১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে সচিবের কক্ষে তালা, উত্তেজনা

  • চলমান দ্বন্দ্বের জের

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ চলমান দ্বন্দ্বের জের ধরে এবার রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের সচিবের কক্ষে তালা ঝোলানো হয়েছে। চেয়ারম্যানের নির্দেশে ঈদের পর প্রথম কার্যদিবস সোমবার বিকেলে বোর্ডের কর্মচারীরা ওই তালা ঝুলিয়ে দেয়।

মঙ্গলবার সকালে বিষয়টি জানাজানি হলে শিক্ষাবোর্ডে কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটিকে ন্যক্কারজনক বলেও দাবি করেছেন কেউ কেউ। তবে ঈদের ছুটি শেষে দ্বিতীয় দিনেও অফিসে আসেননি সচিব আবুল কালাম আজাদ। সর্বশেষ তিনি ১৩ জুলাই অফিস করেন বলে জানা গেছে। তার দীর্ঘ অনুপস্থিতির সুযোগেই সোমবার তার কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেয়া হয় বলে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৩ জুলাই নিজ কক্ষে মারপিটের ঘটনার পর থেকে আর অফিস করছেন না সচিব আবুল কালাম আজাদ। তবে ঈদের আগে ১৬ জুলাই তিনি চেয়ারম্যান বরাবর ছুটির একটি দরখাস্ত পাঠিয়ে দিয়েছেন। জানা যায়, গত ১৩ জুলাই নিজের কক্ষে বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি শেখ কামাল হোসেনকে ধরে পেটানোর অভিযোগে চেয়ারম্যান পক্ষের উপ-কলেজ পরিদর্শক নুরুজ্জামান ওরফে মুক্তা, কর্মচারী মাহবুব আলী ও আফতাব হোসেনের নামে একটি মামলা করেন সচিব। গত ১৫ জুলাই মামলাটি করেন তিনি। তবে ওই মামলার এখন পর্যন্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ।

নীলফামারীতে পল্লী চিকিৎসককে গণধোলাই

নারীর শ্লীলতাহানি

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী ॥ এক নারী রোগীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে এলাকাবাসী পিটিয়েছে হালিমুর রহমান (৩৫) নামের এক পল্লী চিকিৎসককে। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ঘটনাটি ঘটে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ঠুটারডাঙ্গা বাজারে। আহত অবস্থায় ওই পল্লী চিকিৎসককে ডিমলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। উক্ত পল্লী চিকিৎসক ডিমলা নিচপাড়া গ্রামের মৃত তছলিম উদ্দিনের পুত্র।

জানা যায়, উপজেলার কুমারপাড়া গ্রামের জাহানুর রহমানের স্ত্রী শারীরিক সমস্যার কারণে সোমবার সন্ধ্যায় ঠুটারডাঙ্গা বাজারের উক্ত পল্লী চিকিৎকের চেম্বারে চিকিৎসার জন্য যায়। ওই গৃহবধূ অভিযোগে জানায়, চেকআপের নামে পল্লী চিকিৎসক চেম্বারের একটি ঘরের বিছানায় তাকে শুয়ে দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাত দিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। তিনি বাধা দিয়ে বাড়ি ফিরে আসেন এবং ঘটনাটি তার স্বামীসহ এলাকাবাসীকে জানায়। কিন্তু তার আগেই ওই পল্লী চিকিৎসক তার চেম্বার বন্ধ করে সটকে পড়েন।

এদিকে এলাকাবাসী জানায়, মঙ্গলবার সকাল ১১টায় পল্লী চিকিৎসক তার চেম্বার খুলে বসলে ওই গৃহবধূর স্বামীসহ এলাকাবাসী এসে তাকে পিটিয়ে আহত করে। এ সময় পল্লী চিকিৎসক তার ভুলের জন্য ক্ষমা চায়।