১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফ্যাশনে নতুন কাতুয়া

  • সৈকত ইসলাম

একবিংশ শতকে এসে যত গবেষণামূলক ফিউশনধর্মী ভিন্ন ধারার পোশাক ফ্যাশনে জায়গা করে নিয়েছে কাতুয়া তার ভেতর অন্যতম। কাতুয়া ফ্যাশনেবল এবং স্বস্তিদায়ক হওয়াতে তারুণ্যের ক্রেজ হিসেবে যথেষ্ট খ্যাতি পেয়েছে। কাতুয়া নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন সৈকত ইসলাম।

কাতুয়া ফ্যাশন জগতে ভিন্ন এক নতুন মাত্রা যোগ করেছে। ফতুয়া এবং শর্ট পাঞ্জাবি এ দু’য়ের মাঝামাঝি দৈর্ঘ্যর নতুন ও ফিউশনধর্মী পোশাক কাতুয়া। কাতুয়ায় রয়েছে ভিন্নধর্মী ফ্যাশনের ছোঁয়া।

কাতুয়া বৃত্তান্ত : পুরান ঢাকার বেপারীরা ঢিলেঢালা ধরনের বিশেষ এক পোশাক পরতেন। ঢিলেঢালা ধরনের সেই বিশেষ পোশাক খুব আরামদায়ক ছিল। অনেকে একে বেপারী পাঞ্জাবিও বলে থাকেন। বেপারীদের আরামদায়ক সেই বিশেষ পোশাক এবং কাকতাড়ুয়া থেকে ধারণা নিয়ে ডিজাইন করা হয় ফিউশনধর্মী ভিন্ন ধারার এক পোশাক। কালের বিবর্তনে ফিউশনধর্মী পোশাকটির নাম দেয়া হয়েছে কাতুয়া। ২০১১ সালে ফ্যাশনে প্রথম কাতুয়া সংযোজিত হয়। কাতুয়া ফ্যাশনে এনেছে ভিন্নতা। সময়ের পরিপ্রেক্ষিতে কাতুয়া ফ্যাশনে বেশ জায়গা করে নিয়েছে।

উৎসবে কাতুয়া : বিভিন্ন উৎসবে, বিশেষ করে ঈদ, পূজা পার্বণে কাতুয়ার চাহিদা বেশ। তবে গরমে এর চাহিদা আরও অনেক বেশি থাকে। ভ্যাপসা এই গরমে কাতুয়া বেশ মানানসই।

কাতুয়ার কাপড় : কাতুয়ার কাপড় সবসময় সুতিই ভালো। সুতি কাপড়ে গরম তুলনামূলক কম লাগে। আর এখন যেহেতু গরমের সময়, তাই পোশাকে সুতির কোন বিকল্প নেই। কাতুয়ার কাপড়েও সুতির প্রাধান্য রয়েছে। তাছাড়া করা হয়েছে সিলিকন ওয়াশ। যার ফলে কাতুয়া পরতে আরও বেশি আরাম, স্বাচ্ছন্দ্যদায়ক।

নকশার ভিন্নতা : কাতুয়ার নকশায় তরুণদের পছন্দকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। এক কালারের কাতুয়া রয়েছে। ফ্যাশন ডিজাইনার সায়েম হাসান প্রিন্স বলেন, এ বছর কাতুয়ায় প্রিন্টের কাপড়ের বিভিন্ন ডিজাইন করা হয়েছে। বিভিন্ন নকশার প্রিন্টের মাঝে ফুলের প্রিন্টই বেশি ব্যবহার করা হয়েছে। এক কালার কাপড়ের ওপর স্টেপ, ডিপ ডাই করা কাতুয়াও এখন বেশ চলছে।

মডেল : তানভির ও রাজ

পোশাক : ব্যাঙ ও মেন্্স ওয়ার্ল্ড