২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দৃষ্টিজুড়ে থাকছে কোর্ট

  • খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ছয়টি মামলার শুনানি ;###;সাকা চৌধুরীর মামলার চূড়ান্ত রায় ;###;জামায়াত নেতা মুজাহিদের মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ

বিকাশ দত্ত ॥ আদালত অঙ্গন আবারও সরগরম হয়ে উঠছে। ঈদের ছুটি শেষে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ছয়টি মামলার শুনানি এবং বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর চূড়ান্ত রায় ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ ও ট্রাইব্যুনালে গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরীকের তৃতীয়বারের মতো তলব করাকে কেন্দ্র করে সরগরম হয়ে উঠবে আদালত অঙ্গন। উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে দেশের রাজনৈতিক ময়দানও। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ছয়টি মামলার মধ্যে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুটি মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের শুনানির নির্ধারিত দিন ২৩ জুলাই। ওই দিন খালেদা জিয়া আদালতে হাজির হতে পারেন। বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালতে মামলা দুটির শুনানি চলছে। উচ্চ আদালতে বিএনপির চেয়ারপারসনের গ্যাটকো ও বড়পুকুরিয়া দুর্নীতির মামলা বাতিল করতে জারি করা রুলের শুনানি চলছে। নাশকতার ৫২ মামলায় বিএনপি নেতা এম কে আনোয়ার, আবদুল আউয়াল মিন্টু ও আমানউল্লাহর আমানের আগাম জামিন মঞ্জুর করে হাই কোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিতের আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। আজ চেম্বার জজে এর উপর শুনানি হতে পারে। ২৯ জুলাই আপীল বিভাগে রায় ঘোষণা করা হবে ট্রাইব্যুনাল কর্র্তৃক মৃত্যুদ-প্রাপ্ত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর রায়। এ ছাড়া জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসানের বিরুদ্ধে আপীল বিভাগের মৃত্যুদ- বহাল রাখার পূর্ণাঙ্গ রায়ও বের হবার সম্ভাবনা রয়েছে। জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদ- প্রদান করা হয়েছে। তবে সেই রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশিত না হওয়ায় রিভিউ নিষ্পত্তি হয়নি। এ ছাড়া আপীল বিভাগে ২৬ জুলাই আদালত অবমাননার অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেয়া জরিমানার টাকা স্থগিতের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরীর দায়ের করা আপীল আবেদনের শুনানি ২৬ জুলাই পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে। এদিকে একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের বিচারপতিদের নিয়ে খারাপ মন্তব্য করায় তৃতীয় বারের মতো আদালত অবমাননার অভিযোগে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরী কাল বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় ট্রাইব্যুনালে হাজির হচ্ছেন। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতারকৃত বাগেরহাটের তিন রাজাকার কসাই সিরাজ মাস্টার, খান আকরাম হোসেন ও লতিফ তালুকদারের বিচারিক কার্যক্রম শেষে রায় ঘোষণার জন্য সিএভি রেখেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। এই মামলারও রায় ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছে বলে প্রসিকিউশন পক্ষ জানিযেছেন।

আদালত অবমাননার অভিযোগে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরী কাল বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় ট্রাইব্যুনালে হাজির হচ্ছেন। ঐ দিন সশরীরে হাজির হয়ে তার বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে না, তার ব্যাখ্যা চেয়েছে ট্রাইব্যুনাল। এর আগে ৬ জুলাই জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনার জন্য আবেদন জানায় তিন মুক্তিযোদ্ধা ও গণজাগরণ মঞ্চের একাংশ। এদিন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের কাছে এই আবেদন করেন স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের শিল্পী মুক্তিযোদ্ধা মনোরঞ্জন ঘোষাল, মুক্তিযোদ্ধা আলী আসগর, মুক্তিযোদ্ধা শেখ নজরুল ইসলাম এবং গণজাগরণ মঞ্চের একাংশের আহ্বায়ক কামাল পাশা চৌধুরী ও কর্মী এফএম শাহীন। তাদের পক্ষে ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের মাধ্যমে আবেদনটি দাখিল করেন আইনজীবী খান মোহাম্মদ শামিম আজিজ। ট্রাইব্যুনাল বুধবার এ বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে আদালতে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন। চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান শাহীনের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এক আবেদনের পরিপ্রোক্ষিতে ১২ জুলাই এ আদেশ প্রদান করেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি মোঃ মুজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মোঃ শাহিনুর ইসলাম।

সাকা চৌধুরী ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে ট্রাইব্যুনাল কর্র্তৃক মৃত্যুদ-প্রাপ্ত বিএনপির শীর্ষ নেতা সাকা বাহিনীর (নিজস্ব বাহিনী) প্রধান সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর আপীল শুনানি শেষ হয়েছে। ১৩ কার্যদিবসে শুনানি শেষে আপীলের চূড়ান্ত রায়ের জন্য ২৯ জুলাই দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যবিশিষ্ট আপীল বেঞ্চ এ দিন নির্ধারণ করেন। বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন- বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। মঙ্গলবার প্রথমে আসামিপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন খন্দকার মাহবুব হোসেন ও এসএম শাহজাহান। আসামি পক্ষে আইনজীবীদের জবাবে রাষ্ট্রপক্ষে সমাপনী যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন প্রধান আইন কর্মকর্তা মাহবুবে আলম। সবশেষে খন্দকার মাহবুব হোসেনের জবাবের মধ্য দিয়ে শেষ হয় সাকা চৌধুরীর আপীল শুনানি। উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১ অক্টোবর মানবতাবিরোধী অপরাধের ২৩টি অভিাযোগে মধ্যে নয়টি সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়। আর চারটি অভিযোগে সাকাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদ- প্রদান করেছিল ট্রাইব্যুনাল।

মুজাহিদ ॥ একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে ট্রাইব্যুনাল কর্র্তৃক মৃত্যুদ-াদেশ পাওয়া জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলবদর কমান্ডার বুদ্ধিজীবী হত্যার মাস্টার মাইন্ড আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের আপীল খারিজ করে ১৬ জুন মৃত্যুদ- বহাল রেখেছেন আপীল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপীল বেঞ্চ ঐকমত্যের ভিত্তিতে এ রায় ঘোষণা করেন। বাংলাদেশকে মেধাশূন্য করার চেষ্টায় বুদ্ধিজীবী হত্যার দায়ে মুজাহিদকে মৃত্যুদ- বহাল রাখা হয়েছে। বেঞ্চের অপর সদস্যর হলেন, বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

খালেদা জিয়ার ছয় মামলা॥ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ছয়টি মামলার মধ্যে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের শুনানির নির্ধারিত দিন ২৩ জুলাই। ওই দিন খালেদা জিয়া আদালতে হাজির হতে পারেন। বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালতে মামলা দুটির শুনানি চলছে। ২০১১ সালের ৮ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের নামে তেজগাঁও থানায় মামলা করে দুদক। এর আগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে অনিয়মের অভিযোগে প্রথম মামলা করে দুদক।

বিএনপির ৫২ নেতার জামিন স্থগিতের আবেদন ॥ নাশকতার ৫২ মামলায় বিএনপি নেতা এম কে আনোয়ার, আবদুল আউয়াল মিন্টু ও আমানউল্লাহ আমানের আগাম জামিন মঞ্জুর করে হাই কোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিতের আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। সুপ্রীমকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এসব আবেদন করা হয়, যার ওপর আজ ২১ জুলাই শুনানি হতে পারে।