১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আসিয়া বিবির মৃত্যুদ-ের কার্যকারিতা স্থগিত করেছে পাক সুপ্রীমকোর্ট

পাকিস্তানের সুপ্রীমকোর্ট বুধবার খ্রীস্টান মহিলা আসিয়া বিবির মৃত্যুদ-ের কার্যকারিতা স্থগিত রেখেছে।

কথিত ব্লাসফেমির (ধর্মের অবমাননা) অভিযোগে তাকে ইতোপূর্বে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। খবর এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের।

সুপ্রীমকোর্টের তিন সদস্যের এক বেঞ্চ আসিয়া বিবিকে আপীল করার অনুমতি দিয়েছে। আদালত মন্তব্য করেছে যে ন্যায়বিচারের স্বার্থে তার মামলা পরীক্ষা করে দেখা অপরিহার্য।

অধিকন্তু, সর্বোচ্চ আদালাত লাহোর হাইকোর্টের (এলএইচসি) সিদ্ধান্ত স্থগিত রেখেছে। এলএইচসি গত বছর তার মৃত্যুদ- বহাল রাখে।

পাঁচ সন্তানের মা আসিয়া (৪৯) ২০০৯ থেকে কারাগারে রয়েছেন। ২০১০ সালের নবেম্বরে তিনি এক মুসলিম মহিলার সঙ্গে তর্ক বিতর্কে লিপ্ত হওয়ার সময় ধর্মের অবমাননা করে মন্তব্য করার অভিযোগে এক অধস্তন আদালতে দোষী সাব্যস্ত হন। তখন থেকে তার মৃত্যুদ- কার্যকর হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে।

ব্লাসফেমি আইন সংস্কারের আহ্বান জানানাতে এবং বিবির বিচারকে ত্রুটিপূর্ণ বলায় দু’ বড় রাজনীতিককে ২০১১ সালে খুন করা হয়। তারা ছিলেন পাঞ্জাব প্রদেশের গবর্নর সালমান তাসির ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শাহবাজ ভাট্টি।

মার্কিন বিমান হামলায় আল কায়েদা নেতা নিহত

সিরিয়ার তথাকথিত খোরাসান গোষ্ঠীর শীর্ষনেতা এবং দীর্ঘদিন ধরে আল কায়েদার গোয়েন্দা হিসেবে কাজ করা মুহসিন আল ফাদলি যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পেন্টাগন। মঙ্গলবার পেন্টাগনের পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে খবরটি জানিয়েছেন মুখপাত্র নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন জেফ ডেভিস। খবর ওয়েবসাইটের।

দুই সপ্তাহ আগে ৮ জুলাই সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আলেপ্পোর পশ্চিমের সারমাদা এলাকায় গাড়িতে যাওয়ার সময় বিমান হামলায় তিনি নিহত হন বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

ডেভিস বলেন, তিনি আল কায়েদার জ্যেষ্ঠ নেতা ছিলেন। যে কয়জন বিশ্বস্ত আল কায়েদা নেতা ১১ সেপ্টেম্বর ২০০১ সালের হামলার বিষয়ে আগে থেকেই জানতেন, তিনি তাদের মধ্যে অন্যতম। ২০০২ সালের অক্টোবরে কুয়েতের ফাইলাকা দ্বীপে যুক্তরাষ্ট্র মেরিনের একটি জাহাজ ও ফরাসী জাহাজ এমভি লিমবার্গে চালানো হামলায় ফাদলি জড়িত ছিলেন বলে জানিয়েছেন ডেভিস।

পেন্টাগন মুখপাত্র বলেন, আল কায়েদার অভিজ্ঞ গোয়েন্দাদের একটি নেটওয়ার্কের নেতা ছিলেন তিনি।