২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হাসপাতালে কোচ ডি ক্রুইফ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক’দিন আগেই কিডনিতে অস্ত্রোপচার হয়েছিল লোডভিক ডি ক্রুইফের। সোমবার হাসপাতাল ছেড়ে নিজের বাসায় ফিরে গেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের এই ডাচ্ কোচ। তবে হাসপাতাল ছাড়লেও আবার ক’দিন পরেই তাকে আবারও ফিরে আসতে হবে হাসপাতালে। কেননা এখনও বাকি রয়ে গেছে আরেকটি অস্ত্রোপচার। ফেসবুকে নিজের দেশ হল্যান্ড থেকে ক্রুইফ জানিয়েছেন, দ্বিতীয় অস্ত্রোপচারের জন্য আগামী ২৮ জুলাই আবারও হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে তাকে। ওইদিনই তার অপারেশন হবে। এবারের অস্ত্রোপচারটি হবে তার মূত্রনালিতে।

ফিফা বিশ্বকাপ ও এএফসি এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বের পরের ম্যাচগুলোর প্রস্তুতির জন্য আগামী ১ আগস্ট থেকে আবারও জাতীয় দলের দায়িত্ব নেয়ার কথা ছিল ক্রুইফের। কিন্তু দ্বিতীয় অস্ত্রোপচারের কারণে নির্ধারিত সময়ে ঢাকায় আসতে পারছেন না তিনি। এ প্রসঙ্গে ক্রুইফের ভাষ্য যত দ্রুত সম্ভব ঢাকা এসে মামুনুলদের দায়িত্ব নেবেন। সবাইকে মিস করছেন তিনি।

ক্রুইফের এই শারীরিক সমস্যা পরিলক্ষিত হয়েছিল বাংলাদেশে থাকতেই। কিরগিজস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের আগেই একবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) প্রথমে তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল হাসপাতালে এবং পরে রাজধানীর একটি বেসরকারী হাসপাতালে পরীক্ষা করানোর পর দেখা যায় তার কিডনিতে পাথর আছে। বাফুফে চেয়েছিল ঢাকাতেই তার কিডনির অস্ত্রোপচার করাতে। কিন্তু বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচ দুটি কাছাকাছি সময়ে অনুষ্ঠিত হবে বলে রাজি হননি ক্রুইফ। ব্যথানাশক ওষধ সেবন করেই পালন করেন কিরগিজস্তান ও তাজিকিস্তানের বিপক্ষে দুই ম্যাচের দায়িত্ব। দেশে ফেরার পর কিডনির সমস্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় দেরি না করে অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেন ক্রুইফ।

বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের ১৭তম বিদেশী কোচ ক্রুইফ। তার অধীনে জাতীয় ফুটবল দল ভারত, নেপাল, মালয়েশিয়ার বিপক্ষে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ এবং এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপ, সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ এবং এশিয়ান গেমসে অংশ নেয়। কোনটিতেই তার দল আশাতীত রেজাল্ট করতে পারেনি। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশকে ১৬৫ থেকে ১০০-১২০-এর মধ্যে নিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন ক্রুইফ। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ছিল ক্রুইফদের মূল এ্যাসাইনমেন্ট, সেখানে সপ্তম হয় বাংলাদেশ। নানা জল্পনা-কল্পনা শেষে গত জুনে বাফুফে আরও এক বছরের জন্য চুক্তির মেয়াদ বাড়ায় ক্রুইফের ক্ষেত্রে। অতীতে দেখা গেছে জাতীয় দলের বেশিরভাগ বিদেশী কোচই দলের খেলোয়াড়দের কাছে সেভাবে জনপ্রিয় হতে পারেননি, যেটা পেরেছেন ক্র্ইুফ। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের ইতিহাসে তিনিই প্রথম বিদেশী কোচ, যিনি দ্বিতীয় দফায় কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন। গত ৮ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক ফুটবল আসর ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ’-এ তার অধীনে খেলে রানার্সআপ হয় স্বাগতিক বাংলাদেশ। সম্প্রতি ক্রুইফকে খ-কালীন কোচ হিসেবেই দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছিল। এভাবেই বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ এবং এএফসি অনুর্ধ ২৩ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বে দায়িত্ব পালন করেন ক্রুইফ। এখন দেখার বিষয়, সুস্থ হয়ে আবারও কবে মামুনুলদের হাল ধরতে ঢাকায় ফেরেন এই ডাচ্ম্যান।

তেভেজের রঙিন ফেরা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রায় এক যুগ পর স্বদেশী ক্লাব বোকা জুনিয়র্সে ফিরেছেন কার্লোস তেভেজ। দ্বিতীয়বার চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পর আর্জেন্টিনা প্রিমিয়ার ডিভিশনে বোকার হয়ে প্রথম ম্যাচও খেলেছেন তারকা এই ফরোয়ার্ড। তার ফেরার ম্যাচে জয় পেয়েছে দল। বোকা ২-১ গোলে হারায় কুইলমেসকে। প্রত্যাবর্তন তাই রঙিন হয়েছে তেভেজের।

বুয়েনস ইয়ার্সের দ্য বোম্বেনেরো স্টেডিয়ামে তেভেজকে বরণ করে নিতে জড়ো হয়েছিলেন হাজার হাজার ভক্ত-সমর্থক। উপস্থিত ছিলেন কিংবদন্তি দিয়াগো ম্যারাডোনাও। গ্যালারিতে বসে তিনি সাবেক শিষ্যকে উৎসাহিত করেন। এ সময় ম্যারাডোনা প্রদর্শন করেন একটি ব্যানার। সেখানে লেখা ছিলÑ ‘বোকায় ফিরে আসায় তোমাকে ধন্যবাদ।’

গোল না পেলেও ম্যাচে বোকার জয়ের নায়ক তেভেজই। বোকার হয়ে গোল করেন ফরোয়ার্ড সেবাস্টিয়ান প্যালাসিওস ও তরুণ ফুটবলার জোনাথন কায়েরি। কিছুদিন আগে ইতালির জুভেন্টাস থেকে শৈশবের ক্লাব বোকায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তেভেজ।