২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এগিয়ে গেল পাকিস্তান

  • দর্শক হাঙ্গামার তৃতীয় ওয়ানডেতে ১৩৫ রানের বড় হার লঙ্কানদের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ভদ্র বলে উপমহাদেশীয় দর্শকের মধ্যে শ্রীলঙ্কানদের দারুণ একটা ইমেজ ছিল। তাতে কিছুটা হলেও কালিমা পড়ল। দল হারলে কারই বা মাথা ঠিক থাকে! ১-১এ সমতার পর তৃতীয় ওয়ানডেটা ছিল দু’দলের জন্য এগিয়ে যাওয়ার লড়াই। ৩১৬- এর জবাবে এক পর্যায়ে ৩০.৪ ওভারে ১৪৪ রানেই যখন ৭ উইকেট হারালে কার্যত স্বাগতিকদের ম্যাচ হাত ছাড়া সেখানেই, তখনই কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামের গ্যালারি থেকে ধৈর্যহার সমর্থকদের ইট-পাটকেল! ২০ মিনিট বন্ধ থাকার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হলে অবশ্য জয় পেতে কষ্ট হয়নি পাকিদের। ৪১.১ ওভারে স্বাগতিকদের ১৮১ রানে গুটিয়ে দিয়ে ১৩৫ রানের বিশাল জয়ে সিরিজে ২-১এ এগিয়ে যায় আজহার আলির দল।

এগিয়ে যাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে রবিবার টস জিতে ব্যাটিং নেয়া পাকিস্তান ৪ উইকেটে ৩১৬ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে। জবাবে ৩৪ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রান সংগ্রহ করে হারের আগেই হার দেখা শ্রীলঙ্কা। এটা বোধ হয় মেনে নিতে পারছিলেন না কলম্বোর স্বাগতিক সমর্থকেরা। উত্তেজিত সমর্থকদের কারণে দুই দেশের খেলোয়াড়েরা ড্রেসিং রুমে ফিরতে বাধ্য হন। এ অবস্থায় পুলিশ স্টেডিয়াম থেকে দর্শকদের মাঠের বাইরে বের করে দেয়। এ সময় তারা মাঠের বাইরে থেকে মাঠের ভেতর পাথর ছুড়তে থাকে! মাঠে থাকা এক পুলিশ বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘মাঠের একজন খেলোয়াড় তার পাশে ঢিল পড়ার অভিযোগ করলে আম্পায়ার খেলা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হন।’

খবরে আরও জানানো হয়, খেলোয়াড়দের কোন ক্ষতি হয়নি। বন্ধ হওয়ার ২০ মিনিটি পর আবার খেলা শুরু হয়। তবে কাউকে গ্রেফতারের খবর পাওয়া যায়নি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পাথর নিক্ষেপের ফলে স্টেডিয়ামের বাইরে থাকা অনেক যানবাহনেরই ক্ষতি হয়েছে। বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায়ের পর ঘরের মাটিতে পাকিস্তানের কাছে টেস্ট সিরিজে ২-১ ব্যবধানে হারে এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের দল। দ্বিতীয় ওয়ানডে জিতে ঘুরে দাঁড়ালেও তৃতীয়টিতে হেরে ফের পিছিয়ে পড়ে লঙ্কানরা। দুই গ্রেট মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারার অবসরের পর ঠিক নিজেদের ছন্দটা খুঁজে পাচ্ছে না ১৯৯৬Ñ এর বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। বল হাতে এদিন কেউই সুবিধা করতে পারেননি। ফলে নির্ধারিত ৫০ ওভারে বড় স্কোর পায় প্রতিপক্ষ। পাকিস্তানের তিন শতাধিক রানের রূপকার সরফরাজ আহমেদ ও মোহাম্মদ হাফিজ দুজনেই তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। ম্যাচের নায়ক সরফরাজ ৭৪ বলে ৭৭ ও হাফিজ ৬৪ বলে ৫৪ রান করেন। বাকিরাও ভাল ব্যাটিং করেছেন। ওপেনার আহমেদ শেহজাদ ৪৪, অধিনায়ক আজহার ৪৯, শেষদিকে শোয়েব মালিক ২৯ বলে অপরাজিত ঝড়োগতির ৪২ রানের ইনিংস খেলেন। লঙ্কানদের হয়ে ১টি করে উইকেট নেন লাসিথ মালিঙ্গা ও সচিথ পাথিরানা। জবাবে শ্রীলঙ্কার হয়ে এক লাহিরু থিরিমান্নে (৬৭ বলে ৫৬) ছাড়া আর কেউ দাঁড়াতেই পারেননি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২০ রান ওপেনার কুশল পেরেরার। অভিজ্ঞ তিলকারতেœ দিলশান ১৪, অধিনায়ক এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ৪ রান করে আউট হন। পাকিস্তানের হয়ে ইয়াসির শাহ ৪, আনোয়ার আলি ও ইমাদ ওয়াসিম নেন দুটি করে উইকেট। ১৩৫ রানের হিসেবে শ্রীলঙ্কার মাটিতে পাকিস্তানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জয়ের নজির। ঠিক একইভাবে ৩১৬ তাদের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

একই ভেন্যুতে চতুর্থ ওয়ানডে বুধবার। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখতে এই সিরিজটা জিততেই হবে আজহার আলির নেতৃত্বাধীন পাকিস্তানকে।

স্কোর ॥ পাকিস্তান ৩১৬/৪ (৫০ ওভার; সরফরাজ ৭৭, হাফিজ ৫৪, আজহার ৪৯, শেহজাদ ৪৪, মালিক ৪২*, রিজোয়ান ৩৫*; পাথিরানা ১/৪৯, মালিঙ্গা ১/৮০)

শ্রীলঙ্কা ১৮১/১০ (৪১.১ ওভার; থিরিমান্নে ৫৬, কুশল ২০, চান্দিমাল ১৮, পাথিরানা ১৯, দিলশান ১৪; ইয়াসির ৪/২৯, আনোয়ার ২/২৪, ইমাদ ২/২৮)

ফল ॥ পাকিস্তান ১৩৫ রানে জয়ী

ম্যাচসেরা ॥ সরফরাজ (পাকিস্তান)

সিরিজ ॥ পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডেতে পাকিস্তান ২-১এ এগিয়ে।