কোন হাত থাকে না। শাহাদাত ইনজুরিতে পড়ায় সাকিব, শহীদ ও তাইজুলের ওপর বেশি চাপ পড়ে গেছে। রুবেলের ইনজুরি তেমন মারাত্মক না। তিনি দ্রুতই ফিরবেন। শাহাদাতের কিছুটা সময় লাগবে। আসলে আমাদের খুব বেশি চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই। কারণ আমাদের অনেক বিকল্প আছে বোলিংয়ে। যদি দুয়েকজন বোলার না থাকেন খুব বেশি সমস্যা হবে না দলের জন্য।