২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জনপ্রশাসনের দায়িত্ব নিলেন সৈয়দ আশরাফ

  • সচিবালয় ফাঁকা

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ ঈদের পর প্রথম কর্মদিবসে সচিবালয় ফাঁকা থাকলেও নতুন অফিসে এসে দায়িত্ব বুঝে নিয়েছেন জনপ্রশাসনের নতুন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে তিনি মন্ত্রণালয়ে উপস্থিত হলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমত আরা সাদেক তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান। নতুন মন্ত্রী পরে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে গিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়ে অংশ নেন। সিনিয়র সচিব কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরীসহ কর্মকর্তারাও সভায় উপস্থিত ছিলেন। স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী থেকে মন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ার পর প্রথম দিন অফিসে এসে পুলিশ প্রশাসনের ‘সব ধরনের দুর্নীতি’ দূর করার প্রত্যয় জানালেন আসাদুজ্জামান খান কামাল। এদিকে প্রথম কর্মদিবসে প্রশাসনের কেন্দ্রবিন্দু সচিবালয় ও ঢাকার অফিসপাড়া ছিল ফাঁকা। চলছে ছুটির আমেজ।

নতুন মন্ত্রণালয়ে এসে সৈয়দ আশরাফ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এ সময় সকলকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী। তাই ১৫ আগস্ট থেকে আমাদের ৪০ দিনের কর্মসূচী থাকবে। কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমরা যে কাজই করি তা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে মাথায় রেখে করতে হবে। আমাদের কাজ হবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বেগবান করা এবং দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। তিনি বলেন, আমাদের বাস্তবায়নের ক্ষমতা বেড়েছে। কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, যোগ্যতা অনুযায়ী মূল্যায়ন করা হবে। সকলে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করবেন। দেশকে এগিয়ে নিতে আপনাদের অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে। আমি ’৯৬ সালেও দায়িত্ব পালন করেছি। দেশ সকল ক্ষেত্রে এগিয়েছে। সিভিল প্রশাসনও এগিয়েছে। সবাই মিলে টিম স্প্রিট বজায় রেখে দক্ষতা দেখানোর চেষ্টা করব। তিনি আরও বলেন, ব্যক্তিগতভাবে আমার বা আমার পরিবারের কোন চাহিদা নেই। দেশকে এগিয়ে নেয়ার জন্যই কাজ করব।

বিগত ৯ জুলাই আকস্মিকভাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে সরিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর সৈয়দ নজরুল ইসলামের ছেলে সৈয়দ আশরাফকে দফতরছাড়া করায় রাজনৈতিক অঙ্গনে শুরু হয় ব্যাপক আলোচনা। এ নিয়ে নানা গুঞ্জনের মধ্যে আশরাফ লন্ডন যাচ্ছেন বলেও শোনা যায়।

তবে গত ১৩ জুলাই শেখ হাসিনার সঙ্গে একান্তে কথা বলার পর লন্ডন যাত্রা বাতিল করে দেশেই থেকে যান আশরাফ। তার দুদিন পর তাকে দেয়া হয় জনপ্রশাসনের দায়িত্ব।

সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন করে জনপ্রশাসন করার পর আশরাফই এই দফতরের প্রথম পূর্ণ মন্ত্রী। টানা দ্বিতীয় মেয়াদে সরকার গঠনের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত দেড় বছর ধরে এ মন্ত্রণালয় নিজের হাতেই রেখেছিলেন। আর সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত এ এইচ এস কে সাদেকের স্ত্রী ইসমত আরা সাদেক এ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

সোমবার সচিবালয়ে নিজের দফতরে এসে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কামাল সাংবাদিকদের বলেন, কোন দুর্নীতি নেই এমন কথা বলব না। ছোটখাটো যেসব দুর্নীতি রয়েছে পুলিশের মধ্যে, তা দূর করা হবে। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এসে দ্বিতীয় তলায় নিজের পুরনো অফিসে যান কামাল। সেখানে কয়েক মিনিট কাটানোর পর চতুর্থ তলায় যান মন্ত্রীর দফতরে।

পরে সেখানে তিনি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় এবং মতবিনিময় করেন। এবার মানুষ ‘শান্তিপূর্ণভাবে’ ঈদ উদযাপন করেছে মন্তব্য করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “সিরাজগঞ্জের দুর্ঘটনা ছাড়া বাকি সবকিছু শান্তিপূর্ণ হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, সিলেটে শিশু সামিউল আলম রাজনের হত্যাকারী কামরুল ইসলামকে সৌদি আরব থেকে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া চলছে।

অফিসপাড়ায় ছুটির আমেজ ॥ ঈদের সরকারী ছুটি শেষ হলেও চেনারূপে ফেরেনি রাজধানী। প্রথম কর্মদিবসে প্রশাসনের কেন্দ্রবিন্দু সচিবালয় ও ঢাকার অফিসপাড়া ছিল ফাঁকা। চলছে ছুটির আমেজ। রাজধানীর ব্যাংকপাড়া হিসেবে পরিচিত মতিঝিলের বিভিন্ন অফিস এবং সচিবালয়ের বিভিন্ন দফতরে সোমবার অল্প সংখ্যক কর্মীকে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় আর খোশ-গল্প করেই সময় কাটাতে দেখা যায়। বিভিন্ন হাসপাতালেও ছিল একই চিত্র।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফ, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান, প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক, ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, বিদ্যুত প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু সকালে এসে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।