২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশেষায়িত ব্যাংক হচ্ছে হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে বিশেষায়িত বাণিজ্যিক ব্যাংকে রূপান্তরিত হতে যাচ্ছে ‘বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন’ (বিএইচবিএফসি)। এ জন্য প্রতিষ্ঠানটির আইনে সংশোধনী আনা হচ্ছে।

আগামী বছর থেকে এটি ব্যাংক হিসেবে কার্যক্রম শুরু করতে পারে। এ ছাড়া প্রতিষ্ঠানটির আর্থিক সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে তিন কিস্তিতে ৫০০ কোটি টাকা ঋণ সহায়তাও দেবে সরকার।

সম্প্রতি ‘বিএইচবিএফসি’র বিষয়ে করণীয় নির্ধারণ’ সংক্রান্ত এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বিএইচবিএফসিকে আপাতত সহজ শর্তে ও দীর্ঘ মেয়াদে ৫০০ কোটি টাকা ঋণ দেয়া হবে। সরকারের অর্থ বিভাগ থেকে তিন কিস্তিতে এ ঋণ দেয়া হবে। চলতি অর্থবছর থেকেই এ ঋণ দেয়া হবে। এ জন্য বাজেটে অর্থ বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

জানা যায়, আগামী বছর এটাকে বিশেষায়িত ব্যাংকে রূপান্তরিত করা হবে। এ জন্য আইন সংশোধন করা হবে এবং আইন সংশোধনের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ব্যাংকে রূপান্তর করা হলে প্রতিষ্ঠানটি তখন আমানত সংগ্রহ করতে পারবে। বাণিজ্যিক ব্যাংকে রূপান্তর করা হলে বিএইচবিএফসির ঋণের সুদের হার আরও ১ শতাংশ বাড়বে।

ঢাকা ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকায় বিএইচবিএফসি’র ঋণের সুদের হার বর্তমানে ১২ শতাংশ। এটা ১৩ শতাংশে উন্নীত করা হবে। তবে অন্যান্য এলাকার জন্য ঋণের সুদের হারের পার্থক্য ২ শতাংশ বহাল থাকবে।

জানা যায়, চলতি অর্থবছরে কর্পোরেশনের ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ৪০০ কোটি টাকা। এর মধ্যে চলতি মাসে ঋণ মঞ্জুরি ও বিতরণের জন্য অপেক্ষাধীন রয়েছে ২৭৮ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। তহবিলের সংস্থান না হলে ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা সম্ভব হবে না।

বিএইচবিএফসি’র প্রস্তাবনায় বলা হয়, ‘সহজ শর্তে ৫০০ কোটি টাকা পাওয়া গেলে এর পুরো অর্থই ঢাকা ও চট্টগ্রামের বাইরে মফস্বল এলাকায় বিতরণ করা হবে।

বিতরণযোগ্য এ ঋণের ৭৫ শতাংশই হবে সহজ শর্তে এবং ২৫ শতাংশ বাজার শর্তে বিতরণ করা হবে। কর্পোরেশন সরকারের কাছ থেকে এ পর্যন্ত ডিপোজিট বাবদ ১২ কোটি ৭১ লাখ টাকা এবং ৩ শতাংশ সুদে ঋণ বাবদ ৩২২ কোটি ৫০ লাখ টাকা পেয়েছে।

কর্পোরেশন নিয়মিতভাবে সুদের কিস্তি পরিশোধ করে আসছে এবং কোন খেলাপি নেই।