১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাগরিকায় টাইগার প্রোটিয়া প্রথম টেস্ট আজ

সাগরিকায় টাইগার প্রোটিয়া প্রথম টেস্ট আজ

মোঃ মামুন রশীদ, চট্টগ্রাম থেকে ॥ পরাজয় এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট! ভ্রুকুঞ্চিত হয়ে যাওয়ার মতো দুটি শব্দ। কারণ বর্তমান সময়ে যেন এ দুটি শব্দ ক্রমেই পরস্পরের থেকে দূরে সরতে সরতে বিপরীত মেরুতে অবস্থান নিচ্ছে। পেছনে আরেকটি বড় বিষয়, অসম্ভবকে সম্ভব করেছে টাইগার ক্রিকেটাররা। ওয়ানডেতে ১৯৮৬ থেকে শুরু করে ১৯৯৯ বিশ্বকাপে এক জয় ছাড়া পাকিস্তানের বিপক্ষে জয়ের রেকর্ড ছিল না, সিরিজ তো আরও দূরের কথা। ১৯৮৮ থেকে শুরু করে ভারতের বিপক্ষে তিন জয় আসলেও সিরিজ জেতা হয়নি। ১৯৯৯ বিশ্বকাপ থেকে শুরুর পর ২০০৭ বিশ্বকাপে জিতলেও দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। গত আড়াই মাসে এ তিন ক্রিকেট পরাশক্তিকেই মাথানত করতে বাধ্য করেছে টাইগাররা। তবে টেস্ট ক্রিকেট ভিন্ন মেজাজ, ভিন্ন আঙ্গিকের মর্যাদাপূর্ণ ফরমেটের খেলা। এখন পর্যন্ত এ ফরমেটে মাথা উঁচু করে তোলার মতো ধারাবাহিকতা দেখাতে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ। বর্তমানে টেস্ট বিশ্বের এক নম্বর দল দক্ষিণ আফ্রিকা। ওয়ানডেতে অসম্ভবকে সম্ভব করা বাংলাদেশ এবার কী এমন করবে! আজ থেকে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বৃষ্টির শঙ্কা নিয়ে মাঠে গড়াবে সিরিজের প্রথম টেস্ট। সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে মাঠে গড়াবে ম্যাচটি।

এবার প্রোটিয়াদের প্রথমবারের মতো ওয়ানডে সিরিজে হারিয়ে দেয়ার পর অবশ্য পুরো পাঁচদিন লড়াকু ক্রিকেট খেলারই প্রত্যয় জানিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। আর দক্ষিণ আফ্রিকা বাংলাদেশকে সমীহ করলেও প্রতিপক্ষ নিয়ে না ভেবে বরং জয়ের প্রত্যাশা নিয়েই নামার ঘোষণা দিয়েছে। কারণটা পরিষ্কার! দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট অঙ্গনে বাংলাদেশের অতীতটা আরও করুণ! আট টেস্ট খেলে সাত ম্যাচেই ইনিংস ব্যবধানের লজ্জা ললাটে লিপিবদ্ধ হয়েছে। অপরটিতেও আছে পরাজয়ের গ্লানি! সেটিই কিছুটা সম্মানের পরাজয় জুটেছিল। ২০০৮ এর ফেব্রুয়ারিতে ঢাকায় ৫ উইকেটে হারটাই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাংলাদেশের সেরা সাফল্য। আর সাগরিকা এমনিতে বাংলাদেশের জন্য পয়মন্ত ভেন্যু। কারণ এখানেই প্রথম টেস্ট জয়ের মাধ্যমে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজ জিতেছিল টাইগাররা। কিন্তু এরপর ওয়ানডেতে এখানে ধারাবাহিক সাফল্য আসলেও টেস্টে আসেনি। এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সাগরিকায় খেলা দুই টেস্টে চারদিনেই আত্মসমর্পণ করে ইনিংস ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ।

সাগরিকা! বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী এ ভেন্যুটিতে বৃষ্টির হানা লেগেই আছে। আর বাংলাদেশে এখন ভরা বর্ষা মৌসুম হওয়ার কারণে নিয়মিতই আছে বৃষ্টির দাপট। টানা তিনদিন বন্দরনগরী চট্টগ্রামও দেখেছে ঝরঝর বারিধারা। সোমবার ম্যাচের আগের দিনও সকালে বৃষ্টির কারণে মাঠে অনুশীলন করতে পারেননি মুশফিকরা, ইনডোরেই ব্যাটিং-বোলিং প্র্যাকটিস করতে হয়েছে। সেই সঙ্গে আকাশে কালো মেঘের ঘনঘটার ফাঁকে যেমন কদাচিৎ সূর্য উঁকি দিয়েছে আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া টেস্টের ভাগ্যাকাশেও তেমন শঙ্কা উঁকি দিয়ে গেছে। যদিও দুপুরের পর বৃষ্টি হয়নি এবং রোদও দেখা গেছে। কিন্তু সন্ধ্যায় সাগরিকার আকাশে ঘন কালো মেঘ দেখে উভয়দলের অধিনায়ক আশঙ্কা করছেন ম্যাচের দিন বৃষ্টির। তাছাড়া আবহাওয়া পূর্বাভাসও বলছে আজ সকাল থেকেই দমকা হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনা ৬০ ভাগ। সবমিলিয়ে বৃষ্টির কবলে পড়ে শুরুর দিন থেকেই বাধাগ্রস্ত হতে পারে চট্টগ্রাম টেস্ট। এ কারণে উইকেটের আচরণ নিয়ে সোমবার পর্যন্ত নিশ্চিত কিছু বলতে পারলেন না দুই দলের অধিনায়ক।

এমনকি আভাস দিতে পারলেন না কেমন হবে আজকের একাদশ! কারণ আবহাওয়া পরিস্থিতির ওপরই নির্ভর করবে অনেক কিছু। এ বিষয়ে মুশফিক বললেন, ‘উইকেট যদি খেয়াল করেন এখনও ৭০-৮০ শতাংশও ঠিক হয়নি। এটা খুব কঠিন হবে। কেমন উইকেট হতে পারে কাল দেখে আর আবহাওয়া কেমন হবে সেটা দেখে একাদশ করতে হবে। তবে ১৪ জনই খেলার জন্য প্রস্তুত। কোন চোট বা অন্য কিছু নেই। চার বা পাঁচ বোলার হতে পারে। আবার সাত ব্যাটসম্যান নিয়েও খেলতে পারি। কালকে টসের আগ পর্যন্ত পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে।’ সাগরিকা ভেন্যুর কিউরেটর জাহিদ রেজা বাবু অবশ্য সামান্য রোদ উঠলেই উইকেটের চিরচেনা চেহারা দেখা যাবে বলেই জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘রোদের উত্তাপ আবার উইকেটের অস্বাভাবিকতাকে শুকিয়ে দিয়ে মুশফিকুর রহীমের চাহিদাপত্র অনুসারে চেহারা পেয়েছে। উইকেটটা পাঁচদিনের জন্যই তৈরি হয়েছে। কিন্তু অতদিন টিকবে কি না ম্যাচ বলা কঠিন। তবে টস জয়ী দল বিনা বাক্য ব্যয়ে ব্যাটিং নেবে।’ অর্থাৎ বৃষ্টি হলে যে উইকেট বিচিত্র হয়ে যাবে, একটু রোদেই তা আবার পুরোপুরি রানের উইকেট হয়ে যাবে। সে কারণেই মুশফিকের মূল লক্ষ্য টানা ৫ দিন লড়াই করার এবং আগের চেয়ে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ভাল করার।

বৃষ্টির হামলা থাকার সম্ভাবনা থাকায় টসটাও চট্টগ্রাম টেস্টের জন্য অনেক বড় ফ্যাক্টর হয়ে গেছে উভয় দলের জন্য। কারণ বাংলাদেশের কোচ হাতুরাসিংহে জানালেন, ‘শেষ দু’দিন এখানে রিভার্স সুইং হতে পারে।’ খেলা হবে এসজি বলে, যেটাতে অনেক সাফল্য পেয়েছেন বাংলাদেশের তরুণ স্পিনার তাইজুল ইসলাম। আবার রিভার্স সুইংয়ের কথা মাথায় রাখলে পেসার রুবেল হোসেন দাবি রাখেন একাদশে অন্তর্ভুক্তির। গত মাসে ভারতের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে একজন পেসার নিয়ে খেলে সমস্যায় পড়া বাংলাদেশকে নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। তবে মোহাম্মদ শহীদ দারুণ কার্যকর ভূমিকা রেখেছেন টানা বোলিং করার সামর্থ্য দেখিয়ে। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের টেস্ট দলে ঠাঁই পেয়েছেন তরুণ পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। দীর্ঘদিন পর টেস্ট ক্রিকেটে বাঁহাতি কোন পেসার পাওয়াতে তাকে খেলানোর জন্যই মোটামুটি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে বাংলাদেশ দল। আর মুশফিক আভাস দিয়েছেন ফতুল্লা টেস্টে ভাল উইকেটকিপিং করার পাশাপাশি ব্যাটিংটাও ভাল করায় লিটন দাসের হাতেই গ্লাভস দেখা যাবে। সেক্ষেত্রে একাদশ গঠন নিয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি বলেই জানিয়েছেন মুশফিক।

দক্ষিণ আফ্রিকা অভাব বোধ করছে অন্যতম ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্সের। সন্তান সম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকার জন্য বিশ্রাম পেয়েছেন টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে থাকা এ ক্রিকেটার। তার অভাবটা পূরণ হওয়ার নয় বলে জানালেন প্রোটিয়া অধিনায়ক হাশিম আমলা। এছাড়া গ্রায়েম স্মিথ, আলভিরো পিটারসেন ও জ্যাক ক্যালিস পরবর্তী সময়ে এখন ব্যাটিংয়ে একটা ধারাবাহিক পরিবর্তনের হাওয়া দক্ষিণ আফ্রিকা দলে। তবে এরপরও টেস্ট সাফল্য নিয়ে তেমন চিন্তা নেই আমলার। এমনকি ওয়ানডে সিরিজ জেতা উজ্জীবিত বাংলাদেশ কেমন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবে তা নিয়েও ভাবছেন না। দলে আছেন বিশ্বের তিন ভয়ঙ্কর পেসার ডেল স্টেইন (র‌্যাঙ্কিং ১), ভারনন ফিল্যান্ডার (র‌্যাঙ্কিং ৭) ও মরনে মরকেল (র‌্যাঙ্কিং ৯)। এ কারণে নিজেদের সেরা নৈপুণ্য দেখানোটাকেই গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন আমলা। তিনি নিজেও ব্যাটিং র‌্যাঙ্কিংয়ে তিন নম্বরে এবং উপমহাদেশে দারুণ সাফল্য রয়েছে তার। সে কারণে নিজেদের সেরা খেলা উপহার দিয়ে জয়ের প্রত্যাশা করছেন তিনি। এখন শুধু অপেক্ষার পালা সাগরিকায় জয়ী হয় কে- বিশ্বের এক নম্বর টেস্ট দল দক্ষিণ আফ্রিকা, বদলে যাওয়া বাংলাদেশ না কি বৃষ্টি?

এই মাত্রা পাওয়া