২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এখন ইরান থেকে তেল কিনতে পারবে বাংলাদেশ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ পরমাণু কর্মসূচী নিয়ে ইরানের সঙ্গে ছয় বিশ্বশক্তির সমঝোতা চুক্তির ফলে বাংলাদেশ লাভবান হবে। ইরান থেকে এখন বাংলাদেশ তেল কিনতে পারবে। এছাড়া ইরানের সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্যও বাড়বে। বুধবার পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান। এদিকে ইরানের সঙ্গে ছয় বিশ্বশক্তির সমঝোতা চুক্তি বাস্তবায়নের রূপরেখা বাংলাদেশ সরকারকে অবহিত করেছেন ঢাকায় অবস্থিত এসব দেশের রাষ্ট্রদূতরা।

পরমাণু কর্মসূচী নিয়ে ইরানের সঙ্গে সমঝোতার বিষয়ে বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া বৈঠকে ছয় বিশ্বশক্তি হিসেবে পরিচিত ঢাকায় অবস্থিত এসব দেশের রাষ্ট্রদূতরা যোগ দেন। বৈঠকে সমঝোতা চুক্তির বাস্তবায়নের রূপরেখা তুলে ধরেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের ঢাকায় নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদ্যু। এছাড়া পরমাণু চুক্তির বিষয়ে বাংলাদেশের অবস্থানও তুলে ধরা হয়। বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, পরমাণু কর্মসূচী নিয়ে সমঝোতা অনুযায়ী ইরানের ওপর থেকে অবরোধ তুলে নেয়া হলে বাংলাদেশ লাভবান হবে। কারণ অবরোধের ফলে আমরা ইরান থেকে তেল কিনতে পারতাম না। এখন আবার তেল কিনতে পারব। এছাড়া ইরানের সঙ্গে অন্যান্য ব্যবসা-বাণিজ্যও প্রসারিত হবে।

বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকায় নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াদ্যু বলেন, ইরানের সঙ্গে ছয় বিশ্বশক্তির সমঝোতা চুক্তির বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এই চুক্তি কিভাবে বাস্তবায়িত হবে, সেটা বাংলাদেশ সরকারকে অবহিত করেছেন তারা। তিনি পরমাণু চুক্তি ইস্যুতে বাংলাদেশের অবস্থানের প্রশংসা করেন।

পরমাণু কর্মসূচী নিয়ে ভিয়েনায় ছয় বিশ্বশক্তির সঙ্গে ইরানের সমঝোতা চুক্তি হওয়ায় বাংলাদেশ ইতোমধ্যেই স্বাগত জানিয়েছে। বাংলাদেশ আশা করছে এই সমঝোতা ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচী আন্তর্জাতিক রীতিনীতি অনুযায়ী পরিচালনার ক্ষেত্রে সহায়ক হবে।

সেতুমন্ত্রীর পদ্মা সেতু এলাকা পরিদর্শন

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বুধবার বিকেলে আকস্মিক পদ্মা সেতু এলাকা পরিদর্শন করেছেন। মন্ত্রী মাওয়ায় এসে পদ্মা সেতুর কাজের অগ্রগতিসহ খুটিনাটি খোঁজখবর নেন। এরপর তিনি পাশের কুমারভোগে সেতুর কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড এলাকা ঘুরে দেখেন। এই কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডের পাশে সম্প্রতি নদী ভাঙ্গন বন্ধ এবং ভাঙ্গণ রোধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দৃশ্য অবলোকন করে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এই সময় মন্ত্রীর সঙ্গে সেতু পরামর্শক ও সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী এবং কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ঈদের ছুটি শেষে সকলের কাজে যোগদান এবং ভরা বর্ষা সত্ত্বেও কাজের অগ্রগতি নিশ্চিত হয়ে মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, নির্দিষ্ট সিডিউল অনুযায়ী সেতুর কাজ এগিয়ে চলেছে। তাই যথা সময়েই সেতুর কাজ সম্পন্ন হবে। কনস্ট্রাকসন ইয়ার্ডে যে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছিল এখন সম্পূর্ণরূপে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।