১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জয় দিয়েই কোর্টে ফিরলেন সেরেনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সদ্য উইম্বল্ডন জিতেছেন সেরেনা উইলিয়ামস। ক্যারিয়ারের ২১তম গ্র্যান্ডসøাম জয়ের উচ্ছ্বাস এখনও কাটেনি তার। তারপরও বসে নেই আমেরিকান টেনিসের জীবন্ত এই কিংবদন্তি। খেলার নেশায় সবর্দা মত্ত থাকা সেরেনা উইলিয়ামস বুধবার সুইডিশ ওপেনে খেলতে নামেন। জয় দিয়েই উইম্বল্ডনে পরবর্তী মিশন শুরু করেন তিনি। টুর্নামেন্টের শীর্ষ বাছাই সেরেনা এদিন ৬-২ এবং ৬-১ গেমে রীতিমতো উড়িয়েই দেন প্রতিপক্ষ বেলজিয়ামের ইয়ালিন বোনাভেঞ্চারকে। তবে সেরেনার জয়ের দিনই হতাশাজনক পারফর্মেন্স উপহার দিয়েছেন সামান্থা স্টোসার। উইম্বল্ডন চ্যাম্পিয়ন সেরেনার পর সেরা তারকা কেবল স্টোসারই। কিন্তু দ্বিতীয় বাছাই এই অস্ট্রেলিয়ান তারকা নিজেকে খুব বেশিদূর এগিয়ে নিতে পারেননি। বুধবার দ্বিতীয় পর্বে স্পেনের অখ্যাত খেলোয়াড় লারা আরুয়াবারেনার কাছে ৭-৬ (৭/৫) এবং ৬-০ গেমে হেরে সুইডিশ ওপেন থেকে ছিটকে পড়েন তিনি।

সময়টা দারুণ কাটছে সেরেনা উইলিয়ামসের। ষষ্ঠবারের মতো উইম্বল্ডন জিতে আবারও প্রমাণ করলেন তা। গত শনিবার মৌসুমের তৃতীয় গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্ট উইম্বল্ডন জয়ের লক্ষ্যে কোর্টে নেমেছিলেন তিনি। আর ফাইনালে স্পেনের গার্বিন মুগুরুজাকে উড়িয়ে দিয়েই চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেন তিনি। অল ইংল্যান্ড ক্লাবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর সেরেনার সামনে এখন ক্যালেন্ডার সøাম জয়ের হাতছানি। তাই এখনই ইউএস ওপেনে চোখ তার। আগামী ৩১ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ‘ফ্লাশিং মিডো’তে শুরু হতে যাওয়া বছরের শেষ গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে উচ্ছ্বাসের জোয়ারে ভাসতে থাকা সেরেনা বলেন, ‘আমি শান্ত ছিলাম। এখন খুবই আনন্দ অনুভব করছি। তবে এখন শুধু নিউইয়র্ক নিয়েই ভাবতে শুরু করেছি।’ স্প্যানিশ টেনিস তারকা গারবিন মুগুরুজাকে হারিয়ে ক্যারিয়ারে ২১ গ্র্যান্ডসøাম জয়ের পাশাপাশি আরও একটি রেকর্ড গড়েন তিনি। ২০০২-০৩ মৌসুমের পর টানা চার গ্র্যান্ডসøাম জিতে দ্বিতীয়বারের মতো ‘সেরেনা সøাম’ জয়েরও কৃতিত্ব দেখিয়েছেন উইলিয়ামস পরিবারের ছোট্ট মেয়ে। রেকর্ড গড়ে স্বাভাবিকভাবেই আনন্দে-উদ্বেলিত টেনিসের কষ্ণকলি। সেরেনা সøাম জয়ের পর নিজের চেষ্টা আর প্রবল ইচ্ছের কথা জানান সেরেনা। এ বিষয়ে তার অভিমত হলো, ‘আমি পরপর চার গ্র্যান্ডসøাম জয়ের জন্য বারো বছর ধরে চেষ্টা করে যাচ্ছি। কয়েকবার ইনজুরিতে পড়েছি। আপনারা জানেন এটি আসা-যাওয়ার মধ্যেই আছে।’ বয়সে তেত্রিশকেও ছাড়িয়ে গেছেন সেরেনা। কিন্তু বয়সের ফ্রেমে নিজেকে বেঁধে রাখতে চান না তিনি। তাই তো প্রতিপক্ষের জন্য রীতিমতো হুমকির নাম সেরেনা।

সেরেনা সøামের পর এখন ক্যালেন্ডার সøাম! অবিশ্বাস্য এই কীর্তি গড়তে পারবেন কী তিনি? সময়ই বলে দেবে এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর। তবে অসামান্য এই রেকর্ড গড়তে দারুণ আত্মবিশ্বাসী সেরেনা উইলিয়ামস। টেনিসের সুদীর্ঘ ইতিহাসে এখন পর্যন্ত অনন্য এই রেকর্ডটির মালিক হয়েছেন তিনজন। স্বদেশী মৌরিন কোনোলি ১৯৫৩ সালে এই কীর্তি গড়ে ইতিহাসের পাতায় জায়গা করে নিয়েছিলেন। এরপর অস্ট্রেলিয়ার মার্গারেট কোর্ট ১৯৭০ সালে ক্যালেন্ডার সøাম জিতেন। জার্মানির স্টেফিগ্রাফ ১৯৮৮ সালে একই বছরে সব গ্র্যান্ডসøাম জিতেছিলেন। এ বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেন, ফ্রেঞ্চ ওপেন এবং উইম্বল্ডন জয়ের পর ইউএস ওপেন শিরোপা জিতে স্টেফিগ্রাফদের রেকর্ডে ভাগ বসানোর অপেক্ষায় সেরেনা। এছাড়া ইউএস ওপেন জিতলে আরও একটি রেকর্ড গড়বেন তিনি। স্টেফিগ্রাফের সঙ্গে যৌথভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২২ গ্র্যান্ডসøাম জয়েরও রেকর্ড গড়বেন বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকা সেরেনা। ২৪ গ্র্যান্ডসøাম নিয়ে তখন তাদের সামনে থাকবেন শুধু অস্ট্রেলিয়ান তারকা মার্গারেট কোর্ট। ব্যক্তিগত সম্প্রতি নৈপুণ্যও ভাল কিছু ইঙ্গিত দিচ্ছে সেরেনাকে। মেজর টুর্নামেন্টে টানা ২৮ ম্যাচে জয় নিয়ে ইউএস ওপেন খেলতে নামবেন তিনি। জয়ের এই ধারাবাহিকতা কতদিন ধরে রাখেন সেরেনা-ভক্ত-অনুরাগীদের সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।