১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাদীর নারাজি খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে রিভিশন মামলা

  • না’গঞ্জে ৭ খুন

নিজস্ব সংবাদদাতা, সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ২১ জুলাই ॥ নারায়ণগঞ্জে ৭ খুন মামলায় এজাহারভুক্ত পাঁচ আসামিকে অভিযোগপত্র থেকে অব্যাহতি দেয়ায় বাদীর নারাজি আবেদন না মঞ্জুরের আদেশের বিরুদ্ধে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে রিভিশন মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেনের আদালতে এই রিভিশন মামলা দায়ের করেন একটি মামলার বাদী নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি। আদালত রিভিশন মামলা গ্রহণ করে, নি¤œ আদালত থেকে নথি তলব করেছেন বলে জানিয়েছেন মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন।

এর আগে গত ৮ জুলাই নারাজি আবেদন গ্রহণ না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বাদী সেলিনা ইসলাম জানান, এজাহারভুক্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার বা জিজ্ঞাসাবাদ ছাড়াই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা প্রভাবিত হয়ে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে। আসামিরা বেরিয়ে এসে হুমকি দিয়ে বলেছে তারা না কি দেড় কোটি টাকার বিনিময়ে অব্যাহতি নিয়েছেন বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি উচ্চ আদালতে আপীল করার কথা জানিয়েছিলেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন জানান, বাদীর নারাজি আবেদন না মঞ্জুরের নি¤œ আদালতের আদেশের বিরুদ্ধে আমরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে রিভিশন মামলা দায়ের করেছি। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে, নি¤œ আদালত থেকে নথি তলব করেছে।

প্রসঙ্গত, গত ৮ জুলাই নারায়ণগঞ্জে ৭ খুনের ঘটনায় একটি মামলার বাদীর নিহত প্যানেল মেয়র সেলিনা ইসলাম বিউটির দাখিল করা নারাজি আবেদন না মঞ্জুর করে পৃথক দুটি মামলায়ই র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তাসহ ৩৫ জনকে অভিযুক্ত করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার দাখিল করা অভিযোগপত্র গ্রহণ করে এবং পলাতক ১৩ আসামিকে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি ও মালামাল ক্রোকের নির্দেশ দেন নারায়ণগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইদুজ্জামান শরীফ।

উল্লেখ্য, গত ২৭ এপ্রিল ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোডের ফতুল্লার শিবু মার্কেট এলাকা থেকে কাউন্সিলর নজরুল ইসলামসহ ৭ জন অপহরণ হয়। এই ঘটনার তিন দিন পর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি বাদী হয়ে নূর হোসেনসহ ৫ আসামির নাম উল্লেখ করে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি ও আইনজীবী চন্দন সরকারের জামাতা বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। গত ৯ এপ্রিল দীর্ঘ প্রায় এক বছর তদন্ত শেষে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মামুনুর রশিদ ম-ল নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৭ খুনের ঘটনায় নূর হোসেন, র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তা লেঃ কর্নেল (অব্যাহতিপ্রাপ্ত) তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, মেজর (অব্যাহতিপ্রাপ্ত) আরিফ হোসেন ও লেঃ কমান্ডার (অব্যাহতিপ্রাপ্ত) এম এম রানাসহ ৩৫ জনকে অভিযুক্ত আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। বর্তমানে র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তাসহ ২২ জন কারাগারে আটক রয়েছে। পলাতক রয়েছে ১৩ জন।