১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গার্মেন্টস শ্রমিকদের ঘেরাও কর্মসূচী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ঈদের আগে ১৫ রমজানের মধ্যেই গার্মেন্টস সেক্টরের শ্রমিকদের বকেয়?া বেতন ও বোনাস প্রদানের নির্দেশ দিয়েছিলেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। এতে অধিকাংশ মালিকরাই সাড়া দেয়ায় এবার রাজধানীর পোশাক খাত ছিল যথেষ্ট শান্ত। কিন্তু এরপরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের মালিকের স্বেচ্ছাচারিতার শিকার হতে হয়েছে শ্রমিকদের।

এসব শ্রমিকরা গত এক সপ্তাহ ধরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট করছেন। তারা সোমবার বকেয়া বেতন-বোনাসের দাবিতে প্রধান কলকারখানা পরির্দশকের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচীর ঘোষণা দিয়েছেন। এতে অংশ নেন গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নেতারা। সোমবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে এ কর্মসূচী ঘোষণা করেন গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি এ্যাডভোকেট মন্টু ঘোষ। সোয়ান গার্মেন্ট শ্রমিকদের তিন মাসের বকেয়া বেতন এবং ঈদ বোনাসের দাবিতে গত ৮ দিন ধরে প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করে আসছেন বেতন-ভাতা বঞ্চিত শ্রমিক এবং ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের নেতারা।

এতে আজ (মঙ্গলবার) সকালে প্রধান কলকারখানা পরিদর্শকের কার্যালয় ঘেরাও এবং বৃহস্পতিবার ইসলামী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে ঘেরাও করা হবে বলেও কর্মসূচীতে বলা হয়। এছাড়া দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচী চলবে বলেও জানান সংগঠনের নেতারা।

এ সময় গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার বলেন, ১৩০০ শ্রমিকের বেতন-বোনাসের ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরে যাব না। ঈদের আগ থেকে আমরা দাবি আদায়ের আন্দোলন করে আসছি। সরকার বা বিজিএমইএ কেউ আমাদের কথায় কর্ণপাত করছে না।

দেশে শান্তির প্রত্যাশা এরশাদের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঈদ-উল-ফিতরে শুভেচ্ছা বিনিময়ে বাংলাদেশে শান্তি প্রত্যাশা করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ঈদের দিন শনিবার রাজধানীর বনানীতে নিজের কার্যালয়ে সবার সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

এ সময় এরশাদ বলেন, দেশের মানুষ সংঘাত নয়, শান্তি চায়। আমরা জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতি চাই না। একটি শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ দেখতে চাই। জাতীয় পার্টি ‘সন্ত্রাসের রাজনীতি’ করে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। সন্ত্রাসমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সবাইকে জাতীয় পার্টিতে যোগ দেয়ার আহ্বান জানান সাবেক এই স্বৈরশাসক।

গুলশান আজাদ মসজিদে ঈদের নামাজ পড়ার পর সকাল ১১টায় বনানী কার্যালয়ে যান এরশাদ। কিছুক্ষণ পরই আসেন বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির সভাপতিম-লীর সদস্য রওশন এরশাদ। এ সময় জাতীয় পার্টির বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা তাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে দলের মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সভাপতিম-লীর সদস্য জি এম কাদের, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।