২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপ থেকে জঙ্গী বিমান কিনছে ভিয়েতনাম

বিরোধপূর্ণ জলসীমায় চীনের ক্রমবর্ধমান দাবি প্রতিষ্ঠার মুখে নিজের আকাশ প্রতিরক্ষায় ভিয়েতনাম জঙ্গী বিমান, সাগরে টহল বিমান এবং অস্ত্রবিহীন ড্রোন ক্রয়ের জন্য ইউরোপীয় ও মার্কিন ঠিকাদারদের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে। যুদ্ধে পোড় খাওয়া দেশটি ইতোমধ্যে ২০০৯-এ সম্পাদিত ২৬০ কোটি ডলারের একটি চুক্তির অংশ হিসেবে তিনটি রুশ নির্মিত কিলোএ্যাটোক সাবমেরিন পেয়েছে এবং আরও তিনটির অর্ডার দিয়েছে। বিমানবাহিনীকে আরও দক্ষ ও কার্যকর করার মধ্য দিয়ে ভিয়েতনাম দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর একটিতে পরিণত হবে। আলোচনার ব্যাপারে প্রত্যক্ষভাবে ওয়াকিফহাল শিল্পসূত্র জানায়, বিমান সংগ্রহ সংক্রান্ত পূর্ববর্তী অপ্রকাশিত আলোচনায় সুইডিশ প্রতিরক্ষা ঠিকাদার সাআব, ইউরোপীয় কনসোটিয়াম ইউরোফাইটার, এয়ারবস গ্রুপের প্রতিরক্ষা শাখা এবং মার্কিন দুটি প্রতিষ্ঠান লকহিড মার্টিন কর্পোরেশন এবং বোয়িং জড়িত ছিল। সম্প্রতি মাসগুলোতে প্রতিরক্ষা ঠিকাদাররা বহুবার ভিয়েতনাম সফর করেছে, যদি কোন চুক্তি আসন্ন নয়। বিষয়টির স্পর্শকাতরতার কারণে পরিচয় প্রদানে অসম্মত সূত্র একথা জানায়। কোন কোন সূত্রে আলোচনা চলমান বলে উল্লেখ করা হয়। একজন ঠিকাদার বলেন, হ্যানয় একশ’র বেশি সেকেলে রুশ মিগ-২১ জঙ্গী বিমান প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে তার বিমানবাহিনীকে আধুনিক করে তোলার সঙ্গে সঙ্গে তার প্রায় ৪ লাখ ৮০ হাজারের শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর অস্ত্রশস্ত্রের জন্য মস্কোর ওপর নির্ভরশীলতা হ্রাস করছে। ইয়াহু নিউজের।