২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেষ টি২০তে ভারতকে ১০ রানে হারাল জিম্বাবুইয়ে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জিম্বাবুইয়ে সফরের শেষটা ভাল হলো না ভারতের। ওয়ানডতে প্রতিপক্ষকে ৩-০তে ‘হোয়াইটওয়াশ’ করলেও দুই ম্যাচ টি২০ সিরিজের শেষটিতে ১০ রানে হেরে গেছে ক্রিকেটের মোড়লরা। স্বাগতিকদের ৭ উইকেটে তোলা ১৪৫ রানের জবাবে ৯ উইকেটে ১৩৫Ñএ থেমে যায় অজিঙ্কা রাহানের দল। ৫১ বলে ৬৭ রানের চমৎকার ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা জিম্বাবুইয়ান ওপেনার চামু চিভাবা। অপরাজেয় থেকে সফর শেষ করতে পারল না রাহানে বাহিনী। প্রায় জয়ের মুঠোয় থাকা শেষ টি২০তে অল্পের জন্য হেরে গেল সাবেক চ্যাম্পিয়নরা। দলটির সঙ্গে অবশ্য ‘চ্যাম্পিয়ন’ শব্দটা যায় না। কারণ মহেন্দ্র সিং ধোনি-বিরাট কোহলিসহ প্রায় সব প্রতিষ্ঠিত তারকা ক্রিকেটারদের ছাড়াই এই সফরটি শেষ করল তারা, নেতৃত্ব দিলেন রাহানে। অন্যদিকে পুরো সিরিজে ব্যর্থতার পর ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক সিকান্দার রাজার হাত ধরে সান্ত¡নার জয় পেল জিম্বাবুইয়ে। টেস্ট, ওয়ানডে, টি২০Ñ তিন ভার্সন মিলিয়ে নিজেদের শেষ ১২ ম্যাচে এটি তাদের প্রথম জয়। হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে ম্যাচ শুরুর ঠিক আগে ওয়ার্মআপ করতে গিয়ে চোটে পড়েন নিয়মিত অধিনায়ক এলটন চিগম্বুরা, পরিবর্তে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রাজা।

সিরিজ জুড়ে যিনি ব্যাট হাতে একাই লড়ে এসেছেন, সেই চিভাবার হাফ সেঞ্চুরি না হলে রাজার নেতৃত্বের স্বাদটা তোতেই হতে পারত। তরুণ ওপেনার দলের হয়ে ব্যাট হাতে একাই কাজের কাজটি করে দেন। ৫১ বলে তার ৬৭ রান বাদ দিলে সর্বোচ্চ স্কোরার হ্যামিল্টন মাসাদকাদজার ১৯ রান কেবল চোখে পড়ার মতো। ‘টি২০ স্পেশালিস্ট’ বোঝাই টিম ইন্ডিয়ার জন্য ১৪৫/৭ মোটেই ভয়ঙ্কর স্কোর নয়। প্রথম ওভারে অধিনায়ক রাহানে রানআউট হলেও তাই খুব আতঙ্ক তৈরি করেনি। বিশেষ করে যখন ক্রিজে ছিলেন রবিন উথাপ্পা। কলকাতা নাইটরাইডার্সের হয়ে আইপিএলের অন্যতম ধারাবাহিক এই ব্যাটসম্যান এখানেও দুই ম্যাচে আলো ছড়িয়েছেন। আগের ম্যাচে ৩৯-এর পর এদিন ২৫ বলে ৪২ রান কের ভারতকে প্রায় জয়ের রাস্তায় তুলে নিয়েছিলেন। তাকে বাদ দিলে টপঅর্ডারে আর কেউই সুবিধা করতে পারেননি। মুরলি বিজয় (১৩), মানীষ পা-ে (০) কেদার যাদব (৫) সবাই ব্যর্থ। ৯ ওভারের মধ্যে ৬৯ রানে ৫ উইকেট পড়ার পর আশার আলো দেখাছিলেন স্টুয়ার্ট বিনি (২৪) ও সঞ্জু স্যামসন (১৯)। কিন্তু তারও বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি। ভুবনেশ্বর কুমার (৯) আর অক্ষর প্যাটেল (১৩) মরিয়া চেষ্টা করলেও শেষ রক্ষা হয়নি। ‘১৪৫ অবশ্যই ধরা ছোঁয়ার মধ্যে ছিল। কিন্তু জিম্বাবুইয়ে দারুণ বোলিং ও ফিল্ডিং করেছে। আমরা ভাল ব্যাটিং করিনি। পরপর উইকেট পড়ে যাওয়ায় ক্রমশ চাপ বাড়ছিল। শেষ ম্যাচে হারাটা হতাশাজনক। তবে দলের সার্বিক পারফর্মেন্সে আমি খুশি।’ অন্যদিকে জয়ের পর ভারপ্রপ্ত রাজার প্রতিক্রিয়া, ‘গোটা সিরিজে বেসিক কিছু ভুল আমাদের ভুগিয়েছে। কিন্তু ভাল লাগছে, শেষ ম্যাচে অন্তত সেগুলো শুধরে নিতে পেরেছি।’

স্কোর ॥ জিম্বাবুইয়ে ১৪৫/৭ (২০ ওভার; চিভাবা ৬৭, মাসাকাদজা ১৯, উইলিয়ামস ১৭; ভুবনেশ্বর ২/২৬, বিনি ১/১৪, অক্ষর ১/২৩), ভারত ১৩৫/৯ (২০ ওভার; উথাপ্পা ৪২, বিনি ২৪, স্যামসন ১৯; ক্রেমার ৩/১৮)

ফল ॥ জিম্বাবুইয়ে ১০ রানে জয়ী। ম্যাচ ও সিরিজসেরা ॥ চিভাবা (জিম্বাবুইয়ে)।

সিরিজ ॥ দুই ম্যাচ টি২০ ১-১এ অমীমাংসিত।