১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শরীয়তপুরে কাবিটা প্রকল্পের ১৮ লাখ টাকা ভাগ বাটোয়ারা

নিজস্ব সংবাদদাতা, শরীয়তপুর, ১৩ জুলাই ॥ শরীয়তপুরের সখিপুর থানাধীন ৯টি ইউনিয়নের গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কারের জন্য হতদরিদ্র ও অভাবী লোকজনের মধ্যে কাজের বিনিময়ে টাকা (কাবিটা) প্রকল্পের ১৮ লাখ টাকা ভেদরগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মোঃ মোস্তফা কামাল ও সখিপুর থানার এক প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা ভাগ-বাটোয়ারা করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে সখিপুর থানা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ স্থানীয় হতদরিদ্র মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্যের মাধ্যমে গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কারের জন্য কাজের বিনিময়ে টাকা (টাকা) হিসেবে সখিপুর থানার চরভাগা, চরসেনসাস, উত্তর তারাবুনিয়া, দক্ষিণ তারাবুনিয়া, চরকুমারিয়া, আরশিনগর, কাচিকাটা, ডিএমখালী ও সখিপুর ইউনিয়নের জন্য ২ লাখ করে ৯টি ইউনিয়নে মোট ১৮ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয় সরকার। প্রত্যেক ইউনিয়নে ১০টি করে সৌরবিদ্যুত দেয়ার কথা বলে সখিপুর থানার এক প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা ভেদরগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মোস্তফা কামালের যোগসাজশে কমিটি গঠনের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করে ভাগ-বাটোয়ারা করে নিয়ে যান। এলাকাবাসী জানান, এসব প্রকল্পের কাজের হিসাব ভেদরগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কাগজে-কলমে থাকলেও বাস্তবে কোন কাজ হয়নি। হতদরিদ্র পরিবারের মধ্যে টাকার বিনিময়ে সৌরবিদ্যুত দেয়ার কথা থাকলেও একই রাজনৈতিক পরিবারের ২-৩ জনের নাম দেখিয়ে এই লিস্ট করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।