২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ব্যাটিং-বোলিংয়ে প্রত্যাশিত নৈপুণ্য চান মুশফিক

ব্যাটিং-বোলিংয়ে প্রত্যাশিত নৈপুণ্য চান মুশফিক

স্পোর্টস রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে ॥ গত চার ওয়ানডে সিরিজে দুর্দান্ত খেলে অবিস্মরণীয় নৈপুণ্য দেখিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এর পেছনে দলগত নৈপুণ্যটাই বড় ভূমিকা রেখেছে। ব্যাটসম্যানরা বিশেষ করে দারুণ খেলেছেন। তবে টেস্ট ক্রিকেটে কোনভাবেই এগোতে পারছে না টাইগাররা। কারণ ওয়ানডের অর্জনটা এবং নৈপুণ্যটা টেস্টে দেখাতে পারছে না ব্যাটসম্যানরা। আর এবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পাঁচদিনের টেস্ট ম্যাচে সেটাই প্রত্যাশা করছেন বাংলাদেশ টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। তাছাড়া পাকিস্তান ও ভারতের সঙ্গে টেস্ট ড্র এবং গত আট মাসে দল যেভাবে খেলেছে সেজন্য বেশ আত্মবিশ্বাসী মুশফিক প্রোটিয়াদের বিপক্ষে টেস্টে ভাল করার ক্ষেত্রে। কিন্তু সে জন্য পাঁচদিন ধারাবাহিকভাবে ভাল খেলা জরুরী। আর এটাই মূল লক্ষ্য দলের বলে দাবি জানালেন মুশফিক। সোমবার সকালে অনুশীলন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

খুব ভাল কয়েকটা সিরিজ কাটিয়েছে বাংলাদেশ দল। টানা চার ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে ঘরের মাঠে। মাঝে বিশ্বকাপেও দাপুটে ক্রিকেট খেলেছেন খেলোয়াড়রা। তবে টেস্ট ক্রিকেটে এখনও যেন আগের বেহাল চিত্রটাই আছে। তবে পাকিস্তানের সঙ্গে একটি এবং ভারতের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট ড্র করে আত্মবিশ্বাসী ক্রিকেটাররা এখন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও ভাল করার ক্ষেত্রে আশাবাদী। এমন প্রত্যয়ই জানালেন মুশফিক। তিনি বলেন, ‘খুব ভাল একটা সিরিজ আমরা কাটিয়েছি। আপনারা যদি দেখেন কেবল শেষ সিরিজটা নয়, গত আট মাস ধরে আমরা ভাল ক্রিকেট খেলছি। শুধু ওয়ানডেতে নয়, টেস্টেও ভাল ক্রিকেট খেলছি। গত কয়েক মাসে আমরা কয়টা টেস্ট খেলেছি তারমধ্যে তিন টেস্ট জিতেছি, হতে পারে জিম্ব^াবুইয়ের বিপক্ষে। তাদের ২০ উইকেট কিন্তু আমাদের নিতে হয়েছে। তারপর পাকিস্তানের সঙ্গে ড্র করা, ভারতের সঙ্গে ড্র করা হয়ত- এখানে বৃষ্টির একটা ভূমিকা ছিল। আর পাকিস্তানের বিপক্ষে আমরা যেখান থেকে কামব্যাক করেছি, এটা ভাল। আমার মনে হয় গত আট মাসে আমরা ভাল ক্রিকেট খেলেছি যেটা আমাদের আত্মবিশ্বাস দিচ্ছে যা এই সিরিজে ভাল শুরুর জন্য খুব সহায়ক হবে। আর যে জায়গা থেকে ফিরেছি আর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এ রকম এর আগে করা হয়নি, সবাই আত্মবিশ্বাসী আছে। যদিও এটা ডিফারেন্ট বল গেম। আমাদের খেলোয়াড়রা খুব ভাল ছন্দে আছে, এটা আমাদের জন্য দারুণ সুযোগ।’ টেস্ট কিংবা ওয়ানডে যে কোন ফরমেটের ক্রিকেটে ভাল করার জন্য ব্যাটিং-বোলিং উভয় বিভাগে ভাল ছন্দ রাখা জরুরী। দলের ক্রিকেটাররা ওয়ানডেতে যেভাবে নৈপুণ্য দেখাচ্ছেন মুশফিক এখন চাইছেন সেটা যেন টেস্টেও থাকে। তিনি বলেন, ‘যে কোন ধরনের ক্রিকেটে একটা দলের ব্যাটসম্যান-বোলাররা যদি ছন্দে থাকে সেই দলের ভাল করার সম্ভাবনা বেশি থাকে। আমাদের কষ্ট করে পাঁচদিন ধারাবাহিক ভাল ক্রিকেট খেলতে হবে, যা কি না আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। এটা আমাদের জন্য একটা বড় চ্যালেঞ্জ। যে কোন কিছু অর্জন করা আর সেটাকে ধরে রাখা খুব কঠিন। এটাই আমাদের বাংলাদেশ দলের জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ। আমরা ওয়ানডেতে এত ভাল করছি, প্রায় একই খেলোয়াড় নিয়ে টেস্টে কেন রূপান্তরিত হয় না। এই বছর বাংলাদেশ যেভাবে খেলছে তাতে আমি খুব খুশি। আমাদের ব্যাটিং বিভাগ যদি প্রয়োগ অনুযায়ী ক্লিক করতে পারে আর মাঝখানে ভাল খেলতে পারি তাহলে এই টেস্টেও আমরা ভাল খেলতে পারি। এটা বাংলাদেশের জন্য সম্ভব।’

দলের মধ্যে বর্তমানে ফিটনেস বা ইনজুরি সমস্যা নেই। সে কারণে কন্ডিশন ও উইকেট বিবেচনায় সুবিধা মতো সমন্বয় নিয়ে নামার সুযোগ রয়েছে বাংলাদেশের। এ বিষয়ে মুশফিক বলেন, ‘আমরা যেন নিয়মিত পাঁচদিন নিয়ন্ত্রণ করতে পারি এরপর ফল কি হয় দেখা যাবে। পাঁচদিন যেন ধারাবাহিক ভাল ক্রিকেট খেলতে পারি এটাই আমাদের মূল লক্ষ্য। উইকেট যদি খেয়াল করেন এখনও ৭০-৮০ শতাংশও ঠিক হয়নি। এটা খুব কঠিন হবে। কেমন উইকেট হতে পারে কাল দেখে আর আবহাওয়া কেমন হবে সেটা দেখে একাদশ করতে হবে। তবে ১৪ জনই খেলার জন্য প্রস্তুত। কোন চোট বা অন্য কিছু নেই। চার বা পাঁচ বোলার হতে পারে। আবার সাত ব্যাটসম্যান নিয়েও খেলতে পারি। কালকে টসের আগ পর্যন্ত পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে। ওদের বোলিং আক্রমণ নিয়ে কিন্তু কোন সন্দেহ নেই দারুণ শক্তিশালী, যে কন্ডিশনেই হোক। কি কি পরিকল্পনা ওরা করতে পারে সেই অনুযায়ী আমরা হোমওয়ার্ক করছি। তা প্রয়োগ করার চেষ্টা করব।’