১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মধ্যবাড্ডার আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেক পরিবার পেল ২০ হাজার টাকা ২০ কেজি চাল

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ রাজধানীর মধ্যবাড্ডার ঝিলের টংঘরে অগ্নিকা-ে ক্ষতিগ্রস্ত ৪শ’ পরিবারের মধ্যে ত্রাণ বরাদ্দের পর ক্ষতিপূরণ দেয়া শুরু করেছে ঢাকা জেলা প্রশাসন। প্রতিটি পরিবারের জন্য ২০ হাজার টাকা ও ২০ কেজি চাল ক্ষতিপূরণ হিসেবে বিতরণের জন্য অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বুধবার অগ্নিকা-ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর জন্য দুই দিনের রান্না করা খাবারের ব্যবস্থাও করা হয়। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো যাতে নিজেরা নিজেদের পুনর্বাসন করে নিতে পারে তাই ইতোমধ্যেই অর্থ ও ত্রাণ তুলে দিয়েছেন ঢাকা জেলা প্রশাসন ও এলাকার সাংসদ। মঙ্গলবার বিকেল তিনটা থেকে বাড্ডা আলাতুন্নেসা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এই ত্রাণ বিতরণ করা হয়। তবে অগ্নিকা-ে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে অনেকেই ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঢাকার ডিসি তোফাজ্জল হোসেন মিয়া বলেছেন, মধ্যবাড্ডার ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ হিসেবে নগদ ২০ হাজার করে টাকা এবং ২০ কেজি করে চাল দিয়েছি। ক্ষতিগ্রস্তদের অনেকেই ঈদের ছুটিতে বাড়িতে গেছেন। তারা ফিরে এলে তাদেরও ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে।

যেহেতু জায়গাটি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের নয়, সেহেতু তাদের টিন বা অন্য কোনকিছু দিয়ে সাহায্য করার প্রয়োজন হচ্ছে না।

ঢাকা জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আনোয়ারুল ইসলাম খন্দকার জানান, ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের তালিকা পেয়েছি। প্রতিটি পরিবারকে সরকারের পক্ষ থেকে নগদ ২ হাজার টাকা ও ১৫ কেজি চাল দেয়া হয়েছে। এছাড়াও স্থানীয় সংসদ সদস্যের পক্ষ থেকে প্রত্যেক পরিবারকে ১ হাজার টাকা এবং একটি করে শাড়ি দেয়া হয়েছে।

ক্ষতিপূরণ পাওয়ার আশায় ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বাসার সামনে বসেছিলেন গার্মেন্টসকর্মী পলি, ফাহিমা, রাসিদাসহ আরও অনেকে। ক্ষতিপূরণ সিøপের আশায় বসেছিলেন তারা। তাদের মধ্যে অনেকের অভিযোগ, প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ক্ষতিপূরণ বিতরণ করা হচ্ছে না এবং কম ক্ষতিপূরণ দেয়া হচ্ছে।

ঝিলের ওই জমির মালিক ওয়ার্ড কাউন্সিলর ওসমান গণি বলেন, এখানে ৪শ’ পরিবারের বসবাস ছিল। অগ্নিকা-ের ঘটনায় তার ভাইবোনদের প্রায় ১০ কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হয়েছে বলে দাবি করেছেন কাউন্সিলর।

উল্লেখ্য, গত সোমবার ঈদের ছুটির মধ্যে রাজধানীর মধ্যবাড্ডায় প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী এক ভয়াবহ অগ্নিকা-ে শতাধিক টংঘর ভস্মীভূত হয়েছে। শতাধিক টংঘর, মেসবাড়ি, দোকানের সহস্রাধিক পরিবার সর্বস্বান্ত হন।