২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইরান ধরনের পরমাণু চুক্তিতে আগ্রহী নয় উঃ কোরিয়া

উত্তর কোরিয়া বলেছে, তারা ইরান ধরনের পরমাণু চুক্তিতে আগ্রহী নয়। দেশটি জোর দিয়ে বলেছে, তারা ইতোমধ্যেই একটি পরমাণু শক্তিধর রাষ্ট্র। ইরানের সঙ্গে পশ্চিমাদের ঐতিহাসিক পরমাণু চুক্তির মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে উত্তর কোরিয়া এ মন্তব্য করল। দেশটির সরকারী বার্তা সংস্থা কেসিএনএ’র খবরে এ কথা বলা হয়। খবর এএফপির।

মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেন, পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচী বাতিল কিংবা বন্ধ করার বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য বৈঠকে বসতে তারা আগ্রহী নয়। এছাড়া ইরানের পরমাণু চুক্তির সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার পরিস্থিতি মিলিয়ে দেখাটাও অযৌক্তিক।

কারণ দুই দেশের পরিস্থিতি সম্পূর্ণ ভিন্ন। তিনি বলেন, নামে ও বাস্তবে উত্তর কোরিয়া একটি পরমাণু রাষ্ট্র এবং পরমাণু রাষ্ট্র হিসেবেই এর গুরুত্ব রয়েছে।

কলম্বিয়ায় ফার্ক গেরিলাদের অস্ত্রবিরতি

কলম্বিয়ায় ফার্ক বিদ্রোহীদের অস্ত্রবিরতি সোমবার শুরু হয়েছে। এর ফলে আশা করা হচ্ছে ভঙ্গুর শান্তি প্রক্রিয়া এগিয়ে নেয়া সম্ভব হবে।

এদিকে এরতরফা অস্ত্রবিরতি শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে তারা আটক এক সৈন্যকে মুক্তি দিয়েছে। খবর এএফপির।

অস্ত্রবিরতি শুরুর কয়েক ঘণ্টা পর স্বাধীনতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়েল সান্তোস বলেন, শান্তি অর্জন এখনও বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ। তবে সব সমস্যা সত্ত্বেও আমরা শান্তি অর্জনের জন্য প্রয়োজনীয় যা কিছু করার তা করব যাতে এ যুদ্ধের অবসান ঘটে। মার্কসপন্থী ফার্ক বিদ্রোহীরা ল্যাটিন আমেরিকার মধ্যে সবচেয়ে বড় গেরিলা গ্রুপ এবং দীর্ঘদিন ধরে তারা তাদের সংগ্রাম চালিয়ে আসছে। তাদের তৎপরতা বন্ধে ২০১২ সালে হাভানায় শান্তি আলোচনা শুরু হয়। কিন্তু যুদ্ধ চলমান থাকে। বরং চলতি বছর তা আরও জোরদার হয়। ফলে কলম্বিয়াবাসী শান্তি প্রক্রিয়ার বিষয়ে হতাশ হয়ে পড়ে।

‘ভার্চুয়াল শপিংমল’

ভার্চুয়াল শপিংমল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে চাইছে ফেসবুক। এই লক্ষ্যে মার্কিন সোশাল মিডিয়া জায়ান্ট বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে তাদের ফেসবুক পেজে ই-কমার্স সাইটে পরিণত করতে সাহায্য করবে। খুচরা বিক্রেতারা তাদের পণ্য তালিকাভুক্ত করে সরাসরি ফেসবুকের মাধ্যমে বিক্রি করতে পারবেন। -সিএনএন

শহরবাসীদের চাঙ্গা করতে...

দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৫টা। স্পেনের এক শহরে এই সময়টা হলো ঘুমনোর সরকারী সময়। শহরের মেয়র জানিয়ে দিয়েছেন এই সময় যেন শহরবাসীর ঘুমোতে কোন কষ্ট না হয়। আসলে মেয়রের কাছে এক রিপোর্ট জমা পড়েছে, যাতে বলা আছে দুপুরে সঠিক বিশ্রাম পেলে শহরবাসী চাঙ্গা হন, উৎপাদন ক্ষমতাও বাড়ে। এরপর ‘মধ্যাহ্নকালীন নিদ্রা’কে সরকারী সিলমোহর দিয়ে দিয়েছেন মেয়র। তবে সরকারী নির্দেশিকা জারি হলেও তা বাধ্যতামূলক করা হয়নি। -জিনিউজ

নির্বাচিত সংবাদ