২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাবেক স্ত্রীকে চুরির অপবাদ ম্যারাডোনার

সাবেক স্ত্রীকে চুরির অপবাদ ম্যারাডোনার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিতর্ক নিত্যসঙ্গী দিয়াগো ম্যারাডোনার। কিছুতেই এ থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখতে পারেন না সর্বকালের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার। নিজের স্ত্রী-সন্তান নিয়েই কয়েকবার ঝামেলায় পড়তে হয়েছে ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ককে। এবার অবশ্য ঝামেলায় পড়েছেন সাবেক স্ত্রীকে নিয়ে। ছয় মিলিয়ন ডলার হারিয়ে যাওয়ায় সাবেক স্ত্রী ক্লডিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন ম্যারাডোনা। এ জন্য আগামী সপ্তাহে আদালতেও যাচ্ছেন সর্বকালের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার। নন্দিত-নিন্দিত ম্যারাডোনার ব্যাংক এ্যাকাউন্ট থেকে গায়েব হয়ে গেছে প্রায় ছয় মিলিয়ন ডলার। আর এ জন্য সাবেক স্ত্রী ক্লডিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তিনি। আর্জেন্টিনার সাবেক অধিনায়ক ও কোচের ধারণা, তার অর্থ আত্মসাৎ করেছেন ক্লডিয়াই। অর্থাৎ সাবেক স্ত্রীর বিরুদ্ধে ম্যারাডোনা অর্থ চুরির অভিযোগই করেছেন! মঙ্গলবার আদালতে এ বিষয়ে শুনানি হওয়ার কথা আছে। ওই সময় স্ত্রী ক্লডিয়া ও তাদের দুই মেয়ে ডালমা ও জিয়ান্নাকেও উপস্থিত থাকতে হবে আদালতে।

অবশ্য ম্যারাডোনার দুই মেয়ে জোর গলাতেই বলছেন, তাদের মা এমন কাজ করতেই পারেন না। ডালমা তো তার মাকে পৃথিবীর অন্যতম সেরা বলে অভিহিত করেন। আর্জেন্টিনার এক রেডিওকে দেয়া সাক্ষাতকারে ডালমা বলেন, আমার মা পৃথিবীর সবচেয়ে সৎ মানুষ। আমি এটা নিশ্চিত করেই বলছি। এই বিষয়টাকে এভাবে আদালত পর্যন্ত টেনে নিয়ে যাওয়াতেও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তিনি। বলেন, সংবাদমাধ্যমের জন্য এটা খুবই ভাল বিষয়। কিন্তু আমাদের জন্য বিষয়টা খুবই বেদনাদায়ক। এর আগে সন্তান নিয়েও কয়েকার ঝামেলায় জড়াতে হয় ম্যারাডোনকে। ২০১৩ সালে এ কারণে সাবেক প্রেমিকা ভেরোনিকা ওজেদার বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দিয়েছিলেন ম্যারাডোনা। ভেরোনিকা ওজেদা আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পুত্র দিয়াগো ফার্নান্ডোর ছবি টুইটারে পোস্ট করায় মামলাটি করেছিলেন ম্যারাডোনা। ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে ওজেদা জন্ম দেন ফার্নান্ডোর। আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যমের খবর ছিল, এই সন্তান কিছুতেই চাচ্ছিলেন না ম্যারাডোনা। এ কারণেই ওজেদার সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। কিন্তু তাতে কোন সমস্যাই হয়নি বর্ণিল চরিত্রের ম্যারাডোনার। জুটিয়ে নেন নতুন প্রেমিকা। নাম রোসিও ওলিভা। সে সময় আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের উদ্ধৃতিতে জানা যায়, ভেরোনিকা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে তাদের সন্তান ফার্নান্ডোর ছবি প্রকাশ করেন। এতে কথার বরখেলাপ করেন ওজেদা। কেননা সন্তানের ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষার জন্য ম্যারাডোনা আদালতের কাছে আবেদন করেছিলেন। তাতে আদালত প্রথমে ১৫ দিন করলেও পরে সন্তানের ছবি প্রকাশের উপর এক বছরের নিষেধাজ্ঞা জারি করে। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ওজেদা ছবি প্রকাশ করায় মামলা করেন ম্যারাডোনা।

এবার ম্যারাডোনা মামলা করেছেন তার অর্থ আত্মসাৎ হওয়ায়। কিংবদন্তি এই ফুটবলারের শিকার এবার তার সাবেক স্ত্রী।