১৮ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সেলুলয়েডে চোখ রেখে কেটেছে ঈদের আনন্দময় মুহূর্ত

সেলুলয়েডে চোখ রেখে কেটেছে ঈদের আনন্দময় মুহূর্ত
  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঈদ মানেই অনাবিল আনন্দ। সারা বছরের কর্মব্যস্ত একঘেয়ে জীবনের মাঝে হই-হুল্লোড় আর উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠা তিনটি দিন। আর তাই তো আনন্দ উদযাপনের উৎস খুঁজে বেড়াতে উন্মুখ হয়ে থাকে নাগরিক মন। এক্ষেত্রে ঘরে বসে ছোট পর্দায় অসংখ্য টেলিভিশন চ্যানেলের নানা অনুষ্ঠানমালার সঙ্গে বড় পর্দায় সিনেমা দেখা বিনোদনের অন্যতম অনুষঙ্গ। বহুকাল ধরেই বাঙালীর ঈদ উৎসবের অন্যতম অনুষঙ্গ ছবি দেখা। আর প্রতি বছরই ঈদকে সামনে রেখে দর্শকের কথা বিবেচনায় নিয়ে মুক্তি দেয়া হয় নতুন ছবি। আর উৎসবের সঙ্গে যুক্ত হওয়ায় ছবিগুলোর লগ্নিকৃত বিনিয়োগ তুলে মুনাফার পরিধি বেড়ে যাওয়ায় প্রযোজক ও পরিচালকরা থাকেন স্বস্তিতে। এবারের ঈদ উৎসবে মুক্তি পেয়েছে ছয় নায়ক-নায়িকার তিন ছবি লাভ ম্যারেজ, অগ্নি-টু ও পদ্ম পাতার জল। আর সিনেমাপ্রেমী দর্শকরা বৃষ্টির বিড়ম্বনাকে পাশ কাটিয়ে সেলুলয়েডে চোখ রেখে কাটিয়েছে আনন্দময় ঈদমুহূর্ত। অন্ধকার ঘরে বসে নয়নজুড়ানো নানা দৃশ্য, সংলাপ, এ্যাকশন কিংবা নাচ-গানের ভেতর দিয়ে ছবির গল্পের ভেতরে প্রবাহিত হয়েছে সিনেমা অনুরাগীর মনোসংযোগ। যদিও এখন ঘরে বসেই অসংখ্য টিভি চ্যানেলে হরেক রকম নাটক, টেলিফিল্ম, সঙ্গীতানুষ্ঠান, তারকাদের আড্ডাসহ সিনেমা দেখার অবারিত সুযোগ রয়েছে। তবে বিজ্ঞাপনের যাতনায় নির্দিষ্ট কোন অনুষ্ঠান দেখতে গিয়ে দর্শককে হতে হয় চরম বিরক্ত। আবার অসংখ্য অনুষ্ঠান থাকলেও উৎকর্ষতার বিবেচনায় সব অনুষ্ঠান দেখা হয় না দর্শকের। তাই কিছুক্ষণ পরপর হাতের রিমোটটি চেপে চলে যেতে হয় চ্যানেল থেকে চ্যানেলে। এ কারণেই এখনও হারিয়ে যায়নি প্রেক্ষাগৃহে বসে চলচ্চিত্র দেখার আবেদন। কোন বিরতি ছাড়াই আনন্দে কেটে যায় কয়েকটি ঘণ্টা। নেই মনোযোগ হারানোর সুযোগ। শনি থেকে সোমবার পর্যন্ত ঈদ-উল-ফিতরের তিন দিন ঢাকাবাসীর অনেকেই নানা প্রেক্ষাগৃহে ঢুঁ মেরে ছবি দেখে নির্মল আনন্দে সময় কাটিয়েছেন। দিনভর শ্রাবণের জলধারা উপেক্ষা করেই রাজধানীর নানা সিনেমা হলে হাজির হয়েছে ঢাকাই ছবির দর্শকরা। ঈদ উপলক্ষে অন্য সময়ের চেয়ে দর্শক সমাগম ভাল হয়েছে। এবারের ঈদ উৎসবে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে তিনটি চলচ্চিত্র। সারাদেশের প্রায় আড়াইশটি প্রেক্ষাগৃহে চলছে এ ছবিগুলো। হার্ট বিটের ব্যানারে তাপসী ঠাকুর প্রযোজিত লাভ ম্যারেজ ছবিটি পরিচালনা করেছেন শাহিন সুমন। প্রেমকাহিনীনির্ভর চলচ্চিত্রটির মাধ্যমে পর্দায় হাজির হয়েছেন ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় জুটি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। শাহিন সুমন পরিচালিত ছবিটিতে ঢাকাইয়া ছেলের চরিত্রে রূপ দিয়েছেন শাকিব খান। জনপ্রিয় দুই নায়ক-নায়িকার পাশাপাশি চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করেছেন মিশা সওদাগর, আহমেদ শরীফ, মিজু আহমেদ ও সাদেক বাচ্চুর মতো ডাকসাইটে ভিলেনরা। এছাড়াও রয়েছে হালের সেরা কমেডিয়ান কাবিলার উপস্থিতি। তরুণ চিত্রনাট্যকার দেলোয়ার হোসেনের কাহিনী ও সংলাপে প্রেম, এ্যাকশন, সেন্টিমেন্ট, ড্রামাসহ ঢাকাই ছবির ফর্মুলামাফিক বিনোদনের সকল উপকরণ থাকায় দর্শককে আকৃষ্ট করেছে ছবিটি। ঢাকাসহ সারাদেশের রেকর্ডসংখ্যক ১২১টি প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি প্রদর্শিত হচ্ছে। বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র অগ্নি-টু। নায়িকাকেন্দ্রিক তুমুল এ্যাকশনধর্মী ছবিটি যৌথভাবে পরিচালনা করেছেন ইফতেখার চৌধুরী ও হিমাংশু। হালের ঢালিউডের আলোচিত নায়িকা মাহিয়া মাহিয়ার ক্যারিশমাটিক এ্যাকশনের সঙ্গে পর্দায় হাজির হয়েছেন কলকাতার নায়ক ওম। জাজ মাল্টি মিডিয়ার ব্যানারে আসা নায়িকানির্ভর এ্যাকশনধর্মী ছবিটি সারাদেশের ১০৬টি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে। মাহির তুমুল এ্যাকশন সিকোয়েন্সের সঙ্গে গানের এ্যারেঞ্জমেন্ট, বৈচিত্র্যময় লোকেশন এবং ওমের পরিশ্রমী অভিনয়ের কারণের দর্শককে বিষেষভাবে টানছে এই ছবিটি। ঈদের তৃতীয় চলচ্চিত্রটি হচ্ছে পদ্ম পাতার জল। এই ছবির মাধ্যমে প্রথম পরিচালনায় এসেছেন ব্যান্ডদল ভাইকিংসের ভোকাল তন্ময় তানসেন। আসিফুর রহমান প্রযোজিত প্রযোজনা সংস্থা ট্রাইপড স্টুডিওর ব্যানারে নির্মিত চলচ্চিত্রটিতে ইমনের নায়িকা হয়েছেন বিদ্যা সিনহা মীম। এছাড়াও বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান, নিমা রহমান ও অমিত হাসান। ছবির কাহিনী ও গান লিখেছেন বিশিষ্ট গীতিকার লতিফুল ইসলাম শিবলী। সঙ্গীতের সঙ্গে কবিতার ব্যবহার করা হয়েছে এই চলচ্চিত্রে।

সব মিলিয়ে গতানুগতিক প্রেমের গল্পের বাইরে ভিন্ন ঢংয়ে উপস্থাপনের চেষ্টা করা জয়েছে প্রেম-ভালবাসা নির্ভর ছবিটি। সারাদেশের ১৫টি প্রেক্ষাগৃহসহ কক্সবাজার, রাজশাহী, সিলেট, কুমিল্লা, নোয়াখালী, চাঁদপুর, চট্টগ্রামসহ ৮টি জেলার শিল্পকলা একাডেমির মঞ্চে প্রদর্শিত হচ্ছে বুকিং হয়েছে পদ্ম পাতার জল।

চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার পর্যন্ত এবারের ঈদের তিন মধ্যে ভাল দর্শক সাড়া পেয়েছে অগ্নি-টু ও লাভ ম্যারেজ। দুটি ছবির প্রতিই দর্শকরা আকৃষ্ট হয়েছে। আর এই দুই ছবির সফল রসায়নে ভূমিকা রেখেছে শাকিব খানের ঢাকাইয়া পোলার চরিত্রে অভিনয় এবং দীঘলদেহী নায়িকা মাহির ধুন্ধুমার এ্যাকশন। এ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিয়া আলাউদ্দীন বলেন, লাভ ম্যারেজ ও অগ্নি-টু ছবি দুটি দেশের সবগুলো প্রেক্ষাগৃহেই বেশ দর্শক টানছে। ঈদের ছুটি শেষ হলে দর্শক আরও বাড়বে এবং তখনই বোঝা যাবে কোন ছবিটি বেশি ব্যবসাসফল হবে।