১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সৌদি আরবে ভয়াবহ আইএস হামলার চক্রান্ত নস্যাত

  • গ্রেফতার ৪৩১

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ জঙ্গী সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সঙ্গে জড়িত সন্দেহে সৌদি আরবে ৪৩১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কয়েক সপ্তাহ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এর মাধ্যমে দেশটির ছয়টি মসজিদে আত্মঘাতী হামলার পরিকল্পনা উদঘাটন করা হয়েছে। সৌদি নিরাপত্তা বাহিনী, কূটনৈতিক মিশন ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ খবর জানিয়েছে। খবর এএফপি, বিবিসি, আল জাজিরা ও ওয়েবসাইটের।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এসপিএ জানিয়েছে, শনিবার পর্যন্ত ৪৩১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের অধিকাংশই সৌদি নাগরিক। তারা পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের মসজিদগুলোতে ছয়টি আত্মঘাতী হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল। প্রতি শুক্রবার এসব হামলা চালানো হতো। হামলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের হত্যার পরিকল্পনাও অন্তর্ভুক্ত ছিল। সন্ত্রাসীরা শারুরাহ প্রদেশে একটি কূটনৈতিক মিশনে, সরকারী ও নিরাপত্তা বাহিনীর স্থাপনায় হামলার পরিকল্পনা করেছিল, পাশাপাশি নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের হত্যার পরিকল্পনাও করেছিল। ২২ মে সৌদি আরবের কাতিফ প্রদেশের একটি মসজিদে জুমার নামাজ চলাকালে চালানো আত্মঘাতী হামলায় ২১ জন নিহত ও অন্তত ৫০ জন আহত হন। হতাহতদের অধিকাংশই ছিলেন শিয়া মতাবলম্বী। ওই হামলার দায় স্বীকার করে দেশটিতে আরও হামলার হুমকি দিয়েছিল আইএস।

এসপিএ জানিয়েছে, ৩ হাজার মুসল্লি ধারণক্ষমতাসম্পন্ন একটি মসজিদে হামলার ষড়যন্ত্রসহ ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ষড়যন্ত্র নস্যাত করে দেয়া হয়েছে। চলতি বছর বিভিন্ন সময় এদের আটক করা হয়। এসব অভিযান পরিচালনা করতে গিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর ৩৭ জন সদস্য ও বেসামরিক লোকসহ ৬ জন জঙ্গী নিহত হয়। আটক হওয়া সন্দেহভাজন জঙ্গীরা বিস্ফোরক বেল্ট তৈরি ও আত্মঘাতী বোমা হামলাকারীদের প্রস্তুত করছিল। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে এরা বিভিন্ন মসজিদ, নিরাপত্তা বাহিনীর স্থাপনা, কূটনৈতিক মিশন ও সরকারী দফতরে হামলার ষড়যন্ত্র করছিল বলে সৌদি বার্তা সংস্থা উল্লেখ করেছে। সৌদি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আটককৃত জঙ্গীরা তাদের দলে লোক ভেড়ানোর জন্য অনেকগুলো ওয়েবসাইট চালাতো। এসব ওয়েবসাইটে জঙ্গীবাদে উদ্বুদ্ধ করে নিজেদের গ্রুপের সদস্য বাড়ানোর চেষ্টা করা হতো।