১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যুদ্ধ ছাড়াই ছিটমহল জয় করেছেন প্রধানমন্ত্রী ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড় ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জমান খান কামাল বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুদ্ধ ছাড়াই শুধু ছিটমহল নয়, আরেকটি দেশ তথা সমুদ্র জয় করেছেন। উন্নয়নের লক্ষ্য স্থির করে তিনি দেশ্রপেম নিয়ে এগিয়ে চলেছেন। বৃহষ্পতিবার বিকেলে পঞ্চগড় সদর উপজেলার ভারতীয় গারাতি ছিটমহল আকস্মিক সফর শেষে সংক্ষিপ্ত এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, কোন গুলি অথবা কামানের গোলা খরচ না করে, কোন সৈনিকের আত্মাহুতি ছাড়াই দূরদর্শিতা এবং দক্ষতার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছিটমহল উদ্ধার করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে দেশপ্রেম আছে বলেই এটা সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, ছিটমহলবাসীদের জন্য বাজেট ঘোষণা হয়েছে। এখানে সড়ক উন্নয়ন, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দিরসহ সবরকম উন্নয়ন হবে। দেশের স্বাভাবিক উন্নয়নের সঙ্গে ছিটমহলবাসীরাও এগিয়ে যাবে। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে জেলার মানচিত্রে ৩৬টি ছিটমহলের অবস্থান বর্ণনা করেন। এ সময় তিনি জনগণনার সর্বশেষ অবস্থাও বর্ণনা করেন।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার জনগণনার শেষ দিন পর্যন্ত পঞ্চগড় সদর উপজেলার ৭টি ছিটমহলের ৮ জন এবং বোদা উপজেলার ২৩টি ছিটমহলের ৫৩ জন এবং দেবীগঞ্জ উপজেলার ৬টি ছিটমহলের ৪২২ জনসহ মোট ৪৮৩ জন ছিটমহলবাসী ভারতে বসবাসের কথা উল্লেখ করেছেন। এসব ছিটমহলে জন্মসূত্রে ১৫৮২ জন ও বৈবাহিক সূত্রে ৪১৮ জন অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন এবং মৃত্যুজনিত কারণে অথবা এলাকা ছেড়ে যাওয়ায় বাদ পড়েছেন ২৭৯ জন। ২০১১ সালের ভারত-বাংলাদেশ যৌথ জনগণনা অনুযায়ী পঞ্চগড়ের ৩৬টি ছিটমহলের লোকসংখ্যা ছিল ১৯ হাজার ৪৩ জন।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিনের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন পঞ্চগড়-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন, পঞ্চগড়-১ আসনের সংসদ সদস্য নাজমুল হক প্রধান ও সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য সেলিনা জাহান লিটা। মন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজিবি’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ, স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ডঃ মোজাম্মেল হক, অতিরিক্ত সচিব এ এইচ এম রহমাতুল মুনিম। অন্যান্যের মধ্যে পুলিশ সুপার মোঃ গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, বিজিবি’র সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আকরামুজ্জামান, ১৮ বিজিবি’র অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোহাম্মদ আরিফুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত সম্রাট, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লায়লা মুনতাজেরী দীনা উপস্থিত ছিলেন।