১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অস্ট্রেলিয়ার ৪৩ শতাংশ ভোক্তা কপিরাইট আইন ভাঙছে

অস্ট্রেলিয়ার ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক নিয়মিত বিভিন্ন চলচ্চিত্র, টেলিভিশন অনুষ্ঠান এবং গান অবৈধ পন্থায় ডাউনলোড করেন। দেশটির সরকার পরিচালিত সাম্প্রতিক এক জরিপে উঠে এসেছে এ তথ্য। খবর বিবিসির।

অস্ট্রেলিয়ার বাজারে ডিজিটাল কনটেন্টের মূল্য কমানো হলে, সিনেমা, গানের এ্যালবাম এবং বিভিন্ন টিভি সিরিজ বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে একই সময়ে মুক্তি দিলে অবৈধ ডাউনলোডের মাত্রা অনেকটাই কমে আসবে মনে করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ২০১৫ সালের মার্চ ও মে মাসের মধ্যবর্তী সময়ে অস্ট্রেলীয়দের ওপর ওই জরিপ চালানো হয়। জরিপের মূল লক্ষ্য ছিল, দেশটিতে ঠিক কী হারে কপিরাইট আইন লঙ্ঘন করা হচ্ছে সে বিষয়টি জানা। জরিপের তথ্য অনুযায়ী, দেশটির ন্যূনতম ৪৩ শতাংশ অনলাইন ভোক্তা কপিরাইট আইন লঙ্ঘন করছেন। দেশটির ২৬ শতাংশ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কপিরাইট আইন লঙ্ঘনের সঙ্গে জড়িত। অবৈধভাবে সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হয় বিভিন্ন চলচ্চিত্র। ২,৬৩০ জন অস্ট্রেলীয় নাগরিকের ওপর জরিপ চালিয়ে দেখা গেছে, তাদের মধ্যে ৪৮ শতাংশ জরিপ চলাকালেই অন্তত একটি চলচ্চিত্র অবৈধভাবে ডাউনলোড করেছেন। এ বিষয়ে অস্ট্রেলিয়ার যোগাযোগ বিভাগ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, অনলাইন কপিরাইট রক্ষার যুদ্ধে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখতে পারেন কনটেন্ট নির্মাতারা। নির্মাতারা তাদের কনটেন্টকে অনলাইন ভোক্তাদের কাছে স্বল্পমূল্যে সময়মতো পৌঁছে দিতে এবং আরও সহজলভ্য করতে পারলে তা পাইরেসির মাত্রা কমাতে সাহায্য করবে। এ ছাড়াও কপিরাইট লঙ্ঘন ঠেকাতে দেশটির সরকার নিজেদের কপিরাইট আইন সংশোধন করেছে। ১৯৬৮ সালের অস্ট্রেলিয়ান কপিরাইট আইনটি সংশোধনের ফলে দেশটির সরকার এখন থেকে কপিরাইট আইন লঙ্ঘন করছে এরকম বিদেশী যে কোন ওয়েবসাইট ব্লক করে দিতে পারবে।

মার্কিন সাহিত্যিক ইএল ডক্টোরো আর নেই

এ্যাওয়ার্ড জয়ী মার্কিন লেখক ইএল ডক্টোরো মঙ্গলবার মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। নিউইয়র্ক টাইমস এ কথা জানিয়েছে।

অসাধারণ প্রতিভাবান এই লেখক ‘র‌্যাগটাইম’, ‘বিলি বাথগেট’ ও ‘দ্য মার্চ’ এর মতো ইতিহাসভিত্তিক উপন্যাসের জন্য সুপরিচিত। নিরীক্ষা ও বর্ণনাধর্মী লেখার জন্য তার সুখ্যাতি রয়েছে। ডক্টোরোর ছেলে পত্রিকাটিকে জানান, ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা গেছেন। তার বাবা-মা ইহুদী ছিলেন। তারা আমেরিকায় অভিবাসী হয়েছিলেন। ১৯৬০ এর দশকে ডক্টোরোর প্রথম বই প্রকাশিত হয়। বইটির নাম ছিল ‘ওয়েলকাম টু হার্ড টাইমস’। ১৯৬৬ সালে প্রকশিত তার কল্পবিজ্ঞান ‘বিগ এ্যাজ লাইফ’ উপন্যাসটি তাকে খ্যাতি এনে দেয়।

১৯৭১ সালে প্রকাশিত ‘বুক অব ড্যানিয়েল’ একটি ইতিহাসসমৃদ্ধ বই। ডক্টোরোর লেখা র‌্যাগটাইমকে তার প্রিয় উপন্যাস হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন প্রেসিডেন্ট ওবামা।