২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কুষ্টিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে জাসদ নেতা হত্যা মামলার আসামি সাগর নিহত

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুষ্টিয়া, ১৯ জুন ॥ কুষ্টিয়ায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দকযুদ্ধে’ জাসদ নেতা পাঞ্জের হত্যা মামলার অন্যতম আসামি নাজমুল ইসলাম সাগর (২৯) নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে মিরপুর উপজেলার কাতলামারী সড়কে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ডাকাতদল ও পুলিশের মধ্যে এ ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়। পরে সেখান থেকে আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি ও রামদা উদ্ধার করা হয়।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে কুষ্টিয়া-মেহেরপুর সড়কে মিরপুর উপজেলার কাতলামারী এলাকায় গাছ কেটে একদল ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছেÑ এমন খবর পেয়ে মিরপুর থানার টহল পুলিশের একটি দল সেখানে হানা দেয়। এ সময় ডাকাত সদস্যরা টের পেয়ে তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে এবং কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে শুরু হয় ডাকাতদলের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধ’। এক পর্যায়ে ডাকাতরা পলিয়ে গেলে পুলিশ ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে গুলিবিদ্ধ নাজমুল ইসলাম সাগরকে উদ্ধার করে মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি শার্টারগান, তিন রাউন্ড গুলি ও দুটি রামদা উদ্ধার করে।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জালালউদ্দিন আহমেদ জানান, নিহত নাজমুল ইসলাম সাগর দৌলতপুর উপজেলার খলিশাকু-ি কামারপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। সে চাঞ্চল্যকর জাসদ নেতা পাঞ্জের হত্যা মামলার অন্যতম আসামি। ওই মামলায় জামিনে মুক্তি পেয়ে সে ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকা- চালিয়ে আসছিল। তার বিরুদ্ধে মিরপুর ও দৌলতপুর থানায় অন্তত চারটি মামলা রয়েছে।

যশোরে পাঁচ ভুয়া ডিবি পুলিশ গুলিবিদ্ধ ॥ স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস থেকে জানান, বাঘারপাড়ায় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়দানকারী একদল ডাকাতের সঙ্গে পুলিশের বন্দুকযুদ্ধ হয়েছে। বন্দুকযুদ্ধে পাঁচ ডাকাত গুলিবিদ্ধ ও চার পুলিশ সদস্য আহত হয়। শুক্রবার ভোরে যশোর-মাগুরা মহাসড়কের ভদ্রডাঙ্গা এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে গুলিবিদ্ধ ডাকাত দলের কাছ থেকে অস্ত্র, গুলি, ডিবি পুলিশের পোশাক, হ্যান্ডকাফ ও ওয়াকিটকি উদ্ধার করা হয়েছে। আহতদের যশোর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।