১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মুম্বাইয়ে বিষাক্ত মদপানে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৭

অনলাইন ডেস্ক ॥ ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর মুম্বাইয়ের উপকণ্ঠে একটি গ্রামে মদপানের পর বিষক্রিয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮৭ জনে দাঁড়িয়েছে।

মুম্বাই পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা আইএএনএস এ খবর দিয়েছে।

পুলিশের মুখপাত্র ধনঞ্জয় কুলকার্নি বলেন, “মৃতের সংখ্যা এখন ৮৭। অসুস্থ হয়ে আরো ৩৪ জন আটটি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।”

এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত ২০ জনকে আটক করেছে। তারা ২৬ জুন পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতে থাকবে।

বুধবার রাতে মালাদ ওয়েস্ট এলাকার রাথোড়ি গ্রামের একটি বারে সস্তা দেশি মদ পান করেন একদল নিম্ন আয়ের মানুষ। তাদের মধ্যে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত বিষক্রিয়ায় অসুস্থ হয়ে ২০ জনের মৃত্যু হয়। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আরো ৩৩ জনের মৃত্যু হয়।

এছাড়া দিনভর অনেকেই বিষক্রিয়ার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

মুম্বাই পুলিশের ডেপুটি কমিশনার কুলকার্নি বলেন, এ ঘটনায় মালবানি থানার জ্যেষ্ঠ পুলিশ পরিদর্শক প্রকাশ এস পাতিল ও চার কর্মকর্তাসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৮ সদস্যকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এছাড়া পাশের জেলা থানে থেকে বিষাক্ত মদ পরিবহনের অভিযোগে চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মুম্বাইয়ের আদালত তাদের পুলিশ হেফাজতে দিয়েছে।

পুলিশের এক মুখপাত্র বলেন, এঘটনায় তদন্ত করে দুদিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন মহারাষ্ট্র রাজ্যের পুলিশ প্রধান দেবেন্দ্র ফাড়নাবিস।

পুলিশ জানায়, মদ পানের পর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ওই ব্যক্তিদের বমি, পেট ব্যথা, চোখ জ্বলা ও হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে পড়াসহ বিষক্রিয়ার নানা উপসর্গ দেখা দেয়।

ভীত-সন্ত্রস্ত পরিবারের সদস্যরা তাদের স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়ার পথেই বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়। এদের অনেকেই কর্ণাটক রাজ্যের গুলবার্গ এলাকা থেকে আসা।

মদপানে মৃত একজনের স্ত্রী তায়রা খান বিবিসিকে বলেন, পেটে ব্যথা ও বমি বমি ভাব শুরু হওয়ায় তার স্বামীকে বৃহস্পতিবার সকালে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আর এর তিন ঘণ্টা পর তিরি মারা যান। তাদের সংসারে তিন শিশু সন্তান রয়েছে।

২০০৪ সালের ২৩ ডিসেম্বরের পর মুম্বাইয়ে বিষাক্ত মদপানে মৃত্যুর বড় ঘটনা এটাই। ওই দিন একই ধরনের ঘটনায় ৮৭ জনের মৃত্যু হয়।

এর আগে জানুয়ারিতে ভারতের উত্তর প্রদেশে বিষাক্ত মদ পানে অন্ততপক্ষে ২৯ জনের মৃত্যু হয়।

২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গে বিষাক্ত মদ পান করে ১৭০ জন মারা যান।

২০০৯ সালের সেপ্টেম্বরে উত্তর প্রদেশে মারা যান অন্ততপক্ষে ৩০ জন।