২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সভাপতি ইয়াবাসহ আটক, জেলে প্রেরণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটুয়াখালী, ২০ জুলাই ॥ ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজীব আহসান এবং আরও পাঁচ ছাত্রদল নেতা-কর্মীকে ইয়াবা ও মদসহ আটক করেছে জেলার দুমকি থানা পুলিশ। পরে মাদক আইনের মামলায় আসামি করে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। সোমবার বিকেলে পটুয়াখালী সিনিয়র জুডিশিলায় ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক তারিক শামস এর আদালতে হাজির করলে আদালত সিডব্লিউ মূলে আসামিদের জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

এর আগে রবিবার রাত ১১টার দিকে লেবুখালী ফেরিঘাট থেকে তাকে আটক করা হয়। এ সময় আরও ৫ ছাত্রদল নেতা কর্মীকেও আটক করা হয়। পুলিশের দাবি আটক কৃত ছাত্রদল সভাপতির লাগেজ চেক করে ৪৫ পিস ইয়াবা ও এক বোতল মদ পাওয়া গেছে। অপর আটককৃতরা হলেন মেহেন্দিগঞ্জ ছাত্রদলের মোঃ সালাউদ্দিন, মোঃ রফিকুল ইসলাম, সৈয়দ জসিম উদ্দিন ও সাইফুল ইসলাম। এ সময় তাদের ব্যবহৃত একটি সাদা রঙ্গের প্রিমো ব্র্যান্ডের গাড়ি আটক করা হয় যার রেজিস্ট্রেশন নম্বর ঢাকা মেট্রো গ ২২-৫৬৮৮।

ছাত্রদলের সভাপতিকে আটকের পর সোমবার রাত ২টায় পটুয়াখালী পুলিশ অফিসে সাংবাদিকদের কাছে তাৎক্ষণিকভাবে প্রেস ব্রিফিং করেন পটুয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফয়েজ আহমেদ। আটককৃত ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সভাপতির বিরুদ্ধে পল্টন, শাহবাগ ও মতিঝিল থানায় মোট ২১টি মামলা রয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এ ছাড়া দুমকি থানার ওসি বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ছাত্রদল সভাপতিসহ আরও ৫ নেতাকর্মীকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছে।

এদিকে রাজীব হাসানের আইনজীবী ও জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট ওয়াহিদ সরওয়ার কালাম অভিযোগ করেন, ‘রাজনৈতিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করতে পুলিশ কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সভাপতির নামে এমন একটি মিথ্যা মালা দায়ের করেছে। এ ছাড়া সময় ক্ষেপণ করে আসামিদের আদালতে হাজির করায় সোমবার তাদের জামিন আবেদন করা যায়নি।’ মঙ্গলবার আসামীদের জামিন আবেদন করা হবে বলেও জানান তিনি। এদিকে যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।