১৩ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশ্ব সম্প্রদায়ের ৯৯ ভাগ পরমাণু চুক্তির পক্ষে ॥ ওবামা

ইরানের সঙ্গে করা পরমাণু চুক্তির সমালোচকরা ‘বিশ্বের ৯৯ ভাগ লোক এবং অধিকাংশ পরমাণু বিশেষজ্ঞের বিপরীত মতের ধারক। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এ কথা বলেন। তিনি মঙ্গলবার সম্পাদিত চুক্তির আরও ভাল একটি বিকল্প প্রস্তাব উপস্থাপনের জন্য সমালোচকদের প্রতি চ্যালেঞ্জ জানান। তিনি বলেন, তাঁরা কোন যথার্থ বিকল্প প্রস্তাব দিতে ব্যর্থ হয়েছে। কংগ্রেসে রিপাবলিকান প্রতিপক্ষদের লক্ষ্য করে তাঁর এই প্রচ্ছন্ন হুমকি বলে মনে করা হচ্ছে। খবর বিবিসি ও এএফপির।

যে মুহূর্তে একটি সদ্য স্বাক্ষরিত চুক্তি জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের কাছে পাঠানো হচ্ছে, তখন একজন লড়াকু মেজাজেরও মাঝে মাঝে বিরক্তি প্রকাশ করা ওবামা বলেন, স্বদেশেও বিদেশের প্রতিপক্ষরা কেবল একটি যুদ্ধাভিমুখী পথের প্রস্তাব করেছেন। আগামী সপ্তাহে নিরাপত্তা পরিষদে চুক্তিটির অনুমোদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। অবরোধ অবসানের বিনিময়ে ইরান তার পরমাণু কর্মসূচী সীমিত রাখবে। কংগ্রেস চুক্তি প্রশ্নে একটি সুস্থ বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে। তার রিপাবলিকান প্রতিপক্ষরা, যারা একটি আসন্ন ভোটে চুক্তি ব্যর্থ করে দেয়ার আশা পোষণ করেনÑ ইরানকে তুষ্ট করার জন্য তাঁকে দোষারোপ করেছেন। ওবামা বলেন, বিশ্ব সম্প্রদায়ের ৯৯ শতাংশ এবং পরমাণু বিশেষজ্ঞদের গরিষ্ঠ অংশ বিষয়টির দিকে দৃষ্টি দিয়ে বলেছেন যে, এটি ইরানের পরমাণু বোমাপ্রাপ্তি প্রতিরোধ করবে, আর আপনারা যুক্তি দেখাবেন হয় এটি বোমা তৈরিতে তাদের বাধা দেবে না কিংবা দিলে তা হবে সাময়িকÑ তবে আপনাদের কোন বিকল্প প্রস্তাব দেয়া উচিত। তিনি এ রকম কিছু শোনেননি। ওবামা জোর দিয়ে বলেন, এর কারণ হলো এখানে আসলে মাত্র দু’টি বিকল্প আছে। প্রশ্নটি আসলে হয় কূটনৈতিকভাবে আলোচনার মাধ্যমে, নয়ত শক্তি প্রয়োগ করে, যুদ্ধের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করতে হবে। এগুলোই হলো বিকল্প। ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি ছাড়া বিশ্ব মধ্যপ্রাচ্য এমনকি আরও যুদ্ধ দেখার ঝুঁকি নেবে।

ভিয়েনায় ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তিটি নবেম্বরে বাস্তবায়ন শুরু হবে বলে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জরিফ বুধবার বলেছেন। ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, চুক্তি প্রমাণ করেছে যে, ‘গঠনমূলক ঐকমত্য ফলপ্রসূ হয়।’ ওবামা আশা প্রকাশ করেছেন যে, চুক্তি ‘ভিন্নভাবে আচরণ করতে’ ইরানকে উৎসাহিত করবে। তিনি সন্ত্রাসবাদের প্রতি দেশটির সমর্থন প্রদান এবং মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন অংশে অস্থিরতা সৃষ্টিতে ইরানের প্রক্সি ব্যবহারের উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়া ও ইয়েমেনের যুদ্ধ অবসানে তেহরানের বৃহত্তর সহযোগিতা কামনা করবে।