২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিরিজ জয়ের গ্যারান্টি দিতে পারবে না প্রোটিয়ারা

সিরিজ জয়ের গ্যারান্টি দিতে পারবে না প্রোটিয়ারা
  • বললেন তামিম ইকবাল;###;বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে ম্যাচ দিয়ে ওয়ানডেতে আইসিসির নতুন নিয়মে খেলা শুরু হবে। দ্বিতীয় পাওয়ার প্লে বাদ। শেষ ১০ ওভারে বৃত্তের বাইরে ৫ ফিল্ডার থাকতে পারবেন। সব ‘নো’ বলেই ফ্রি হিট মিলবে। শুধু ব্যাটসম্যানদের খেলা হয়ে ওঠা নির্ধারিত ওভারের ক্রিকেট এখন বোলারদের খেলাও হয়ে উঠেছে। আর তাই তো বাংলাদেশ ওপেনার তামিম ইকবাল বাংলাদেশের স্পিনারদের দিকেই দৃষ্টি দিয়েছেন। এ একটি দিকেই যে দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে রয়েছে। এখন সেই এগিয়ে থাকা দিয়ে একটি ওয়ানডে জিতে নিতে পারলেই হলো। তাহলেই যে ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলা নিয়ে আর কোন তর্ক-বিতর্কই থাকবে না। তামিম তো এমনও বলেছেন, ‘ওরা (দক্ষিণ আফ্রিকা) বলতে পারবে না সিরিজ জিতে যাব।’ বুধবার সংবাদ সম্মেলনে বলা তামিমের কথাগুলো এখানে তুলে ধরা হলো।

প্রশ্ন ॥ ওয়ানডে কমফোর্ট জোন কি না?

তামিম ইকবাল ॥ কমফোর্ট জোন না। কিন্তু আমার কাছে মনে হয় আমরা ওয়ানডেতে অনেক আত্মবিশ্বাসী দল। ওয়ানডেতে কয়েকটা সিরিজ খেলছি। টেস্ট আর টি২০ নিয়ে যে কথাটা বলা হয়, সেটা ঠিক না। আমরা ঘরোয়াভাবেও কিন্তু খুব কম টি২০ খেলি। এখনও এই ফরম্যাটটা ওয়ার্কআউট করতে পারিনি। যেহেতু আমরা ভাল খেলছি (ওয়ানডেতে), আমি নিশ্চিত অনেক কনফিডেন্ট থাকব।

প্রশ্ন ॥ টি২০ সিরিজ হারের কারণে চ্যালেঞ্জিং হবে কি না?

তামিম ॥ যে কোন সিরিজ হার দিয়ে শুরু হলে এটা তো ভাল জিনিস না। আমাদের মধ্য যে জিনিসটা আছে এটা সবসময় বলি যে, আমরা ইউজ টু না। তারপরও দুটো ম্যাচ আমরা যেভাবে খেলেছি তারচেয়েও বেটার খেলতে পারতাম। ওয়ানডের যে জিনিসটা হলো আমরা লাস্ট এক বছর ধরে যেভাবে পারফর্মেন্স করছি, গেমটাকে যেভাবে প্লেয়াররা রিড করছে, টেস্ট টি২০ চেয়ে প্লেয়াররা ভাল করে রিড করে সাকসেস রেটটাও ওয়ানডেতে অনেক। আমরা অবশ্যই কনফিডেন্ট বিকজ দুইটা হারের কারণেই যদি সবকিছু শেষ হয়ে যায় তাহলে তো হবে না। আমরা ওয়ানডের জন্য লুকিং ফরওয়ার্ড।

প্রশ্ন ॥ নতুন আইন প্রসঙ্গে ...

তামিম ॥ আমরা এটা নিয়ে সময় পাইনি। দুই-তিনটা ম্যাচ সময় তো লাগবেই। এক-দুইটা ম্যাচ খেললে বোঝা যাবে।

প্রশ্ন ॥ ভারত-পাকিস্তান সিরিজ আর দক্ষিণ আফ্রিকা ...

তামিম ॥ আমার কাছে মনে হয় ভারত পাকিস্তান কিন্তু সাব কন্টিনেন্টালে শক্তিশালী দল। নো ডাউট সাউথ আফ্রিকা খুব পেশাদার দল। এই কারণেই তারা র‌্যাঙ্কিংয়ে ১-২তে আছে। ওদের বোলিং আক্রমণও ভাল। ব্যাটসম্যানও ভাল। আমরা পাকিস্তান ভারতকে হারাতে যে পরিমাণ কষ্ট করা লাগছে, আমাদের কাজগুলা ঠিকভাবে করতে হয়েছে। এদের যদি হারানো যায়, এভাবেই হারাতে হবে।

প্রশ্ন ॥ এবি ডি ভিলিয়ার্স নেই ...

তামিম ॥ ডি ভিলিয়ার্সের মতো প্লেয়ার যদি একটা একাদশে না থাকে, বাংলাদেশ হোক কিংবা অস্ট্রেলিয়া, যে কোন টিমের জন্য প্লাস পয়েন্ট। কারণ ও একটা এমন প্লেয়ার যে একাই খেলাটা শেষ করে দিতে পারে। অনেক সময় এমনও হয় ধরেন ওকে ফোঁকাস করতে গিয়ে অন্যকে ফোঁকাস করা হয় না। এই কারণে অন্যরা একটু বেশি ভাল করে ফেলে। ওই জিনিসটা এটলিস্ট হবে না। এই জিনিসটা অবশ্যই ইতিবাচক। দিন শেষে আমাদের তো ১১ জনকে নিয়েই চিন্তা করতে হবে। ১১ জনকে নিয়ে পরিকল্পনা করতে হবে। তাদের বিপক্ষে পরিকল্পনা করেই মাঠে নামতে হবে।

প্রশ্ন ॥ দুই দলের মধ্যকার স্পিনে তুলনা ...

তামিম ॥ আমি এখনও বিশ্বাস করি, সব সময় বিশ্বাস করব, ওদের স্পিনারের চেয়ে আমাদের স্পিনাররা ভাল। যদি তুলনা করতে বলেন তাহলে আমি আমাদের স্পিনারদের ৫/৬ গুণ এগিয়ে রাখব। এটা আমার বিশ্বাস। যেমন সাকিব, ও বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার, বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়েও ১০ এর ভেতরেই আছে। এটা ঠিক সম্প্রতি ইমরান তাহির খুব ভাল করছে। বিশ্বকাপেও খুব ভাল পারফর্ম করেছে দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য। যেখানেই খেলছে ভাল করছে। ওকেও আমাদের খুব সতর্কভাবে সামলাতে হবে। লেগস্পিনার একটি এ্যাটাকিং অপশন থাকে যে কোন দলের জন্য। তাছাড়া ওর অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে। গত বছর টি২০ বিশ্বকাপেও এখানে ভাল করেছিল। ওদের শুধু স্পিন না পেস বোলিং আক্রমণও খুব ভাল। ওদের খুব ভালভাবে সামলাতে হবে।

প্রশ্ন ॥ হার দিয়ে শুরু হওয়ায় আত্মবিশ্বাস কম?

তামিম ॥ কোন দিন কেউ চায় না হার দিয়ে শুরু করতে। আমরা যদি একটা বা দুইটা টি২০তেই জিততাম তাহলে হয় তো আত্মবিশ্বাস আরও অন্যরকম থাকত। হেরেছি যখন তখন তো বলতেই পারি, টিমের অনুভূতি ভাল থাকে না। কিন্তু আমরা জানি যে, যে ফরম্যাটে আমরা সবচেয়ে শক্তিশালী সেই ফরম্যাটেই খেলা আসছে। আর এটা নিয়ে আমরা পুরোপুরি প্রস্তুত। আমরা যদি ওই জিনিসটা নিয়ে ভাবি তাহলে মনে করি না দলের জন্য ভাল। সেই ছন্দ আমরা ড্রেসিং রুমে তৈরি করতে চাচ্ছি, যে জিনিসটা হয়ে গেছে সেটা হয়েই গেছে, যে জিনিসটা আসছে সেটা নিয়ে আমরা যতটা পরিকল্পনা করতে পারি, আত্মবিশ্বাসী থাকতে পারি।

প্রশ্ন ॥ আগের সিরিজের সঙ্গে তুলনা...

তামিম ॥ পাকিস্তান, ভারত কোন দলের বিপক্ষে আমরা জোর গলায় বলিনি সিরিজ জিতে যাব। বলেছি, আমরা যদি আমাদের কাজটা ঠিকভাবে করি জিততে পারি। একই জিনিস হবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও। ওরাও কিন্তু বলতে পারবে না আমরা সিরিজ জিতে যাব। ওদেরও ভাল খেলতে হবে। বিশ্বকাপ থেকে শুরু করে শেষ দুই সিরিজে আমরা যেভাবে সব ঠিক করে আসছি সেটা যদি করতে পারি তাহলে অবশ্যই ম্যাচ জেতা সম্ভব, সিরিজ জিতব কি না সেটা তিনটা ম্যাচের বিষয়।