২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সেরেনা ফাইনালে শারাপোভাকে হারিয়ে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ উইম্বলডনের মহিলা এককে ফাইনালে উঠেছেন সেরেনা উইলিয়ামস। রাশিয়ান টেনিস তারকা মারিয়া শারাপোভাকে পরাজিত করে টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওঠেন তিনি। বৃহস্পতিবার সেমিফাইনালের লড়াইয়ে চারবারের উইম্বলডন শিরোপা জেতা সেরেনা উইলিয়ামসের সামনে দাঁড়াতেই পারেননি রাশিয়ান গ্ল্যামারগার্ল মারিয়া শারাপোভা। মাত্র ৭৯ মিনিটেই মাশাকে হারিয়ে সেমিফাইনাল থেকে বিদায় করেন কৃষ্ণকলি সেরেনা। এর ফলে টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ তারকার সামনে এখন বড় বাধা জার্বিন মুগুরুজা। একই দিনের অন্য সেমিফাইনালে মুগুরুজা পোল্যান্ডের এ্যাগ্নিয়েস্কা রাদওয়ানস্কাকে হারিয়ে ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করেন। প্রায় দুই দশক পর স্প্যানিশ কোন খেলোয়াড় হিসেবে উইম্বলডনের ফাইনালে ওঠেন মুগুরুজা।

বৃহস্পতিবার সেমিফাইনালের প্রথম সেটে কোন রকম প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ার আগেই শারাপোভার বিপক্ষে ৬-২ গেমে জয় পান সেরেনা। ২০টি একক গ্র্যান্ডসøাম জয়ী সেরেনার বিপক্ষে দ্বিতীয় সেটে কিছুটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তোলেন শারাপোভা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৬-৪ সেটে ম্যাচ জিতে ফাইনালে উঠে যান সেরেনা উইলিয়ামস। এই নিয়ে গত ১২ বছরে শারাপোভার বিপক্ষে টানা ১৭টি ম্যাচ জিতলেন সেরেনা। দীর্ঘ এক যুগ ধরে সেরেনার বিপক্ষে জয় নেই শারাপোভার। এ যেন আশ্চর্য এক বিষয়। তাহলে কি কোন রহস্য রয়েছে তাদের দ্বৈরথে? তবে শারাপোভা তা উড়িয়ে দিয়েছেন। এ বিষয়ে রুশ ললনা বলেন, ‘আমি মনে করি না এতে গোপন কোন রহস্য আছে। বরং কিছু কিছু খেলোয়াড়ের বিপক্ষে সে সব সময়ই নিজেকে এগিয়ে রাখে। তাদের বিপক্ষে সেরাটা ঢেলে দেয়। এবারও আজারেঙ্কা এবং আমার বিপক্ষে সে যেভাবে খেলছে, এক কথায় দুর্দান্ত পারফর্মেন্স উপহার দিয়েছে।’

বর্তমান সময়টা দারুণ কাটছে সেরেনা উইলিয়ামসের। সম্প্রতি ফ্রেঞ্চ ওপেনে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন তিনি। গত বছরের শেষ টুর্নামেন্ট ইউএস ওপেন জিতে আমেরিকান তারকার শুরু। এরপর বছরের প্রথম মেজর টুর্নামেন্ট অস্ট্রেলিয়ান ওপেনেও নিজেকে মেলে ধরেন তিনি। ফ্রেঞ্চ ওপেন জিতেই মহিলা এককে সর্বোচ্চ গ্র্যান্ডসøাম জয়ের ক্ষেত্রে সেরেনা এখন তৃতীয় অবস্থানে রয়েছেন। ২২টি গ্র্যান্ডসøাম জিতে সেরেনার সামনে আছেন জার্মান কিংবদন্তি স্টেফি গ্রাফ। আর ২৪ গ্র্যান্ডসøাম নিয়ে সবার উপরে আছেন অস্ট্রেলিয়ার মার্গারেট স্মিথ কোর্ট। এবার উইম্বলডন জিততে পারলে স্টেফি গ্রাফের আরেকটু কাছে চলে যাবেন সেরেনা। আমেরিকান তারকা প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেছেন গ্র্যান্ডসøাম জয়ের। শারাপোভাকে হারানোর পরই তিনি বলেন, ‘আমি অনেকগুলো গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট জিতেছি। এই মুহূর্তে এমন একটা অবস্থানে আছি যে, নিজেকে প্রমাণের জন্য আর কোন গ্র্যান্ডসøাম জিততে হবে না। কিন্তু তবু আরেকটি উইম্বলডন জিততে চাই আমি।’

সেরেনার বিপক্ষে হেরে যেমন হতাশায় আচ্ছন্ন শারাপোভা তেমনি মুগুরুজার কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গ রাদওয়ানস্কার। কেননা পোল্যান্ডের এই টেনিস তারকাকে হারিয়েই উইম্বলডনের ফাইনালে উঠলেন জার্বিন মুগুরুজা। টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে তিনি ৬-২, ৩-৬ এবং ৬-৩ গেমে রাদওয়ানস্কাকে পরাজিত করে ফাইনালের টিকেট কাটেন। সেই সঙ্গে অসামান্য এক কীর্তিও গড়েন তিনি। দীর্ঘ ১৯ বছরের মধ্যে প্রথম স্প্যানিশ মহিলা হিসেবে উইম্বলডনের ফাইনালে ওঠার রেকর্ড গড়েন এই স্প্যানিয়ার্ড। তার আগে স্পেনের শেষ মহিলা হিসেবে উইম্বলডনের ফাইনালে উঠেছিলেন সানচেজ-ভিকারিও। ১৯৯৬ সালের পর এবারই মহিলা এককের ফাইনালের মঞ্চে দেখা যাবে স্প্যানিশ কোন টেনিস খেলোয়াড়কে। তবে স্পেনের হয়ে উইম্বলডন জয়ের কীর্তিটা আরও আগের। ১৯৯৯ সালে স্পেনের শেষ নারী খেলোয়াড় হিসেবে অল-ইংল্যান্ড ক্লাবে শিরোপা জিতেছিলেন কোঞ্চিতা মার্টিনেজ। টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই দুর্দান্ত খেলছিলেন মুগুরুজা। ফাইনালে উঠে নিজেকে দারুণভাবে মেলে ধরলেন ২১ বছর বয়সী এই স্প্যানিয়ার্ড। শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে তার বড় বাধা এখন সেরেনা উইলিয়ামস।

নির্বাচিত সংবাদ