২৩ জুলাই ২০১৫

কিশোরগঞ্জে পৃথক ঘটনায় গৃহবধূ ও যুবকের লাশ উদ্ধার

নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ ॥ কিশোরগঞ্জে পৃথক ঘটনায় জেলার বাজিতপুর উপজেলার রাবারকান্দি থেকে বন্যা আক্তার (২৭) নামে গৃহবধূর বস্তাবন্দি লাশ ও জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলায় বনভোজনে গিয়ে ব্রহ্মপুত্র নদে নিখোঁজ রমজান (১৮) নামে এক যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ নিহতদের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, প্রায় ২ বছর আগে বাজিতপুরের রাবারকান্দি হাজীবাড়ির মৃত শামসুউদ্দিনের মেয়ে বন্যা আক্তারের সাথে জেলার নিকলীর জারইতলা আঠারবাড়িয়া গ্রামের ওমর ফারুকের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্বামীর সঙ্গে পরিবারিক কলহের জেরে বন্যা ৪ মাস আগে বাবার বাড়িতে এসে বসবাস করছিলেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত থেকে বন্যাকে কোথায়ও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। বৃহস্পতিবার সকালে বন্যার বাড়ির সামনে স্থানীয়রা একটি বস্তা দেখে সন্দেহ হলে থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বস্তা থেকে গলার মধ্যে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় বন্যার মৃতদেহ উদ্ধার করে। বাজিতপুর থানার ওসি সুব্রত কুমার সাহা জানান, নিহতের বুকে ও হাতে কালো আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

অপরদিকে পাকুন্দিয়া থানার এসআই ফজলুল হক আকন্দ জানান, ময়মনসিংহের ভালুকার হবিরবাড়ী জালপাজা গ্রামের আব্দুল আউয়ালের ছেলে রমজান (১৮) বুধবার বিকেলে পাকুন্দিয়ায় বনভোজে গিয়ে নিখোঁজ হয়। অন্য যুবকদের সাথে সে বাজারঘাট থেকে সাঁতার কেটে ব্রহ্মপুত্র নদের অন্যপাড়ে একটি খালি জায়গায় ফুটবল খেলতে যায়। খেলা শেষে সবাই আবারো সাঁতার কেটে নৌকায় আসার সময় রমজান পানিতে তলিয়ে যায়। পরে নদীতে অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ওইদিন রাতেই ময়মনসিংহ থেকে ডুবুরিদল এসে উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। পরে ভোরে ব্রহ্মপুত্র থেকে রমজানের মৃতদেহ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।