১৫ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জীবিত বৃদ্ধাকে মৃত দেখিয়ে ভাতাবঞ্চিত

নিজস্ব সংবাদদাতা, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া, ১৬ জুলাই ॥ দৌলতপুরে জীবিত জমেলা খাতুনকে মৃত দেখিয়ে বয়স্ক ভাতা থেকে বঞ্চিত করেছে দৌলতপুর সমাজ সেবা অফিসার কেকেএম ফজলে রাব্বি। বৃহস্পতিবার জমেলা খাতুন বয়স্ক ভাতার অর্থ ব্যাংক থেকে উত্তোলন করতে গেলে তাকে মৃত বলে ফিরিয়ে দেন ব্যাংক কর্মকর্তা। উপজেলার রিফায়েতপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মৃত ছাদেক ম-লের স্ত্রী বৃদ্ধা জমেলা খাতুন জানান, বৃহস্পতিবার সকালে দৌলতপুর অগ্রণী ব্যাংক শাখায় ৩৭৯ হিসাব নং থেকে বয়স্ক ভাতার অর্থ উত্তোলন করতে গেলে ব্যাংক কর্মকর্তা সে মৃত এবং বয়স্ক ভাতার তালিকায় তার নাম নেই বলে ফিরিয়ে দেন। পরে জমেলা খাতুন ৫৭৯২ নং ভাতার বই হাতে নিয়ে দৌলতপুর সমাজ সেবা কার্যালয়ে গেলে ওই কার্যালয়ের করনিক জমেলা খাতুনের কাছ থেকে ভাতার বইটি হাতে নিয়ে তার ওপর মৃত লেখে ভাতার বইটি ফেরত দিয়ে তাকে অফিস থেকে বের করে দেন। ভাতা বঞ্চিত বৃদ্ধা জমেলা খাতুন ভাতার অর্থ না পেয়ে ও তাকে মৃত সাজিয়ে ভাতা বঞ্চিত করায় সে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এ বিষয়ে দৌলতপুর সমাজ সেবা অফিসার কেকেএম ফজলে রাব্বির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি অফিসে নেই, অফিসে গিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরই ঈদ। সেই ঈদ বৃদ্ধা ও অসহায় জমেলা খাতুনকে কতটা আনন্দ দিবে আর ঈদের দিনে সে কি বা খাবে তা ভেবে দেখার জন্য এবং জীবিত মানুষকে মৃত বলে ভাতা বঞ্চিত করার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেছেন অসহায় জমেলা খাতুন।

দিনাজপুরে জেএমবি সদস্যের বিচার কার্যক্রম ব্যাহত

সাক্ষী অনুপস্থিত

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ দিনাজপুরে বৃহস্পতিবার নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন-জেএমবি এহসার সদস্য শহিদুল ইসলামকে আদালতে হাজির করা হলেও ৩ সাক্ষী র‌্যাব সদস্য উপস্থিত না থাকায় বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব হয়নি। ৩ সাক্ষীর বিরুদ্ধে আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে ২৬ আগস্ট মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন।

বৃহস্পতিবার দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোঃ মাহমুদুল করিম এর আদালতে নিষিদ্ধ ঘোষিত ইসলামী জঙ্গী সংগঠন-জেএমবির এহসার সদস্য শহিদুল ইসলামকে (৫৮) দুপুর ১২টায় আদালতে হাজির করা হয়। মামলার ২ আসামি উত্তরাঞ্চলের সামরিক কমান্ডার রফিকুল ইসলাম ওরফে জোবায়ের ওরফে রাসেল ওরফে জসিম (৩০) ও এহসার সদস্য শাহিন হোসেন (২৯) ঢাকার কাশিমপুর কারাগারে অপর মামলায় আটক থাকায় তাদের আদালতে হাজির করা সম্ভব হয়নি। অপর আসামি সোহেল মাহফুজ ওরফে তুহিন মামলা দায়েরের পর থেকে পলাতক থাকায় তার অনুপস্থিতিতে বিচার কাজ চলছে।