২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খালেদা ভাঙ্গার রাজনীতি করেন ॥ মতিয়া চৌধুরী

নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর ॥ বিএনপি প্রধান বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, ‘যারা ভাঙ্গে তারা গড়তে পারে না। চোরের হাতে কোন ভালো জিনিস হয় না। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এলে একের পর এক ফ্লাইওভার, হাতির ঝিল হয়। আর খালেদা জিয়া ৯৩ দিনের হরতাল-অবরোধে অগ্নিসংযোগের সময় হাতির ঝিলের বাতিগুলো ভেঙ্গে ফেলেন’। তিনি আজ শনিবার বিকেলে তার নির্বাচনী এলাকা শেরপুরের নকলা উপজেলার গৌড়দ্বার ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গণে ঈদ উপলক্ষ্যে দরিদ্রদের মাঝে বিশেষ ভিজিএফ, শাড়ী, থ্রিপিস ও খেজুর বিতরণকালে ওই কথা বলেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন গরিব দেশ নয়, নি¤œ মধ্যবিত্তের দেশ। শেখ হাসিনার ২০২১ সালের রূপকল্পের আগেই বাংলাদেশ মধ্যবিত্তের দেশ হবে। আর দেশ যেভাবে এগুচ্ছে ২০৪১ লাগবে না, বাংলাদেশ ৩০ সালের মধ্যেই উচ্চবিত্ত-স্বচ্ছল ঐশ্বর্যের বাংলাদেশে পরিণত হবে’।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি আসলে খাদ্যের অভাব দেখা দেয়, বিদ্যুতের অভাব দেখা দেয়, মানুষের পড়নে কাপড়ের টান পড়ে; একই সঙ্গে শিক্ষার বেহাল অবস্থা হয়ে যায়। এমনইভাবে দেশটা নষ্ট হয়। আবার শেখ হাসিনা এসে ধ্বংসের হাত থেকে দেশটাকে টেনে তোলেন’। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার এক ছেলে আর এক মেয়ে। দু’জনই উচ্চ শিক্ষিত এবং ফুলের মত সুগন্ধ ছড়াচ্ছে। আর খালেদা জিয়ার দুই ছেলে। একটা হেরোইন খেয়ে মরে গেছে, আরেকটা ফেরারী আসামী। কদম আলী ডাক্তার ডিগ্রী নাই, তারেক জিয়ার পাশ করা কলেজের নাম নাই’। মতিয়া চৌধুরী দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আমার দলের নেতা-কর্মীরা গরীবের হক নিয়ে ভাগাভাগি করে না। তারা জনগণের উপকারের আশা করেন, উপকারে লাগার আশা করেন। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই।

কৃষিমন্ত্রী এদিন প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল ও তাঁর নিজস্ব তহবিল থেকে নকলা উপজেলার বানেশ্বরদী, চন্দ্রকোণা, পাঠাকাটা, টালকি, গৌড়দ্বার ইউনিয়নের ৭ হাজার পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে ভিজিএফের চাল বিতরণ করেন। এছাড়া ২শ’ জন স্কুল ছাত্রীকে থ্রিপিস, ১হাজার পিস শাড়ী, ৫শ টি সার্ট ,৫শটি ট্রাউজার ও ১০ হাজার পিস খেজুর বিতরণ করেন। ওইসময় মন্ত্রীর সঙ্গে শেরপুরের জেলা প্রশাসক ডা. এ এম পারভেজ রহিম, পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম, উপজেলা চেয়ারম্যান মাহবুল আলী চৌধুরী , উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জিন্নাহসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচিত সংবাদ