২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চমকে দিলেন শ্বেতা বসু!

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ চলচ্চিত্রে তার আবির্ভাবে অনেকটাই তোলপাড় হয়ে যায়। কারণ খোলামেলা চরিত্রে অভিনয়ের জন্য আলোচিত সমালোচিত হয়েছেন। এরপর মাঝের কিছুটা সময় অভিনয় থেকে দূরে সরে যান। তারপরই জীবনের অন্ধকার গলিপথে নিরুদ্দেশ। সব জল্পনা কল্পনা আর অভিযোগ পাল্টা অভিযোগের পর আদালতে অবশ্য শেষ পর্যন্ত সেসব অন্ধকার অধ্যায় থেকে নিষ্কৃতি মিলেছে তাঁর। মিডিয়ার স্পটলাইট থেকে এ বার পর্দার আলোয় ফিরছেন শ্বেতা বসু প্রসাদ। বলা যায় অনেকটা চমকে দিয়ে বাংলা চলচ্চিত্রে অভিষেক হচ্ছে তাঁর। চলচ্চিত্রের নাম ‘এক নদীর গল্প : টেল অব এ রিভার’। সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের একটি ছোট গল্প অবলম্বনে চলচ্চিত্রটি তৈরি করা হয়েছিল। ‘মকড়ি’-র সেই কিশোরীর জীবন গত ১২ বছরে নানা খাতে বয়েছে। কিন্তু সেই সব পর্ব শুরুর আগেই এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন শ্বেতা। ‘মকড়ি’ চলচ্চিত্রের সাফল্যের পর তাঁকে এই চলচ্চিত্রটির জন্য সই করিয়েছিলেন পরিচালক সমীর চন্দ। শ্বেতা যখন ১৫ বছরের কিশোরী, তখনই চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করা হয়েছিল বলে জানা যায়। দীর্ঘ ৯ বছর বন্দী থাকার পর অবশেষে চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাচ্ছে। বাংলা চলচ্চিত্র প্রসঙ্গে শ্বেতা বসু জানিয়েছেন, ২০০৬ সালে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছিল। এত দিন পর সেটি মুক্তি পাচ্ছে, তার চেয়ে খুশির খবর কিছু থাকতেই পারে না। শুধু পরিচালক সমীর চন্দ, শ্বেতার ‘সমীর আঙ্কল’ই আজ নেই। সেই শূন্যতা কুর কুরে খাচ্ছে শ্বেতাকে। তবে আপাতত কোন চলচ্চিত্র করছেন না শ্বেতা। মুম্বাইয়ের একটি প্রোডাকশন হাউসে স্ক্রিপ্ট কনসালট্যান্ট হিসেবে কাজ করছেন বলে জানা গেছে।