১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজনীতির সঙ্গে বাণিজ্যকে মেশানো যাবে না ॥ বাণিজ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আইটি খাতের সমস্যা ও প্রত্যাশা বিষয়ক এক কর্মশালায় বক্তারা বলেন, তথ্য প্রযুক্তি খাতকে এগিয়ে নিতে সরকার সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ খাতের সম্ভাবনাও অপার। সম্ভাবনাকে বাস্তবে রূপ দিতে আধুনিক গবেষণা ও তার প্রয়োগ দরকার। প্রযুক্তি খাতে প্রতিনিয়তই তথ্যের পরিবর্তন হয়। খুব সহজে সর্বশেষ তথ্য সংগ্রহ এবং ছড়িয়ে দেওয়া সম্ভব। আইটি খাতে ২০১৫ সালে এসে ২০১২ সালের তথ্য অকার্যকর। পুরোনো তথ্য দিয়ে গবেষণা হয় না। সরকারী কর্মকর্তাদের আধুনিক ও নতুন তথ্যের সঙ্গে সখ্যতা বৃদ্ধি করতে হবে। ট্যারিফ কমিশনকেও বিষয়টি মাথায় রেখে গবেষণা করতে হবে। ফ্রিল্যান্সিয়ের ক্ষেত্রে টাকা উঠানোর অন্যতম মাধ্যম প্যাপল সার্ভিস চালু করা উচিত।

রবিবার বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশন আয়োজিত কমিশনের নিজস্ব ভবনের সভাকক্ষে আইটি খাতের সমস্যা ও প্রত্যাশা বিষয়ক কর্মশালায় তথ্য প্রযুক্তি খাতের সাথে সংশ্লিষ্ট গবেষক ও একাধিক প্রতিষ্ঠানে শীর্ষ কর্মকর্তারা এসব কথা বলেন।

কর্মশালার উদ্বোধনকালে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ৯১ এ ক্ষমতায় এসে বিএনপি ট্যারিফ কমিশনের অবকাঠামো ধ্বংস করে। ফলে বিদেশীরা আমাদের বাজারে প্রবেশ করে। কিন্তু বর্তমানে আমরা বহু ক্ষেত্রেই আত্মনির্ভরশীল হয়ে উঠেছি। দেশে আমদানি নির্ভরতা কমেছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন, সেই স্বপ্ন এখন বাস্তবে রূপ নিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, রাজনীতি রাজনীতিই। রাজনীতির সঙ্গে বাণিজ্যকে মেশানো যাবে না। দেশে কোন রাজনৈতিক দল এমন কোন কর্মসূচী দেবে না, যা দেশের ক্ষতি করে। আমার মনে হয় মানুষ পুড়িয়ে এবং দীর্ঘ তিন মাসের রাজনীতিতে তারাও এটা বুঝতে পেরেছে। মানুষের জানমালের ক্ষতি করে রাজনীতির ফল ভাল হয় না। তিনি আরও বলেন, ২০১৯ সাল পর্যন্ত সবাইকে অপক্ষো করতে হবে। এর আগে সংলাপ বা নির্বাচন নিয়ে কোন কথা নয়।